ঢাকা, বুধবার, ১৬ জুন ২০২১, ২ আষাঢ় ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

সশস্ত্র বাহিনীকে বিতর্কিত করার চেষ্টা!

প্রণব সাহা
প্রকাশিত: ২৪ ডিসেম্বর ২০১৮ সোমবার, ১০:০০ পিএম
সশস্ত্র বাহিনীকে বিতর্কিত করার চেষ্টা!

৩০ ডিসেম্বরের ভোট গ্রহণের এক সপ্তাহ আগেই স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে মাঠে নেমেছে সশস্ত্র বাহিনী । এ ব্যাপারে স্বয়ং প্রধান নির্বাচন কমিশনার আশা প্রকাশ করেছেন যে সেনা মোতায়েনের পর ভোটার ও রাজনৈতিক দলের মধ্যে আস্থা ফিরে আসবে।যদিও আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক অভিযোগ করেছেন যে, বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট সশস্ত্র বাহিনীকে বিতর্কিত করার চেষ্টা করছে। এদিকে সেনাসদস্যদের নির্বাচনী দায়িত্ব পালন নিয়ে ভুয়া ওয়েবসাইট ও ফেসবুক পেইজ খুলে অপপ্রচারের জন্য তৎপর হয়েছে একটি স্বার্থন্বেষীমহল। বিষয়টি সশস্ত্র বাহিনীর নজরে এসেছে। সেজন্য এ ব্যাপারে সবাইকে সর্তক করেছে আইএসপিআর।

নির্বাচন সামনে রেখে সেনাবাহিনীর নামে ভুয়া ওয়েবসাইট, ফেইসবুক অ্যকাউন্টি ও ইউটিউব চ্যানেল খুলে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে বলে সতর্ক করেছে আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর-আইএসপিআর। সোমবার দুপুরে আইএসপিআরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সেনাবাহিনীর সুনাম ক্ষুণ্ন করার চেষ্টায় অনলাইনে মিথ্যা তথ্য প্রচার করা হচ্ছে। আগামী ৩০ ডিসেম্বর ভোটের দিন সামনে রেখে সারাদেশে সেনা মোতায়েনের প্রথম দিন এই বিবৃতি দিল আইএসপিআর। সেনাবাহিনী সম্পর্কে ভুয়া তথ্য সম্বলিত পোস্ট শেয়ার না করতেও সবাইকে অনুরোধ জানানো হয়েছে। সেনাবাহিনীর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট এবং সোশ্যাল মিডিয়া আইডি কোনগুলো- তা জানিয়ে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, এগুলো ছাড়া অন্য সকল ভুয়া ওয়েবসাইট, ফেইসবুক পেইজ ও ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশিত মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্যের ব্যাপারে জনসাধারণকে সতর্ক থাকতে হবে।

এদিকে গতকাল জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রধান নেতা ড. কামাল হোসেন সেনাবাহিনীকে শহীদদের উত্তরসূরী উল্লেখ করে মানুষের ভোট দেয়ার অধিকার রক্ষায় কাজ করতে বলেন তিনি।  জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও পেশাজীবীদের করণীয় বিষয়ে প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

অন্যদিকে ফেনীর দাগণভূঞাঁ আতাতুর্ক উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মহাজোট প্রার্থী অবসরপ্রাপ্ত লেফট্যানেন্ট জেনারেল মাসুদ উদ্দিন চৌধুরীর লাঙ্গল প্রতীকের সমর্থনে আয়োজিত জনসভায় আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক সেনাসদস্য মোতায়েনের ব্যাপারে বিএনপির মহাসচিব ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রধান নেতার বিবৃতির সমালোচনা করেছেন।  ওবায়দুল কাদের বলেন, একটি মহল সেনা বাহিনীকে নিয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত।  তাদের মনে রাখা উচিত সেনাবাহিনী কোনো দলের নয়, তারা নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করবে।

এদিকে রবিবার রাত থেকে সেনাসদস্যরা দেশের জেলা উপজেলায় অবস্থান নেয়ার পর দেশব্যাপি সংঘাতময় পরিস্থিতির কিছুটা উন্নয়ন হয়েছে। তবে সোমবারও কয়েকটি জেলায় নির্বাচনী সংঘর্ষ হয়েছে। লক্ষ্মীপুর-৩ আসনের আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে বিএনপি প্রার্থী শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানিসহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছে। সকালে সদর উপজেলার কুশাখালী ইউনিয়নের শান্তিরহাট বাজারে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।  দুপুরে শরীয়তপুরের গোসাইরহাটে বিএনপির মিছিলে আওয়ামী লীগের হামলার অভিযোগ উঠেছে।  এ ঘটনায় বিএনপির প্রার্থী নূর উদ্দিন অপুসহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছে।  জামালপুরের সরিষাবাড়িতে বিএনপি অফিসে হামলা-ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ করেছে দুর্বৃত্তরা। এসময় ২০টির বেশি দোকানপাট ও মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়।  চাঁদপুরের নতুনবাজারে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে।  এদিকে পাবনা-২ আসনের বিএনপি প্রার্থী একেএম সেলিম রেজা হাবিবের উপর হামলার  অভিযোগ উঠেছে। 

প্রশাসন জীবনের নিরাপত্তা না দিলে নির্বাচনি প্রচারণা থেকে সরে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও নোয়াখালী-৫ আসনের প্রার্থী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ। সোমবার দুপুরে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলনে তিনি অভিযোগ করেন,  নতুনবাজার এলাকায় তার গাড়িবহরে হামলা করেছে আওয়ামী লীগের কর্মীরা।

 

বাংলা ইনসাইডার