ঢাকা, বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , ৪ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

‘বসুন্ধরায় গঙ্গা-বর্ষা-ইস্তা ভালোই চলছে’

রেজাউল করিম রাজা
প্রকাশিত: ১০ জুন ২০১৮ রবিবার, ১২:৪৯ পিএম
‘বসুন্ধরায় গঙ্গা-বর্ষা-ইস্তা ভালোই চলছে’

‘এবছর ঈদে ইন্ডিয়ান কালেকশন ভালো চলছে। বুটিকসের পাশাপাশি কটনের চাহিদা বেশি। বুটিকসের পোশাকের সাথে প্লাজো এবং কাতান ওড়নার পোশাকগুলো ভালো বিক্রি হচ্ছে। ভিনায় ও এলটি বেনারসের পোশাকের চাহিদা ভালো। এবার রোজার ঈদ গরমে হওয়ার কারণে কটনের বিভিন্ন পোশাক যেমনঃ গঙ্গা, বিবেক, বর্ষা, ইস্তার কালেকশন ভালোই চলছে।’  

রোজার ঈদে মেয়েদের পোশাকের চাহিদা ও বিক্রয় প্রসঙ্গে বসুন্ধরা শপিং মলের হৈমন্তী ফ্যাশনের মালিক আমির হোসেন এভাবেই তার মতামত ব্যক্ত করেন।

বসুন্ধরা শপিং মলের জান্নাত ফ্যাশন, চৈতি ফ্যাশন, দিশারী, সুন্দরী, নন্দিনী, ক্লথ হ্যাভেন আরও কয়েকটি দোকান ঘুরে ও কথা বলে দেখা যায় ইন্ডিয়ান কাপড়ের বেচা কেনা ভালো। ক্রেতাদেরও ইন্ডিয়ান পোশাকের প্রতি দেখা যায় বাড়তি আকর্ষন। বিশেষ করে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়া অধিকাংশ তরুনীরাই এইসব পোশাকের ক্রেতা।

মালিবাগ থেকে মায়ের সাথে বসুন্ধরা শপিং মলে ঈদের কেনাকাটা করতে এসেছেন স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটির অনার্সের ছাত্রী সাদিয়া বিনতে নুর। কি পোশাক ধরনের পছন্দ জানতে চাইলে সাদিয়া বলেন, ‘আমার ভার্সিটির বান্ধবীরা ইন্ডিয়ান পদ্ম বুটিকসের পোশাক কিনেছেন আমারও এই ধরনের ড্রেস পছন্দ। তাই আজ কিনতে এসেছি। পছন্দ হলেই কিনে ফেলব।’  

পদ্ম বুটিকস, দিল্লী বুটিকস, চেন্নাই বুটিকস, নিলবাড়া, হাসকিনা, ভিনায়, এলটি ফ্যাশনের পোশাকগুলো মানভেদে ৩০০০ টাকা থেকে ৪৫০০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। এইসব কাপড় কেনার পর ড্রেস বানাতে দর্জিকে আরোও ১০০০ টাকা থেকে  ১৫০০ টাকা দিতে হয়। ক্রেতা চাইলে বসুন্ধরার কাপড়ের বিক্রেতারা তাঁদের নিজস্ব দর্জি দিয়েও পোশাক বানিয়ে দিবে ক্যাটালগ অনুযায়ী 

বাংলা ইনসাইডার/আরকে