ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bagan Bangla Insider

নতুন প্রেমে প্রভা, লিখছেন প্রেমের কাব্য

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ সোমবার, ০৮:২৮ পিএম
নতুন প্রেমে প্রভা, লিখছেন প্রেমের কাব্য

‘শুধু আমিই জানবো, কেউ একজন আমার হাতটা শক্ত করে ধরেছিল ... কেউ একজন আমার সাথে বৃষ্টিতে ভিজেছিল ... কেউ একজন আমার কপালের টিপ ঠিক করে দিতো ... কেউ একজন আমার চোখের দিকে তাকিয়ে থাকতো ... কেউ একজন খুব সকালে ফোন করে আমার ঘুম ভাঙ্গাতো ... কেউ একজন ফিশফিশ করে রাতে কথা বলতো!!’ কথাগুলো আলোচিত টিভি অভিনেত্রী প্রভার।

প্রত্যেকের জীবনে এই ‘কেউ একজন’ থাকে ... কারো কারো ভাগ্য হয় ঐ ‘কেউ একজন’ এর সাথে সারা জীবন থাকার ... আর কারো কারো ভাগ্য হয় ‘অন্য কোন একজন’ এর সাথে সারা জীবন থাকার!

প্রভা যেন নতুন প্রেমের কাব্য লিখছেন, সেখানে রচনা করেন, পৃথিবীর যে কেউ আমার চোখের জলের কারণ হতে পারে ... কিন্তু ঐ ‘টুপ করে গড়িয়ে পড়া অশ্রুবিন্দু’ টা কিন্তু একজনই, একজনের জন্যই ... ওটা কখনোই কেউ হতে পারে না, পারবে না..‘টুপ করে গড়িয়ে পড়া অশ্রুটার’ কথা কেউ জানে না ... কেউ না !!"

এমন কেউ একজন আসুক যে আমাকে জানবে। মনোযোগ দিয়ে কোনো আকর্ষণীয় গল্পের বইয়ের মতো আমার জীবন পড়ে দেখবে।

আমার হাতে এমন একজোড়া হাতের স্পর্শ লাগুক যে হাত অন্ধকার রাস্তায় ছেড়ে যাবার জন্য নয়।বরং আমার ভয় কাটানোর উদ্দেশ্য সে হাত যেনো আরো শক্ত করে আমার হাত চেপে ধরে।

এমন একজন মানুষ ই আমার জীবনে আসুক যে হাত ধরে রাস্তা পার করে দিবে।

এমন এক জোড়া চোখের নজর ই আমার উপরে পরুক যে চোখে আমার জন্য অফুরন্ত সম্মান থাকবে।যার চোখে আমি ই সেরা।

আমার শ্যামলা গায়ের রঙ যেনো তার খুব প্রিয় হয়।

আমার চোখের কাজল নষ্ট হবে, এটা ভেবে সে যেনো আমার চোখ থেকে জল গড়াতে না দেয়।

সে যেনো আমার বর্তমান কে ভালোবেসে ভবিষ্যতের স্বপ্নগুলো হাতে হাত রেখে দেখায়।

এমন একজন মানুষ দরকার যে আমার কথা ভেবে মনের মধ্যে হাজার রকম গান রচনা করবে।

সে যেনো রাস্তায় দাঁড়িয়ে ফুসকা আর চা খাওয়ানোর দায়িত্ব টা নেয়।

আমার কপালের এদিক ওদিক হওয়া টিপ টা যেনো সে তার আঙুল ছুইয়ে ঠিক করে দেয়।

দামী রিং পড়িয়ে হাটু গেড়ে প্রপোজ করার কোনো দরকার তার নেই।

সে আসার সময় একমুঠো চুড়ি নিয়ে এসে আমার হাতে পরিয়ে দিক।খুব যত্ন করে আমার নখে নেইলপালিশ লাগিয়ে দিক।

রাস্তার পাশ থেকে বেলি ফুল কিনে যেনো খোপায় পরিয়ে দেয়।

আমি গোলাপ চাইনা।কিন্তু বর্ষার কদম আমার লাগবে।

কৃষ্নচূড়া ফুল আমার লাগবেই।

নদীর পাড়ে গেলে যেনো হাত ভরে কচুরিপানা ফুল এনে দেয় যেনো আমায়।

ডায়েরির পাতার ভাজে ভাজে আমি তার দেওয়া বকুল ফুল জমাতে চাই।

জীবনে এমন একজন থাকুক যার কাছে কষ্ট গুলো কখনো বর্ননা করা লাগবে না।

চোখের দিকে তাকিয়ে যেনো সে আমার সব টা ব্যাথা অনুভব করে নিতে পারে।

খুব ভালো দিনে তাকে যতটা কাছে পাবো তারচেয়ে খারাপ লাগা দিন গুলোতে সে বেশি মিশে থাক।

সে যেনো আমার সব সময় গুলো তার আর আমার করে নেয়।

ভরসা হয়ে আসুক সে।

থাকুক আত্মার মানুষ হয়ে।

প্রসঙ্গত, আজকাল বেশ রোমান্টিক হয়ে উঠেছেন প্রভা। নিয়মিত কাব্য চর্চা করেন অনলাইনে। কোন একজনের হাত ধরে ছবি দেয়। স্বামী শান্তর সঙ্গে ডিভোর্স ঠিক কবে হয়েছে জানা যায়নি। তবে যেহাত ধরে প্রভা ঘোরে সেই হাত যে তার স্বামীর নয় সেটা ভালোই বোঝা যায়। কয়েকটি প্রেমের গুঞ্জন শেষে প্রভা এখন কোথায় থিতু সেটা জানতে আরো কিছুটা দিন অপেক্ষা করতে হবে নিশ্চিত। এখনি যে তিনি সবকিছু খোলাসা করছেন না। 
 
বাংলা ইনসাইডার/এমআরএইচ