ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০২ জুলাই ২০২০, ১৮ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Bangla Insider

ভূত কি ভূতুড়ে হয়ে গেল

মোস্তাকিম ভুঞা
প্রকাশিত: ৩০ জুন ২০২০ মঙ্গলবার, ১২:০২ পিএম
ভূত কি ভূতুড়ে হয়ে গেল

ভূত কি ভূতুড়ে হয়ে গেলভূতের ধারণার সাথে আমরা কম বেশি সবাই পরিচিত। সেইসাথে আমাদের সবার ভূতের গল্পগুলোও এক। আবহমান কাল ধরে এই অঞ্চলে এই সমস্ত ভৌতিক গল্প প্রচলিত। এখানকার প্রায় প্রতিটা পুকুর থেকে কোন এক কালে থালা বাসন উঠত। আর কোন এক গরীব প্রজা লোভে পড়ে ভুলবশত একটা বাটি নিজের কাছে রেখে দেয়। ব্যস, সেই থেকে বন্ধ হয়ে গেল এসব থালা বাসন উঠা। সবচেয়ে বেশি গল্প আবার মাছ ধরা নিয়ে। কোন এক জেলে রাতের বেলা একের পর এক মাছ ধরে তার ঝোলায় ভর্তি করে। কিন্তু ফজরের সময় দেখে তার ঝোলা ফাঁকা। সবমাছ পেত্নী খেয়ে ফেলেছে। আযান পড়ে যাওয়ায় চলে গেছে, না হয় হয়তো জেলের ঘাড় মটকে দিতো। ছোটবেলা এসব গল্প শুনলে গা শিউরে উঠত। এমন অনেক দিন হয়েছে যে, ভয়ে গাঁয়ে কাঁটা দিতো। আর এই কারণে রাতে কখনো একা একা বাইরে বাথরুমে যাওয়ার জন্য বের হতে পারতাম না। চলুন জেনে নেই ভূতের ভূতুড়ে হয়ে যাওয়া সম্পর্কে।

কার্টুনে রুপকথা

আমাদের শৈশব কেটেছে রূপকথার গল্প শুনে। কিন্তু এখনকার শিশুরা তো আর রূপকথা পাচ্ছে না। রূপকথার পরিবর্তে তারা পেলো কার্টুন বা ভিডিও গেমস খেলার সুযোগ। সন্ধ্যা হলেই মাগরিবের পর হারিকেনের আলোয় রূপকথার গল্প শুনতাম। এই গল্পগুলো যেন আবেদন হারায় না, পুরনো হয় না। একই গল্প দাদির কাছে শুনলেও যে আনন্দ পেতাম। মা কিংবা বাবা বললেও সেই আনন্দের কোন রকম কমতি হতো না। আর সবচেয়ে মজার ছিল এই গল্পগুলোর উপস্থাপনা। এমনভাবে উপস্থাপন করা হতো, যাতে করে আমরা ভয় পাই। একা একা বাইরে চলে না যাই, কিন্তু কোন কোন সময় আমরাই মা বাবাদের ভয় পাইয়ে দিতাম। নানা ভয়ের কথা বলে।

ভূতের বিদ্যুতের ভয়

আমাদের ভূতুড়ে সংস্কৃতি আর ভৌতিক গল্পের সমাপ্তি ঘটেছে বিদ্যুতের আগমনের সাথে সাথে। সেইদিক থেকে বলতেই হয় যে ভূত বিদ্যুৎ ভয় পায়। বিদ্যুৎ ভয় পায় বলেই এখন আর ভূতেদের দেখা যায়। শোনা যায় না এই তেতুল গাছে ভূত আছে। ঐ বটগাছের নিচে ভরদুপুরে একা একা যেয় না। কিংবা শোনা যায় না ভৌতিক সব গল্প। বিদ্যুতের আগমনে বন্ধ হয়ে গেছে ভূতের গল্পের আসরও। এমন আসর যেন হারিকেন বা কুপি বাতির আলো ছাড়া করা যায়। কালো ঘুটঘুটে অন্ধকার যত বাড়ে, ততই যেন জমে উঠে ভূতের গল্পের আসর।

ভৌতিক সাহিত্যের বদলে সাইন্সফিকশন

আমাদের বাংলা সাহিত্যেও একটা সময় ভূতেদের ব্যাপক প্রভাব ছিল। প্রচুর জনপ্রিয় ছিল ভৌতিক সব সাহিত্য। কিন্তু সময়ের সাথে সাথে ভৌতিক সাহিত্য হারিয়ে যাচ্ছে। সাহিত্য থেকে ভূতেরা যেন নিজেদের গুটিয়ে নিচ্ছে। কিন্তু সময়ের প্রয়োজনেই সেখানে এসেছে সাইন্স ফিকশন। সাইন্স ফিকশন অনেক আগেই ছিল। কিন্তু বাংলা সাহিত্যে তা এক যুগ ধরে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। আর এভাবেই কালের গহ্বরে হারিয়ে যাচ্ছে আমাদের ভৌতিক সাহিত্য। তাই এমন কথা বলাি যায় যে, ভূতেরা কি সব ভূতুড়ে হয়ে গেল