ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট ২০২০, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

ঈদে সিনেমা হল খুলবে?

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৪ জুলাই ২০২০ মঙ্গলবার, ১০:১৪ পিএম
ঈদে সিনেমা হল খুলবে?

কোরবানির ঈদের বাকি আর ২০ দিনও নেই। এই ঈদেও খুলে দেওয়া হচ্ছে না সিনেমা হল- এমনই আভাস দিলেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির নেতারা। সিনেমাহল খোলার কোন প্রস্তুতিও নেয়নি হল মালিকরা।

হল মালিকদের একাংশসহ সিনেমা প্রযোজনার সঙ্গে জড়িত অনেকেই স্বাস্থ্যবিধি ও শর্ত সাপেক্ষে প্রেক্ষাগৃহ খুলে দেওয়ার বিষয়টি বিবেচনা করার অনুরোধ জানিয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে দফায় দফায় বৈঠক হলেও এখনো পর্যন্ত নতুন কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তাই এবারের ঈদেও সিনেমা হলগুলো খোলা হচ্ছে না বলে নিশ্চিত করেছেন সিনেমা হল মালিক সমিতির সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন।

অন্যদিকে রোজার ঈদে মুক্তির তালিকায় থাকা সিনেমাগুলোর মুক্তি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করছেন নির্মাতারা। সবমিলিয়ে জটিল এক পরিস্থিতির সৃষ্টি হচ্ছে চলচ্চিত্রাঙ্গনে।

গেল তিন মাস থেকে সিনেমা হলগুলো বন্ধ থাকার কারণে কোটি কোটি টাকা লোকসান হয়েছে বলে সংশ্লিষ্টরা মত প্রকাশ করেছেন। তারা বলছেন, দীর্ঘদিন প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়েছেন সিনেমা হলের মালিক ও কর্মচারীরা। এই সমস্যা কাটিয়ে উঠতে ও চলচ্চিত্রের অবস্থার পরিবর্তন আনতে সিনেমা হলগুলো দ্রুতই খুলে দেওয়া প্রয়োজন।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক-পরিবেশক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলম বলেন, ‘স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত সংখ্যক যাত্রী নিয়ে গত ৩১ মে থেকে গণপরিবহণ চলছে। মানুষ স্বাস্থ্যবিধি মানছে। এর মানে সিনেমা হলেও মানুষ স্বাস্থ্যবিধি মানতো। তারপরেও কেন সিনেমা হলগুলো খুলে দেওয়া হচ্ছে না তা বলা মুশকিল। আমরা সিনেমা হল খোলার জন্য আবেদন করেছি, এখন সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছি।’

হল মালিক সমিতির সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন বলেন, ‘সরকারের কাছে আবেদন করেছি সিনেমা হল খোলার বিষয়ে। এখনো কোনো সিদ্ধান্ত আসেনি। এদিকে ঈদের আর দুই সপ্তাহ আছে। এরমধ্যে সিদ্ধান্ত আসলেও নতুন কোন সিনেমা মুক্তি পাবে তা নিয়েও জটিলতা তৈরি হবে। তাছাড়া সিদ্ধান্ত কবে আসবে সে বিষয়টিও আমরা জানি না। এজন্য এবারের ঈদেও আমরা সিনেমা হল খুলতে পারছি না। আমার মনে হচ্ছে ঈদেও সিনেমা হলগুলো বন্ধ থাকবে।’

এদিকে প্রায় আড়াই মাস ধরে চলচ্চিত্রের শুটিং বন্ধ থাকার পর ৫ জুন থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শুটিং, এডিটিংয়ে ফিরেছে ঢালিউড। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনও দাপ্তরিক ও শুটিং ফ্লোর খুলে দিয়েছে।

হল বন্ধ থাকায় মুক্তির অপেক্ষায় থাকা সিনেমাগুলো মুক্তি দেওয়া হচ্ছে না। মুক্তির অপেক্ষায় আছে দেবাশীষ বিশ্বাস পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ টু‘ ও সুজন বড়ুয়া পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘বান্ধব’। ঈদে মুক্তির কথা ছিল শান্ত খান ও কলকাতার শ্রাবন্তী অভিনীত ‘বিক্ষোভ‘, সিয়াম আহমেদ ও পূজা অভিনীত ‘শান‘। সানী সানোয়ার ও ফয়সাল আহমদের ‘মিশন এক্সট্রিম’, শাহীন সুমনের ‘বিদ্রোহী’ ছাড়াও আরো একাধিক ছবি মুক্তির কথা ছিল। কিন্তু করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে সিনেমাগুলো মুক্তি কবে নাগাদ পাবে তা অনিশ্চিত।