ঢাকা, রোববার, ২০ মে ২০১৮ , ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

নিরাপদ থাকুন ফেসবুকে

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ মঙ্গলবার, ০৩:৫৮ পিএম
নিরাপদ থাকুন ফেসবুকে

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার আজকাল বেশ ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠছে। নিজের কোনো তথ্যই এখন আর নিরাপদ না। হ্যাকার বা ভাইরাসের কবলে পড়ে অ্যাকাউন্টের তথ্য বা ছবি সব বেহাত হয়ে যাচ্ছে। এ অবস্থা চলতে থাকলে এই মাধ্যম ব্যবহার করা অসম্ভব হয়ে পড়বে। তাই এখন থেকে প্রয়োজন সতর্কতা। সম্প্রতি জায়ান্ট সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের তথ্য হ্যাকিং নিয়ে বেশ শোরগোল চলছে। কীভাবে নিরাপদ রাখব আমাদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম অ্যাকাউন্ট:

ব্যাকআপ রাখুনঃ ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হলেও যেন আপনার ছবি, ভিডিও, নোট ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ন তথ্য যেন হারিয়ে না যায় সে জন্য ফেইসবুকে রয়েছে ব্যাকআপ রাখার ব্যাবস্থা। ফেসবুকের ব্যাকআপ রাখার জন্য প্রথমে ওপরে ডান পাশের Account থেকে Account Settings-এ ক্লিক করুন। এখন সবার নিচে Download a copy-এ ক্লিক করুন। নতুন পেজ এলে Start My Archive-এ ক্লিক করতে হবে।

সিকিউরিটিঃ
সিকিউরিটি কোয়েশ্চেন ডান পাশের Account থেকে Account Settings-এ ক্লিক করুন। এখন বাঁ পাশ থেকে security-তে ক্লিক করুন। দেখবেন শুরুতেই আছে সিকিউরিটি কোয়েশ্চেন । এখানে একটি প্রশ্ন সিলেক্ট করে তার উত্তর সেভ করে রাখুন, পরবর্তীতে পাসওয়ার্ড ভুলে গেলে বা কেউ পরিবর্তন করে দিলে এর মাধ্যমে লগইন করতে পারবেন।

মোবাইল নম্বর যোগ করা:
ফেসবুকে মোবাইল ফোন নম্বর যোগ করলে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট যদি কখনো চুরি হয়ে যায়,তাহলে মোবাইল নম্বর দিয়ে তা উদ্ধার করতে পারবেন। আবার আপনি ইচ্ছা করলে ফেসবুকের খবর বা নোটিফিকেশন সগুলোও মোবাইল ফোনে পেতে পারেন বিনামূল্যে।

অ্যাকাউন্টের নিরাপত্তা:
এমন পদ্ধতি মেনে চলতে হবে যাতে করে এখন থেকে প্রতিবার আপনার ডিভাইস ব্যতীত অন্য কারও ডিভাইস থেকে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে লগইন করতে চাইলে আপনার মোবাইলে একটি কোড নম্বর আসবে। এতে করে আপনার ফেসবুকের পাসওয়ার্ড সবাই জানলেও কেউ আপনার ফেসবুকে লগইন করতে পারবে না, যতক্ষণ পর্যন্ত না আপনার মোবাইলে আসা কোড নম্বরটি কোড বক্সে প্রবেশ করানো হবে। আপনার ই-মেইলে একটি মেইল যাবে, যেটাতে লেখা থাকবে কে, কখন, কী নাম দিয়ে, কোন আইপি ঠিকানা থেকে আপনার ফেসবুকে প্রবেশ করেছিল।

স্প্যাম এবং স্ক্যাম থেকে দূরে থাকুনঃ
প্রায়ই দেখবেন “see who have visited your profile”, “see who have deleted you”, “see how many people visited your profile” এছাড়াও আছে কিছু ভিডিও বা ছবি যাতে লেখা থাকে “the girl died after seeing this pic” ইত্যাদি, এগুলো তে ক্লিক করলে দেখবে আপনার প্রফাইলে এসব স্প্যাম মেসেজ যুক্ত হয়ে যাচ্ছে, আপনার স্ট্যাটাস হিসেবে এসব চলে আসছে। সুতরাং এগুলো ক্লিক করা থেকে বিরত থাকুন এবং আপনার অ্যাকাউন্ট কে নিরাপদ রাখুন।

এন্টিভাইরাস ব্যবহার
আপনার পিসির জন্য কিলগার অথবা রিমোট অ্যাকসেস ট্রোজান [RAT] খুবই বিপজ্জনক। এগুলোর হাত থেকে বাঁচার জন্য সঠিক অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার ব্যবহার করুন।

একাধিক অ্যাকাউন্ট নিষিদ্ধ
একই ব্যবহারকারীর একাধিক অ্যাকাউন্ট খোলা আগেও নিষিদ্ধ ছিল। তবে খুব একটা কড়াকড়ি ছিল না। এখন এ বিষয়ে ফেসবুক খুব কঠোর নিয়ম মেনে চলছে। ফলে একাধিক অ্যাকাউন্ট খোলার ব্যাপারে সতর্ক থাকুন।

ছবি শেয়ারের ক্ষেত্রে সতর্কতা:
ফেসবুক সামাজিক যোগাযোগের সবচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম। তাই ভালো অনেক কিছুর পাশাপাশি এর মাধ্যমে অনৈতিকভাবে ছবি ব্যবহারের সংখ্যাও বেশি। ছেড়ে দেওয়া (আপলোড) কোনো ছবির সেটিংসে ‘পাবলিক’ দেওয়া থাকলে তা সবাই দেখতে পারেন। ব্যক্তিগত ছবিগুলোর সেটিংস পাবলিক না করাটা ভালো।

ফেসবুকে আজেবাজে ছবিতে ট্যাগ করে অনেক ব্যবহারকারীকে বিব্রত করা হয়। এ জন্য প্রাইভেসি সেটিংস থেকে ট্যাগ প্রিভিউ সক্রিয় করে নিতে পারেন। তাতে কেউ কোনো কিছু ট্যাগ করলেই তা প্রকাশ্য হবে না। আপনার অনুমতি চাইবে। না দিলে ওই ছবি আপনার ফেসবুকে দেখা যাবে না।

আরও কিছু সতর্কতা

* একদম অপরিচিত কারও সঙ্গে ব্যক্তিগত তথ্য শেয়ার করবেন না।
* পারিবারিক ঠিকানা ফেসবুকে না দেওয়াই ভালো কিংবা মোবাইল নম্বর উল্লেখ করা ঠিক নয় ফেসবুকে।
* ফেসবুক মোবাইল অ্যাপ ব্যবহারে সচেতন থাকুন। স্মার্টফোন বেহাত হলে আপনার অ্যাকাউন্ট বেদখল (হ্যাক) হতে পারে।
* কখনোই অপরিচিতদের থেকে পাঠানো ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট ভালোমতো না দেখেই গ্রহণ করবেন না।
* ছোট কিংবা সহজ পাসওয়ার্ড ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। পাসওয়ার্ড দেওয়ার সময় নম্বর, অক্ষর, চিহ্ন ব্যবহার করতে পারেন।
* আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টটি কতটা নিরাপদ সেটি জানতে লগ-ইন অবস্থায় এ ঠিকানায় http://on.fb.me/1QC6vUL যান।
* অ্যাকাউন্টে ঢোকার বেলায় ইউজার নেম এবং পাসওয়ার্ডের পাশাপাশি টু-স্টেপ ভেরিফিকেশন সুবিধাটি চালু করুন। এ সুবিধাটি ফেসবুক সেটিংস থেকে সক্রিয় করা যায়।
* আপনার সক্রিয় ই-মেইল ব্যবহার করুন। এতে করে অ্যাকাউন্ট হ্যাকড হলে তা পুনরুদ্ধারের কাজটি সহজ হবে।


বাংলা ইনসাইডার/এসএইচ/জেডএ

বিষয়: ফেসবুক