ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

পেপসি, ফান্টা, কোকা-কোলা: নামগুলো কীভাবে এলো?

ফিচার ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৩ নভেম্বর ২০১৮ মঙ্গলবার, ০৩:১১ পিএম
পেপসি, ফান্টা, কোকা-কোলা: নামগুলো কীভাবে এলো?

পেপসি, ফান্টা বা কোকা-কোলার নাম এমন রাখা হল কেন? কখনো কি ভেবে দেখেছেন? শুধু তাই নয়, নাইকি, অ্যাডিডাস থেকে আমাজন এই নামগুলো এলো কোথা থেকে। জানেন কি? আসলে প্রতিটা ব্র্যান্ডের নামেরই একটা আলাদা গল্প আছে। জেনে নিন, জনপ্রিয় এই ব্র্যান্ডগুলির নামকরণের রহস্য। কি ভেবে সেই নামগুলি রাখা হয়েছিল চলুন এক নজরে দেখে নেওয়া যাক।

কোকা-কোলা


বিশ্বসেরা কার্বোনেটেড কোমল পানীয় হলো কোকা-কোলা। এই পানীয়ের মূল উপাদান কোকা পাতা এবং কোলা বেরি। এই দুই উপাদানের ওপর করেই ব্র্যান্ডের নামকরণ হয় কোকাকোলা।

পেপসি


পাকস্থলীতে উৎপন্ন উৎসেচক পেপসিন। খাদ্যের প্রোটিন কণাকে ভেঙে ছোট ছোট পেপটাইডে পরিণত করে এই উৎসেচক। পেপসিন থেকেই এই ‘পেপসি’ নামটি এসেছে। যদিও পেপসিতে বিন্দুমাত্র পেপসিন নেই।

ফ্যান্টা


জার্মান কোকাকোলা টিমের কর্তা সংস্থার কর্মীদেরই ব্র্যান্ডের নামকরণের দায়িত্ব দিয়ে দেন। এর জন্য নিজেদের কল্পনাশক্তিকে কাজে লাগাতে বলেন। ব্যস! নাম হয়ে যায় ফ্যান্টা। ফ্যান্টাসি থেকেই ফ্যান্টা শব্দের উদ্ভব।

নাইকি


প্রাচীন গ্রিসে জয়ের দেবতার নাম ছিল নাইকি। সেই হিসেবেই বিশ্ব বিখ্যাত ব্র্যান্ড নাইকি নামকরণ। নামকরণ যে স্বার্থক তা বোঝাই যায়। বিশ্বব্যাপী খেলাধুলার সামগ্রী প্রস্তুতের নির্ভরযোগ্য প্রতিষ্ঠান এই নাইকি।

অ্যাডিডাস

মালিক অ্যাডলফ ডাসলের নাম থেকেই অ্যাডিডাস শব্দটি এসেছে। অ্যাডলফ-এর ডাক নাম অ্যাডি। অ্যাডি এবং পদবী ডাসলরের থেকে ডাস— এই দুটো মিলিয়ে ব্র্যান্ডের নাম হয়ে যায় অ্যাডিডাস।

ক্যানন


বৌদ্ধিক বোধিসত্ত্বকে জাপানি ভাষায় বলা হত ক্যাওনন। প্রথমে ওই সংস্থার নাম রাখা হয়েছিল ক্যাওনন। উচ্চারণের সুবিধার জন্য পরে সেটাকে ছোট করে হয়ে যায় ক্যানন।

আমাজন


প্রতিষ্ঠানটির সিইও জেফ বেজোস চাইছিলেন সংস্থার নাম এমন কিছু রাখতে যা ইংরাজির প্রথম অক্ষর ‘এ’ দিয়ে শুরু। পরে বিশ্বের অন্যতম বড় নদী আমাজনের নামে তাঁর প্রতিষ্ঠানের নামও ‘আমাজন’ রাখেন তিনি। ব্যবসায় নিজের সংস্থার বিশালতা প্রমাণ করতেই এমন নাম রাখেন তিনি।

স্কাই


স্কাই পিয়ার টু পিয়ার— যার অর্থ একটা পয়েন্ট থেকে আর একটা পয়েন্টের যোগাযোগ। এই যোগাযোগ বাতাসের মাধ্যমে হয়, সেটি বোঝাতে পিয়ার টু পিয়ারের সামনে স্কাই শব্দটিও যোগ করা হয়েছিল। সেখান থেকেই সংস্থার নাম রাখা হয় স্কাইপার। পরে তা আরও ছোট হয়ে, নাম হয়ে যায় স্কাইপি।

বাংলা ইনসাইডার/জেডআই/জেডএ