ঢাকা, রোববার, ১৩ জুন ২০২১, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

আ. লীগ – বিএনপির ৫ দফা সমঝোতা?

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫ মার্চ ২০১৮ সোমবার, ১০:০০ পিএম
আ. লীগ – বিএনপির ৫ দফা সমঝোতা?

সরকারের সঙ্গে বিএনপির পাঁচ দফা সমঝোতা চূড়ান্ত প্রায়। আটকে আছে শুধু জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আসন নিয়ে। বিএনপি চায় ১০০ আসনের গ্যারান্টি, অন্যদিকে আওয়ামী লীগ বলছে, কোনো পাতানো নির্বাচন নয়, অবাধ, নিরপেক্ষ নির্বাচনে যে দল যা আসন জিতবে সেটাই মেনে নিতে হবে। ৭ মার্চের পর দুপক্ষের আবার বৈঠক হবে। তবে দুই দলেরই কোনো শীর্ষ নেতা আলোচনায় নেই। আলোচনা চলছে দুই দলের প্রধানের ঘনিষ্ঠদের মধ্যে। জানা গেছে, সংশ্লিষ্ট দলের প্রধানদের সম্মতির ভিত্তিতেই, সমঝোতা চূড়ান্ত প্রায়। বেগম জিয়া গ্রেপ্তার হবার পর থেকেই, প্রধানমন্ত্রীর দুই উপদেষ্টা এবং বেগম জিয়ার দুজন ঘনিষ্ঠ আত্মীয়ের মধ্যে আলাপ আলোচনা শুরু হয়েছে। প্রথমে আলোচনা ছিল খালেদা জিয়ার মুক্তি প্রসঙ্গেই। কিন্তু পরবর্তীতে এই আলোচনা ‘সামগ্রিক রাজনৈতিক ইস্যু‘ তে গড়িয়েছে। বেগম জিয়ার পক্ষে আলোচনাকারীরা আলোচনার বিষয়বস্তু নিয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান এবং মেজর ( অব. ) হাফিজ উদ্দিনের সঙ্গে নিয়মিত বৈঠক করছেন। বৈঠকের বিষয় বিএনপি মহাসচিব সমমনা অন্যান্য নেতাদের সঙ্গেও শেয়ার করেছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, দুপক্ষের আলোচনায় ৫ দফা সমঝোতা প্রস্তাব চূড়ান্ত হয়েছে। এগুলো হলো:

১. জিয়া অরফানেজ মামলায় বেগম জিয়া হাইকোর্ট থেকে জামিন পাবেন । হাইকোর্টের জামিনের পর তাঁকে অন্য কোনো মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হবে না । জামিন পেয়ে তিনি বেরুবেন এবং চিকিৎসার কারণে অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য লন্ডনে যাবেন।

২. বিএনপির নেতৃত্বে থাকলেও বেগম জিয়া বা তারেক জিয়া আগামী সংসদ নির্বাচনে অংশ নেবেন না।

৩. বিএনপি জিয়া পরিবার ছাড়া একাদশ জাতীয় নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে। দলের নেতৃত্ব দেবেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। নির্বাচন হবে অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ।

৪. নির্বাচনের আগে আটক বিএনপির নেতা কর্মীদের ছেড়ে দেওয়া হবে। দলের সিনিয়র নেতাদের বিরুদ্ধে চলমান মামলাগুলো আপাতত: বন্ধ থাকবে। নতুন কোনো মামলা বা হয়রানি করা হবে না।

৫. নির্বাচনের পর বেগম জিয়া দেশে ফিরবেন। তাঁর ক্ষেত্রে যথাযথ আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হলেও পর্যাপ্ত সম্মান ও মর্যাদা দেওয়া হবে।

তবে, এই পাঁচ দফা সমঝোতা প্রস্তাবের তৃতীয় ধারায়, বিএনপি অন্তত ১০০ আসনের গ্যারান্টি চায়। সরকার পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সরকার কোনো সজানো নির্বাচনের ছকে যেতে চায় না। এক্ষেত্রে বিএনপির প্রস্তাব হলো, বগুড়া, জয়পুরহাট, সাতক্ষীরা, রাজশাহীসহ বিএনপির জনপ্রিয়তা বেশি এমন আসনগুলোতে যেন আওয়ামী লীগ দুর্বল প্রার্থী দেয় এবং প্রচারণায় শেখ হাসিনা অংশ না নেন। একটি সূত্র জানিয়েছে, এই ১০০ টি আসনের ব্যাপারেই কাজ করছে বিএনপি। তবে, এই সমঝোতা প্রস্তাবে তারেক জিয়ার সম্মতি নেই বলে জানা গেছে।



Read In English: http://bit.ly/2oRHYST


বাংলা ইনসাইডার/জেডএ