ঢাকা, বুধবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৮, ২ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

শেখ হাসিনা কি খালেদাকে মাইনাস চান?

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬ এপ্রিল ২০১৮ শুক্রবার, ১০:০০ পিএম
শেখ হাসিনা কি খালেদাকে মাইনাস চান?

এতিম খানার টাকা আত্মসাতের মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন দণ্ডিত হয়েছেন। কিন্তু আদালতের রায়ের ‘রাজনৈতিক আবরণ’ দেওয়ার প্রানান্ত চেষ্টা করছে। বিএনপি এবং সুশীল সমাজের একাংশ বলছে, বেগম জিয়াকে রাজনীতি থেকে দূরে সরিয়ে রাখতেই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কোন রাখ ঢাক ছাড়াই বলছে, এটা সরকারের মাইনাস ফর্মূলা। বেগম জিয়া দুই মাস কারান্তরীন। এই দুমাসে তার রাজনৈতিক জীবনে অনিশ্চয়তার কালো মেঘ জমা হয়েছে। বেগম জিয়া আদৌ আর রাজনীতির মাঠে থাকতে পারবেন কিনা, সে প্রশ্ন উঠেছে। প্রশ্ন উঠেছে, কে তাকে মাইনাস করতে চায়?

আলোচনার টেবিলে, বিদগ্ধ জনের টকশোতে এবং ঘরোয়া আড্ডায় অনেকেই বলেন, প্রধানমন্ত্রীই তার মুখ্য প্রতিদ্বন্দ্বীকে রাজনীতি থেকে সরিয়ে দিতে চান। বেগম জিয়া যেন আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে না পারেন সেজন্যই শেখ হাসিনার এই আয়োজন। এই কথাগুলো শুনতে খুবই চটকদার লাগে। কিন্তু যুক্তির আলোয় বিশ্লেষণ করলে, এসব কথা আসলে যুক্তিহীন।

কারণ একাধিক: প্রথমত; শেখ হাসিনা এই মুহূর্তে বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা। জনপ্রিয়তায় তাঁর ধারে কাছে কেউ নেই। বেগম জিয়ার সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর দ্বৈরথ দীর্ঘ পুরনো। ১৯৮৩ সাল থেকেই। এরশাদ বিরোধী আন্দোলন শেখ হাসিনাই গড়ে তুলেছিলেন। কিন্তু তার ফসল নিয়ে গেছেন খালেদা জিয়া। রাজনীতির প্রায় অর্ধেকটা সময় শেখ হাসিনাকে বিরুদ্ধ স্রোতে সাঁতার কাটতে হয়েছে। তথা কথিত মূলধারার মিডিয়া শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে যতটা সরব ছিল, ততোটাই খালেদায় মুগ্ধ ছিল। বেগম জিয়ার মন্দ কিছুই দেখত না এদেশের প্রখ্যাত সুশীল এবং গণ মাধ্যম ব্যক্তিরা। এরকম একটা প্রতিকুল পরিস্থিতি থেকে শুধু মাত্র সততা, নিষ্ঠা এবং জনগণের ভালবাসায় শেখ হাসিনা আজ অনন্য উচ্চতায়। একাদশ জাতীয় নির্বাচন তাই তিনি খালেদাকে নিয়েই করতে চান। দেখাতে চান জনগণের ভালবাসায় কিনা হয়। কাজেই শেখ হাসিনা কেন এমন মধুর প্রতিশোধ গ্রহনের সুযোগ হারাবেন?

দ্বিতীয়ত শেখ হাসিনার রাজনীতি বিশ্লেষন করলে দেখা যায় তিনি চ্যালেঞ্জ নিতে পছন্দ করেন। সাফল্যের জন্য তিনি কখনো শর্টকাট পদ্বতি ব্যবহার করেননি। বরং সত্য ও নিষ্ঠার কঠিন পথই বেছে নিয়েছেন। খালেদাকে পুনরায় পরাস্ত করেই শেখ হাসিনা তৃতীয়বার প্রধানমন্ত্রী হতে চান, তাকে মাইনাস করে নয়।

তৃতীয়ত, শেখ হাসিনা খুব ভালো করেই জানেন, বিএনপি হলো এখন মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী শক্তির প্রধান দল। বেগম জিয়াই হলেন, যুদ্ধাপরাধী এবং স্বাধীনতা বিরোধীদের প্রধান নেতা। তাই জনগনের রায়ে তাকে পরাজিত না করলে , এই শক্তির মৃত্যু হবে না। বরং তারা আরো শক্তিশালী হবে। তাই, বেগম জিয়াকে নির্বাচন লড়াই থেকে দূরে রাখতে শেখ হাসিনা কোন কৌশল নেবেন না।

চতুর্থত; শেখ হাসিনা নিজেও মাইনাস ফর্মুলার শিকার হয়েছিলেন। তিনি জানেন, জনগণ ছাড়া কেউ কাউকে রাজনীতি থেকে মাইনাস করতে পারেনা। সেকারণে শেখ হাসিনা কখনোই ‘মাইনাস ফর্মূলা’য় বিশ্বাস করেন না।

বেগম জিয়া নির্বাচন করতে পারবেন কিনা তা সম্পূর্ণ আদালতের এখতিয়ারাধীন বিষয়। তবে শেষ পর্যন্ত বেগম জিয়া যদি নির্বাচন করার যোগ্য থাকেন এবং ২০১৪র মতো পাগলামী না করেন তাহলে শেখ হাসিনাই সম্ভবত সবচেয়ে খুশি হবেন। কারণ আগামী নির্বাচনে যুদ্ধাপরাধী, স্বাধীনতা বিরোধী শক্তিকে যদি পরাজিত করা যায়, তাহলে বাংলাদেশের শাপমোচন হবে। রাজনীতি হবে পবিত্র। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসীরাই কেবল রাজনীতি করবে। এমন চ্যালেঞ্জ শেখ হাসিনা নেবেন না?




Read In English: https://bit.ly/2JlPhM9


বাংলা ইনসাইডার/এমআরএইচ