ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ৪ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

জেনে নিন বাচ্চাদের প্রিয় টেডি বিয়ারের ইতিহাস! 

আহনাফ তাহমিদ 
প্রকাশিত: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ শুক্রবার, ০৮:০৬ এএম
জেনে নিন বাচ্চাদের প্রিয় টেডি বিয়ারের ইতিহাস! 

কারো জন্মদিনে কিংবা বিশেষ কোন অনুষ্ঠানে টেডি বিয়ার উপহার হিসেবে পছন্দ করবে না, এমন মানুষ বোধহয় কমই আছে। এছাড়াও প্রেয়সীর হাতে একখানা নরম তুলতুলে ভালুকছানা তুলে দিতে পারলে তার খুশি দেখে কে? নানা রঙের, নানা ঢঙের টেডি বিয়ার মন কেড়ে নেয় আমাদের সকলেরই। তবে এই টেডি বিয়ার কেমন করে এল, তার কিন্তু একটা ইতিহাস আছে।

টেডি বিয়ার তৈরি করা হয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট থিওডোর রুজভেল্টের সম্মানে। শুরুটা হয়েছিল মিসিসিপির তীরে, যেখানে রুজভেল্ট ভালুক শিকারের একটি ট্রিপে গিয়েছিলেন। সালটা ছিল ১৯০২, নভেম্বরের ১৪ তারিখ। মিসিসিপির গভর্ণর অ্যান্ড্রু এইচ লঙ্গিনো তাকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। হতাশার ব্যাপার, থিওডোর কিংবা তার সাথে থাকা অন্যান্য শিকারী গ্রুপের কেউই একটা ভালুককে চোখের সামনে দেখতে পেল না।
এমন সময় রুজভেল্টের সহকারী হল্ট কলিয়ের (পরবর্তীতে যিনি একজন কনফেডারেট ক্যাভালরিম্যানে পদাসীন হয়েছিলেন) একটি কালো ভালুককে উইলো গাছের সাথে আটক করে ফেলেন। রুজভেল্টকে ডেকে তারা বলেন এটাকে গুলি করে মেরে ফেলতে। রুজভেল্ট খুবই আহত হন এবং তিনি বলেন এ ধরণের বর্বরতা তিনি করতে পারবেন না। তাছাড়া এটি শিকারের আনন্দকেও নষ্ট করে দেবে। সেদিন ঐ স্থান থেকে তারা ফিরে গিয়েছিলেন।

এই খবরটি দাবানলের মত গোটা দেশে ছড়িয়ে যায়। একটি পত্রিকার আর্টিকেল তাকে নিয়ে ফলাও করে খবর ছাপে, “একজন প্রেসিডেন্ট যিনি ভালুক হত্যা করেন নি”। খবরটা অনেকের কাছে অপ্রত্যাশিত ও বিস্ময়ের ছিল কারণ, রুজভেল্ট শিকারী হিসেবে খুবই চৌকস ছিলেন।

ক্লিফোর্ড বেরিম্যান নামক একজন রাজনৈতিক নানা বিষয় নিয়ে কার্টুন আঁকা ব্যক্তিত্ব ঠিক করেন যে, প্রেসিডেন্টের এই নাকচ করাকে তিনি সম্মান প্রদর্শন করবেন। নভেম্বরের ১৬ তারিখে দ্য ওয়াশিংটন পোস্টে বেরিম্যানের কার্টুনটি ছাপা হয়। মরিস মিচটম নামক এক ক্যান্ডি দোকানের মালিক কার্টুনটি দেখে এক ফন্দি আঁটেন। তিনি ও তার স্ত্রী নানা ধরণের স্টাফ করা পশুপাখি বিক্রি করতেন। তিনি ঠিক করলেন একটি স্টাফ করা খেলনা ভালুক পণ্য হিসেবে বিক্রয় করবেন এবং প্রেসিডেন্টের উদ্দেশ্যে এটি উৎসর্গ করবেন। খেলনা ভালুকটির নাম রাখা হয় “ টেডি’স বিয়ার ” (থিওডোর রুজভেল্টের মিডলনেম ছিল টেডি)

রুজভেল্টের সম্মতি পাবার পর মিচটম এবার খেলনা ভালুক বিক্রি করা শুরু করেন। এটি এতই বিখ্যাত হয়ে ওঠে যে পরবর্তীতে তিনি দ্য আইডিয়াল টয় কোম্পানী নামক একটি প্রতিষ্ঠান চালু করেন। সেই থেকে রুজভেল্টের বদান্যতার কারণে সমগ্র বিশ্বে মিচটম পৌঁছে দিলেন টেডি বিয়ারের জনপ্রিয়তা।

বিষয়: টেডি-বিয়ার