ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bagan Bangla Insider

ফ্রান্সের আয়রন লেডির জন্মদিন আজ!

ফিচার ডেস্ক
প্রকাশিত: ৩১ মে ২০১৯ শুক্রবার, ০৮:২৯ এএম
ফ্রান্সের আয়রন লেডির জন্মদিন আজ!

১৭৮৯–১৭৯৯পর্যন্ত সময়টিকে বলা হয় ফরাসী বিপ্লবের কাল। এই বিপ্লবের ১০০শত বছর হয় ১৮৮৯ সালে। এসময় ফ্রান্সে ফরাসী বিপ্লবের শতবর্ষ উপলক্ষে একটি আন্তর্জাতিক প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। আর এই প্রদর্শনীকে স্মরণীয় করে তুলতে গড়ে তোলা হয় একটি সুউচ্চ টাওয়ার যা দেখতে অনেকটা ধাতুর তৈরি খাঁচার মতো।

ত্রিশের দশক বা ১৯৩০ সাল পর্যন্ত বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু টাওয়ার আইফেল টাওয়ার। এটি বর্তমানে ফ্রান্সের জাতীয় প্রতীক। কিন্তু এই টাওয়ার নির্মাণের সময় ফ্রান্সের লোকজন খুবই বিরক্ত হয়েছিল। তাদের মনে হয়েছিল এই ধাতুর তৈরী খাঁচা ফ্রান্সের সৌন্দর্যবর্ধনে কেবারেই কাজে লাগবেনা বরং সৌন্দর্য কমাবে। বিভিন্ন মাধ্যমে জানা যায় ফ্রান্সের লোকজন এই টাওয়ার নির্মাণকালে আন্দোলনও করেন এই টাওয়ার অপসারণের জন্য। কিন্তু যা পৃথিবীতে এতো বিখ্যাত হয়ে উঠবে তা কোন আন্দোলনেই বন্ধ হয়ে যাওয়ার কথা নয়।

আইফেল টাওয়ার কমিটি ফ্রান্সের সরুকারেরই গঠিত একটি কমিটি। ফ্রান্সের সরকারী পরিকল্পনা অনুযায়ী ১৮৮৭ থেকে ১৮৮৯ সাল পর্যন্ত সময় নিয়ে তৈরি হয় আইফেল টাওয়ার। আইফেল টাওয়ারের স্থপতি ছিলেন- গুস্তাভ আইফেল যিনি এই টাওয়ারের উদ্বোধনীতে ভীষণ অবাক হয়ে যান, কেননা তিনি ভাবতেও পারেননি এতো জনপ্রিয় হবে তার এই শিল্প!

আইফেল টাওয়ারের উদ্বোধনী দিনটি ছিলো আজকের দিন ১৮৮৯ সালের ৩১মে তে উদ্বোধন করা হয় এই টাওয়ার। কিন্তু উদ্বোধনীর আগেই সারা বিশ্বে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে এই টাওয়ার। বিশ্ব অবাক বিস্ময়ে তাকিয়ে থাকে, এই আয়রন লেডির দিকে। ৩০০ মিটার লম্বা এই টাওয়ারটিতে ১৯৫৭ সালে একটি অ্যান্টেনা বসানোর পর এর উচ্চতা হয় ৩২৪ মিটার। এর ফরাসি ভাষায় এর নাম “তুর দিফেল”। এটি নির্মাণে খরচ হয়েছিল ৭,৩০০ টন ইস্পাত।  ১৯২১ সালে ফ্রান্সের প্রথম পাবলিক রেডিও সম্প্রচারও শুরু হয় এই আইফেল টাওয়ার ব্যবহার করেই।

প্রায় ২০,০০০ বাল্বে সজ্জিত এই আইফেল টাওয়ার বা তুর দিফেল একসময় ছিলো পৃথিবীর অষ্টমাশ্চর্যের একটি!

বাংলা ইনসাইডার