ঢাকা, বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

‘মুভি মোগল’ আর নেই

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ শনিবার, ০১:০৫ পিএম
‘মুভি মোগল’ আর নেই

মুভি মোগল একেএম জাহাঙ্গীর খান আর নেই। আজ শনিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) সকালে তিনি রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

জানা যায়, অনেকদিন ধরেই বার্ধক্যজনিত অসুখে ভুগছিলেন এ কে এম জাহাঙ্গীর খান। হঠাৎ শরীর খারাপ হলে তাকে সপ্তাহ দুই আগে ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেছেন তিনি।

এ কে এম জাহাঙ্গীর খানের মৃত্যুতে চলচ্চিত্রে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। রূপালি তারার দেশকে যে ক`জন দাপুটে প্রযোজক মাতিয়ে রেখেছিলেন তাদের অন্যতম একেএম জাহাঙ্গীর খান। তিনি স্ট্যান্ডার্ড সিরামিকস লিমিটেডের চেয়ারম্যান ও পিপলস সিরামিকস ইন্ডাস্ট্রিজের পরিচালকও ছিলেন।

এদেশের চলচ্চিত্রে এ কে এম জাহাঙ্গীর খানের অপরিসীম অবদান রয়েছে। তার প্রযোজিত ছবিগুলো একটানা ২৫ সপ্তাহ, ৮১ সপ্তাহ, ১০৩ সপ্তাহ অর্থাৎ রজত জয়ন্তী, সুবর্ণ জয়ন্তী, হীরক জয়ন্তী ছুঁয়ে সগৌরবে চলেছে। তার ছবির এই ঐতিহাসিক সাফল্যে চিত্রালীর সম্পাদক মরহুম আহমদ জামান চৌধুরী তাকে ‘মুভি মোগল’ উপাধিতে ভূষিত করেন। তার দেয়া এই উপাধি আজও সর্বমহলে স্বীকৃত। এ কে এম জাহাঙ্গীর খান চলচ্চিত্রে প্রথমে পরিবেশক ছিলেন। তারপর ১৯৭৬ সালে প্রযোজক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন। তার প্রথম প্রযোজিত ছবি নয়নমনি। পরিচালনা করেন আমজাদ হোসেন। ছবিটি তুমুল জনপ্রিয়তা লাভ করে। তারপর একের পর এক প্রযোজনা করেন তুফান, বিজয়িনী সোনাভান, রূপের রাণী চোরের রাজা, রাজকন্যা, বাদল, কুদরত, আলতাবানু, সওদাগর, রাজ সিংহাসন, তিন বাহাদুর, পদ্মাবতী, সম্রাট, চন্দ্রনাথ, ডাকু মর্জিনা, সোনাই বন্ধু, রঙিন রূপবান, রঙিন রাখালবন্ধু, শুভদা, রঙিন কাঞ্চন মালা, সাগর কন্যা, শীর্ষমহল, প্রেম দিওয়ানা, ডিসকো ড্যান্সার, বাবার আদেশ, আমার মা, রঙিন নয়নমনি ইত্যাদি দর্শকপ্রিয় ছবি। এসব ছবি প্রযোজনার আগে তিনি আলমগীর পিকচার্সের ব্যানারে পরিবেশনা করেন যাহা বলিব সত্য বলিব, এখানে আকাশ নীল, অপবাদ, সূর্যকন্যা, কি যে করি, আলিঙ্গন, সেতু, সীমানা পেরিয়ে, মা, নোলক ইত্যাদি। এ কে এম জাহাঙ্গীর খান ১৯৩৯ সালের ২১ এপ্রিল কুমিল্লার চিওড়া কাজী বাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবা আলহাজ্ব সেকান্দার খান ছিলেন দেশ বিভাগের আগে আলীগড় বিশ্ববিদ্যালয়ের এম এ। পৈতৃকসূত্রে জাহাঙ্গীর খান শিল্পপতি।

বাংলা ইনসাইডার/এএইচসি