ঢাকা, শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ৪ আষাঢ় ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

মোটরযানের মালিকানা পরিবর্তনে ক্রেতা-বিক্রেতার যা করণীয়

নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৮ মে ২০২১ শুক্রবার, ০৮:০৫ এএম
মোটরযানের মালিকানা পরিবর্তনে ক্রেতা-বিক্রেতার যা করণীয়

আমাদের দেশের মার্কেটে মোটরসাইকেলের চাহিদা বেড়েই চলছে। এক এক ধরনের মোটরসাইকেলের ফিচার, মাইলেজ, পাওয়ার এক এক রকম। কিন্তু অনেক মানুষের নতুন বাইক কেনার সামর্থ্য থাকে না। ফলে তারা পুরাতন মোটরসাইকেলের বা সেকেন্ডহ্যান্ড মোটরসাইকেল ক্রয় করে থাকেন। কিন্তু পুরাতন  বা সেকেন্ডহ্যান্ড মোটরসাইকেল ক্রয় করার পর মালিকানা পরিবর্তনের ক্ষেত্রে কিছু প্রক্রিয়া অনুসরণ করতে হয়। চলুন দেখে নেওয়া যাক মোটরযানের মালিকানা পরিবর্তনে করণীয় সম্পর্কে-

ক্রেতা হিসেবে করণীয় :

১. নির্ধারিত ফরম `টিও (Transfer of ownership)` তে ক্রেতার স্বাক্ষর এবং `টিটিও(Transfer of ownership by the transferor)` এর নির্ধারিত স্থানে ক্রেতার নমুনা স্বাক্ষর প্রদান করতে হবে। ফরম বিআরটিএ এর ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।

২. নির্ধারিত ফি জমা দিয়ে রশিদের মূল কপি বিআরটিএ দাখিল করতে হবে।

৩. প্রয়োজনীয় কাগজপত্র : ক্রেতার টিন (TIN) সার্টিফিকেট, জাতীয় পরিচয়পত্র এবং বর্তমান ঠিকানার স্বপক্ষে টেলিফোন বিল/বিদ্যুৎ বিল, মূল রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট (ব্লু-বুক) এর উভয় কপি প্রদান/ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট এবং হালনাগাদ ট্যাক্স-টোকেন, ফিটনেস, রুট পারমিট। সকল কাগজপত্র সত্যায়িত করে দিতে হবে।

৪. ছবিসহ ক্রয় সংক্রান্ত ২০০ টাকা অথবা সরকার নির্ধারিত নন-জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে হলফনামা দাখিল করতে হবে। ক্রেতা যদি কোনো প্রতিষ্ঠান হয় তাহলে হলফনামার পরিবর্তে অফিসিয়াল প্যাডে চিঠি প্রদান করতে হবে।

৫. নির্ধারিত নমুনা স্বাক্ষর ফরমে ক্রেতার নমুনা স্বাক্ষর এবং ৩ কপি স্ট্যাম্প সাইজের রঙ্গিন ছবিসহ ফরমের অন্যান্য সকল তথ্য ইংরেজি বড় অক্ষরে পূরণ করে দাখিল করতে হবে।

৬. মোটরযানটি পরিদর্শনের জন্য সংশ্লিষ্ট বিআরটিএ অফিসে উপস্থাপন করতে হবে।

৭. বিক্রেতার স্বাক্ষর গরমিল হলে তাকে বিআরটিএ অফিসে হাজির করতে হবে।

বিক্রেতা হিসেবে করণীয় :

১. `টিটিও` ফরম এবং বিক্রয় রশিদে বিক্রেতার স্বাক্ষর প্রদান (সাক্ষীর স্বাক্ষর ও রাজস্ব স্ট্যাম্পসহ) করতে হবে।

২. ছবিসহ বিক্রয় সংক্রান্ত ২০০ টাকা অথবা সরকার নির্ধারিত নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে হলফনামা দাখিল করতে হবে।

৩. বিক্রেতা যদি কোম্পানি হয় কোম্পানির লেটার হেড প্যাডে ইন্টিমেশন, বোর্ড রেজুলেশন ও অথরাইজেশনপত্র প্রদান করতে হবে।

৪. মোটরযানটি ব্যাংক অথবা অন্য কোন প্রতিষ্ঠানের নিকট দায়বদ্ধ থাকলে দায়বদ্ধকারী প্রতিষ্ঠানের ঋণ পরিশোধ সংক্রান্ত ছাড়পত্র, লোন অ্যাডজাস্টমেন্ট স্টেটমেন্ট, ব্যাংক কর্তৃক সহকারী পরিচালক(ইঞ্জিঃ) বিআরটিএ বরাবর অনুরোধপত্র এবং ২০০ টাকা অথবা সরকার নির্ধারিত নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে হলফনামা প্রদান করতে হবে।

৫. বিক্রেতার জাতীয় পরিচয়পত্রের সত্যায়িত ফটোকপি দাখিল করতে হবে।

৬. বিক্রেতার স্বাক্ষর গরমিল হলে সরেজমিনে অফিসে উপস্থিত হতে হবে।

ওয়ারিশ সূত্রে মালিকানা বদলির ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র :

১. পূরণকৃত ও স্বাক্ষরিত `টিও` ও `টিটিও` ফরম।

২. কোর্ট/স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান প্রদত্ত ওয়ারিশ সংক্রান্ত সনদ।

৩. প্রয়োজনীয় ফি জমাদানের রশিদ।

৪. একাধিক ওয়ারিশ থাকলে প্রথম ওয়ারিশের TIN সার্টিফিকেটের সত্যায়িত কপি (ভাড়ায় চালিত নয় এমন কার, জীপ, মাইক্রোবাস-এর ক্ষেত্রে)।

৫. মূল রেজিস্ট্রেশন সনদ (উভয় কপি)/ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট(প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)।

৬. ছবিসহ নন-জুডিসিয়াল স্ট্যাম্পে ওয়ারিশসূত্রে মালিকানা প্রাপ্তি সংক্রান্ত ওয়ারিশগণের হলফনামা, তবে একাধিক ওয়ারিশ থাকলে এবং একজনের নামে মালিকানা প্রদান করা হলে সেক্ষেত্রে অন্যান্য ওয়ারিশগণ কর্তৃক সকলের ছবিসহ নন-জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে আর একটি হলফনামা দিতে হবে।

৭. নমুনা স্বাক্ষর ফর্মে নমুনা স্বাক্ষর এবং ইংরেজিতে নাম, পিতার/স্বামীর নাম, পূর্ণ ঠিকানা ও ৩ কপি স্ট্যাম্প সাইজের রঙ্গিন ছবি সহ ফরমের অন্যান্য তথ্য পূরণ করতে হবে।