ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

সেরা পাঁচ স্পোর্টস ব্র্যান্ড

ফ্যাশন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ মঙ্গলবার, ০৩:২১ পিএম
সেরা পাঁচ স্পোর্টস ব্র্যান্ড

ক্লাসিক ফ্যাশন রীতি হচ্ছে, ফ্যাশন সচেতনদের মধ্যে যুগ যুগ টিকে থাকা। সেই তালিকায় সবচেয়ে জনপ্রিয় স্পোর্টস ফ্যাশন। তবে স্পোর্টসের মধ্যে ঘুরেফিরে আসে ট্রেন্ডি ফ্যাশনও। প্রিয় স্পোর্টস টিমের জার্সি বা তারকার পায়ের জুতা সবই হয়ে ওঠে জনপ্রিয় স্টাইল। প্রত্যেক বছরেই পরিবর্তন আসে বিখ্যাত খেলোয়াড়দের গেটআপে। আর নতুন নতুন স্টাইল ভক্তদের সামনে তুলে ধরার দায়িত্ব যেন বড় বড় স্পোর্টস ব্র্যান্ডের। সেই সুবাদে বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয়তার কমতি নেই এইসব ব্র্যান্ডগুলোরও। এক নজরে দেখে নেওয়া যাক স্পোর্টস ফ্যাশনের সেরা পাঁচ ব্র্যান্ড।

নাইকিঃ


১৯৬৪ সালে ব্র্যান্ডটি প্রথমে ‘ব্লু রিবন স্পোর্টস’ নামে যাত্রা শুরু করে। এরপর ব্র্যান্ডটির প্রতিষ্ঠাতা বিল বাওয়ারম্যান এবং ফিল নাইট ১৯৭১ সালে সেই নাম পরিবর্তন করে নতুন নাম রাখেন নাইকি। নাইকি তাদের অসাধারণ লোগো আর জনপ্রিয় স্লোগান ‘জাস্ট ডু ইট’ নিয়ে সেরাদের সেরা হয়ে এগিয়ে যাচ্ছে যুগ যুগ ধরে। সারা বিশ্বের বড় বড় ফুটবল ক্লাব এবং ক্রিকেট টিমের বড় অংশ দখল করে আছে নাইকি। সেই তালিকায় নাম রয়েছে ইন্ডিয়া ক্রিকেট টিম, বার্সেলোনা ফুটবল ক্লাবের মত জায়েন্টদের। ওয়েবসাইটঃ www.nikeinc.com

অ্যাডিডাসঃ


অ্যাডিডাস ১৯২৪ সালে ‘জেব্রুডার ড্যাজলার স্কুফ্যব্রিক’ নামে প্রথম যাত্রা শুরু করে। পরে ১৯৪৮ সালে নাম পরিবর্তন করে অ্যাডিডাস রাখা হয়। যুগ যুগ ধরে তারকা খেলোয়াড়দের সফলতার সঙ্গী এই ব্র্যান্ড। অ্যাডিডাস প্রতিষ্ঠাতা অ্যাডলফ ড্যাজলার ছিলেন জার্মান নাগরিক। বিশ্বের প্রথম সারির ফুটবল ক্লাব রিয়েল মাদ্রিদ এবং বায়ার্ন মিউনিখের মত জায়গায় নিজের প্রভাব অ্যাডিডাস।  ক্রিকেটে রয়েছে সাউথ আফ্রিকা আর টিম ইংল্যান্ড। ওয়েবসাইটঃ www.adidas-group.com

রিবোকঃ


স্পোর্টস জগতের এক বৃদ্ধ ব্র্যান্ডের নাম রিবোক। ১৮৯৫ সালে সর্বপ্রথম ‘ফস্টার এন্ড সন্স’ নামে যাত্রা শুরু করে বিশ্ব বিখ্যাত এই ব্র্যান্ডটি। ব্র্যান্ডের প্রতিষ্ঠাতা জে.ডব্লিউ ফস্টারের দুই নাতি জো ফস্টার এবং জেফ ফস্টার ১৯৫৮ সেই নাম পরিবর্তন করে নতুন নাম রাখেন রিবোক। ক্রিকেট জার্সিতে রিবোককে খুব বেশি দেখা না গেলেও ক্রিকেটারদের পায়ের জুতা অধিকাংশ সময়ই থাকে এই ব্র্যান্ডের। বড় বড় রাগবি টিমে দেখা যায় রিবোকের জার্সি। প্রভাব রয়েছে বক্সিং আর অ্যাথলেটিক্সেও। সম্প্রতি যুগে ভারতে বেশ ব্র্যান্ডিং দেখা যায় রিবোকের। ওয়েবসাইটঃ www.reebok.com

পুমাঃ


১৯২৪ সালে অ্যাডলফ ড্যাজলার এবং রুডলফ ড্যাজলার দুই ভাই ‘জেব্রুডার ড্যাজলার স্কুফ্যব্রিক’ নামের কোম্পানি চালু করেন। ১৯৪৮ সালে আডিডাসের প্রতিষ্ঠাতা বড় ভাই অ্যাডলফ ড্যাজলারের সঙ্গে ব্যবসা বিভক্ত করে রুডলফ ড্যাজলার প্রতিষ্ঠিত করেন পুমা। পুমার দখলেও রয়েছে স্পোর্টস জগতের বড় কেন্দ্রগুলো। এই সময়ের সেরা ফুটবল ক্লাব বরুসিয়া ডর্টমুন্ড তার বড় প্রমাণ। পুমার জার্সি গায়ে দেখা যায় গতিবিদ ওসাইন বোল্টকে। পুমা ফ্যাশনে বিশ্বাসী জনপ্রিয় সঙ্গিত শিল্পী রবিন রিয়ানাও। ওয়েবসাইটঃ www.puma.com

ফিলাঃ


আডিডাস, নাইকি থেকে অনেক পরে এসেও তাদের মধ্যে নিজেদের জায়গা করে নিয়েছে ফিলা। ১৯১১ সালে ইতালিতে প্রথম যাত্রা শুরু করে ফিলা। স্পোর্টস সামগ্রী, ক্লোদিং আর ফ্যাশনেবল এক্সেসরিজে বিখ্যাত এই ব্র্যান্ডটির চেয়ারম্যান এবং সিইও জেফ গেইটস (ইয়ন সোঁ)। স্পোর্টস কালেকশনের পাশাপাশি ফিলা বিখ্যাত তাদের ক্ল্যাসিক টি-শার্টের জন্য। বড় বড় টেনিস তারকা ও অ্যাথলেটদের মধ্যে ব্যাপক জনপ্রিয়তা দেখা যায় এই ব্র্যন্ডের। ওয়েবসাইটঃ www.fila.com

স্পোর্টস ফ্যাশন নিয়ে বলতে গেলে এই পাঁচ জায়েন্টের পরেই নাম আসে আরও কিছু জনপ্রিয় ব্র্যান্ডের। তাদের মধ্যে অন্যতম নিউ ব্যালেন্স, কে সুইচ,অ্যাসিস, হাই-টেক, আমব্রো, স্লেঞ্জার ইত্যাদি।

বাংলা ইনসাইডার/এএসি/জেডএ