ঢাকা, রোববার, ২১ অক্টোবর ২০১৮, ৬ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

জনারণ্যে এক টুকরো আকাশ

রেজাউল করিম রাজা
প্রকাশিত: ১০ আগস্ট ২০১৮ শুক্রবার, ১১:০৬ এএম
জনারণ্যে এক টুকরো আকাশ

‘সারাটা দিন মানুষ দেখি
এবার একটু আকাশ দেখতে চাই’

অঞ্জন দত্তের গাওয়া এই গানটি রাজধানীতে বসবাস করা মানুষের জন্য চরম এক বাস্তবতার উদাহরণ। চারিদিকে শুধুই উঁচু উঁচু দালান কোঠা আর মানুষে ভরপুর। নাগরিক জীবনে ব্যস্ততার মাঝে শেষ কবে আমরা আকাশ দেখেছি, তা হয়তো কেউ বলতে পারবে না। খোলামেলা পরিবেশে আকাশ দেখতে দেখতে প্রিয়জনের সঙ্গে আড্ডা দেবার জায়গার বড় বেশি অভাব আমাদের ঢাকায়। সেই ভাবনা থেকেই ছাদের উপরে তৈরি করা হয়েছে ব্যতিক্রমধর্মী একটি রেস্টুরেন্ট ‘তাজ কিচেন রুফটপ রেস্টুরেন্ট’।  

ঢাকার মধ্যে অন্যতম একটি ব্যস্ততম স্থান তাজমহল রোড। তাজমহল রোডে লক্ষ্য করলে দেখা যায়, চারিদিকে শুধুই গাড়ী, রিকশা, মানুষ আর মানুষ। তবে তাজমহল রোডের এতসব ঝামেলা আর বিরক্তিকর এই জনারণ্যেও আছে একটুকরো আকাশ দেখার সুযোগ।

তাজমহল রোডের ২৫/৫ তাজ স্কয়ারের সামনে গেলেই লাজ ফার্মার দোকান দেখা যায়। লাজ ফার্মা ঔষধের দোকানটি এখানকার সবার কাছেই বেশ পরিচিত। লাজ ফার্মা দোকানের পাশেই একটি ছোট সুন্দর লিফট দেখতে পাবেন। লিফটের ৬ এ উঠলেই এক অজানা মনোমুগ্ধকর স্বপ্নের-মত পরিবেশে তাজ কিচেন রুফটপ রেস্টুরেন্ট অবস্থিত।

তাজ কিচেন রেস্টুরেন্টের চারিদিকে খোলামেলা সুন্দর পরিবেশ। পরিপাটি করে সাজানো রয়েছে চেয়ার-টেবিল। রোদ ও বৃষ্টির হাত থেকে রক্ষা পাবার জন্যে সি-বিচের মতকরে বড় বড় ছাতার লাগানো আছে এখানে। সব কিছুই যেন ছবির মত দেখতে। রাতে বেলা রেস্টুরেন্টে বিশেষ ধরণের আলোকসজ্জা এখানকার পরিবেশ আরও বেশি মোহনীয় করে তুলে। এখানে বসে দেখা যায় ঐ দূর আকাশের মন ভোলানো রূপের আভা। আরও দেখতে পাবেন এখানে বসেই ঢাকার শহরের উপরিভাগের সৌন্দর্য। এখানকার শান্ত-নিরিবিলি পরিবেশে এসে বসলেই যে কেউ ভুলে যাবে রাজধানী ঢাকার চিরাচরিত কোলাহল।



‘তাজ কিচেন রুফটপ রেস্টুরেন্ট’ এর সবচেয়ে ভালো দিক হলো এখানকার কিচেনটাও ছাদের উপরে একেবারে জনসম্মুখে খোলা। অন্যান্য রেস্টুরেন্টের মত লুকোচুরির কোন বিষয় নাই। খাবার-দাবার সবকিছুই প্রস্তুত হচ্ছে ক্রেতাদের সামনেই। এই রেস্টুরেন্টের খাবারে কোন ধরণের টেস্টিং সল্ট মেশানো হয় না। যা খাবেন সব কিছুই সতেজ। ভেজাল বা নকলের কোনো কারবার নেই এইখানে।

তাজ কিচেনে আপনি খেতে পারবেন চা, কফি, বিভিন্ন আইটেমের সালাদ, গ্রিল, তন্দুরি চিকেন, পাস্তা, বারবিকিউ, চিকেন পপকর্ন, বিভিন্ন ধরণের সুপ, পিজা, কাবাব, নান রুটি, পাশাপাশি ২/৩ আইটেমের ভিন্ন ভিন্ন দামে দুপুরের খাবার ব্যবস্থাও আছে এখানে। 

মাত্র এক সপ্তাহ আগে ছাদের উপর এই ব্যতিক্রমধর্মী রেস্টুরেন্টের উদ্বোধন করা হয়েছে। রেস্টুরেন্টের দায়িত্বে থাকা রাজ্জাক জানান, ইতিমধ্যে তাঁরা এই রেস্টুরেন্টে ক্রেতাদের ভালো সাড়া পাচ্ছে। দিনে দিনে ক্রেতার সংখ্যা বাড়ছে। ঈদের পর এই বিল্ডিংয়েরই ৫ম ও ষষ্ঠ তলাতেও আরও বড় পরিসরে তাজ কিচেনের কার্যক্রম শুরু করা হবে।

রাজধানী ঢাকায় যখন একের পর এক নামীদামী হোটেলগুলো ভেজাল খাবার এবং নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার বানানোর দায়ে করা হচ্ছে জরিমানা, সেই সময়ে এমন একটি উদ্যোগ সত্যিই প্রশংসার দাবীদার।

বাংলা ইনসাইডার/আরকে