ঢাকা, শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

ঈদে কোন পোশাকে কোন গয়না

ফ্যাশন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১ জুন ২০১৮ সোমবার, ০৩:২৭ পিএম
ঈদে কোন পোশাকে কোন গয়না

ঈদের পোশাকের সঙ্গে সঙ্গে অন্যান্য অনুসঙ্গ যেমন জুতো, গয়না, ব্যাগ কেনাকাটাও প্রায় শেষ। পোশাকের ধরন বুঝে নারীরা বেছে নেয় বিভিন্ন ঢঙের, নকশার গয়না। তাই ঈদের এই কয়দিন বাকি থাকতেই আপনার পোশাকটির সঙ্গে মিলিয়ে কিনে মিলিয়ে গয়নাকে গুছিয়ে ফেলুন।

১. বড় দুলের ফ্যাশনটা বরাবরের মতো এবারেও থাকছে। আর বড় বা ভারি ডিজাইনের মালাও চলছে। তবে খেয়াল রাখবেন বড় মালা আর বড় ভারি দুল একসঙ্গে পরলে বেশি চোখে পড়তে পারে। তাই দুল হালকা হলে মালা নকশাদার পরতে পারেন। আবার মালা যদি একদমই সাধারণ হয় তাহলে দুলটা রাখুন জমকালো।

২. হাতে বালা, ব্রেসলেট, চুড়ি সব একসঙ্গে পরতে পারেন। তবে দুই হাতের চেয়ে এক হাত ভর্তি করে অন্য হাতে মোটা একটি বালা পরতে পারেন। শাড়ি পরলে বেশি চুড়ির দিকে বেশি প্রাধান্য দিন। আর সালোয়ার কামিজ পরলে মোটা একটি বা দুটি পাথর বা কাঠের চুড়ি পরতে পারেন। আর ফতুয়া বা টপসের সঙ্গে ব্রেসলেট আর ঘড়ি ভালো মানায়।

৩. গরমে চুল বেধে রাখাই ভালো। বড় চুলে দিনের বেলায় খোঁপা করলে কাঁটা পরতে পারেন। সে সেক্ষেত্রে কাঠ, পিতল ও তামার কাঠির মাথায় ছোট্ট আদিবাসী ঢঙের পালক, পুঁতিকিংবা পাথরের নকশা ভালো দেখাবে।

৪. পাথর বসানো ছোট বা মাঝারি নাকফুল, আংটি সবসময়ই চলে। আজকাল আংটিতে তামা ও পিতলের হালকা নকশার আংটি চলে ভালো। হাত ও পায়ের একটি আঙুলেএকাধিক আংটি পরা বর্তমান ফ্যাশন। শাড়ি পরলে ভারি চুড়ির সঙ্গে মিলিয়ে ভারি আংটি পরুন দুই হাতের দুই-তিন আঙুলে। আর সাধারণ সালোয়ার কামিজ বা ফতুয়ার সঙ্গে যেকোনো এক আঙুলে হালকা ডিজাইনের আংটি পরতে পারেন।

৫. পায়ের নূপুর তো নারীদের পায়ের সৌন্দর্যকে আরও বাড়িয়ে দেয়। এখন এক পায়ে নূপুর বা পায়েল বেশি পরে মেয়েরা। টপস, ফতুয়া, সালোয়ার কামিজের জন্য এক পায়ে নূপুর পরা যায়। তবে শাড়ির সঙ্গে হালকা নকশার রূপার নূপুর হতে পারে আদর্শ।

বাংলা ইনসাইডার/এসএইচ/জেডএ