ঢাকা, রোববার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ২ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

সাধারণ ফ্লুতেও উদ্বেগ?

মেহনাজ পারভিন
প্রকাশিত: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ রবিবার, ০৮:২০ এএম
সাধারণ ফ্লুতেও উদ্বেগ?

বছর জুড়ে বার দুয়েক জ্বর জ্বর ভাব, সর্দি-কাশি হলে কেইবা গায়ে মাখতো আগে। শরতের এই শেষ ভাগে অনেকেই সাধারণ ঠাণ্ডাজনিত রোগবালাইয়ে ভুগতে থাকেন। কিন্তু করোনা যেন গোটা দৃশ্যপটই পাল্টে দিয়েছে। জ্বরের ভয়াবহতাকে নিয়ে গেছে চরমে। তার উপরে এ বছর ডেঙ্গু এই আতঙ্ককে বাড়িয়ে তুলেছে বহুগুণ। অবস্থা এমন যে করোনার চেয়ে যেন ডেঙ্গু আতঙ্কই বেশি।

বিশেষ করে শিশুদের মারাত্মকভাবে আক্রান্ত করায় ডেঙ্গু ভীতিটা চরম পর্যায়ে। চিকিৎসকের মতে জ্বর, ঠান্ডা, কাশি সাধারণত ঋতুভিত্তিক রোগ। আবার মহামারি রোগ করোনার প্রধান উপসর্গও এগুলো। এজন্য জানতে হবে কোনটি করোনা, কোনটি ডেঙ্গু আর কোনটি সাধারণ ভাইরাসজনিত জ্বর। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উপর নির্ভর করে করোনা কতটা প্রভাব ফেলবে শরীরে।

সারা বিশ্বে করোনায় সুস্থতার হার হিসাব করলেই বোঝা যায় ডায়াবেটিস, হার্ট-লাং-কিডনি-লিভারের ক্রনিক অসুখ না থাকলে খুব একটা চেপে বসতে পারে না ভাইরাসটি। তাই প্রাথমিকভাবে জ্বরে সাধারণ ওষুধই প্রেসক্রাইব করে থাকেন চিকিৎসকরা। কিংবা অ্যান্টিহিস্টামিন–জাতীয় ওষুধ সেবন করার কথা বলেন। ৫-৭ দিন পরেই বোঝা যায় জ্বরের কারণ। কারও যদি এরই মধ্যে শ্বাসকষ্ট শুরু হয়ে যায়, তবে ধরেই নেওয়া যায় তিনি করোনায় আক্রান্ত। তখন সঙ্গে সঙ্গে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

এ বছর যেহেতু ডেঙ্গু মারাত্মক প্রভাব ফেলেছে তাই তীব্র জ্বর, শরীরে প্রচণ্ড ব্যথা, র‌্যাশ, বমি বমি ভাব বা বমি, ক্লান্তিবোধ, রুচি কমে যাওয়া ইত্যাদি লক্ষণ দেখা দিলেই চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী ডেঙ্গুর পরীক্ষা করাতে হবে। যে কারণেই জ্বর হোক, আতঙ্কিত না হয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

বিষয়: ফ্লু