ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ জানুয়ারি ২০২০, ১০ মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

চাঁদ নিয়ে মজার ৭ তথ্য  

বিজ্ঞান প্রযুক্তি প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৬ জুলাই ২০১৯ মঙ্গলবার, ০৯:১৫ পিএম
চাঁদ নিয়ে মজার ৭ তথ্য   

 

চাঁদে যাওয়া হয়েছে আজ থেকে পঞ্চাশ বছর আগে। আজ্যবধি তা নিয়ে কম মজার তথ্য প্রকাশ পায়নি। পৃথিবীর একমাত্র উপগ্রহ সম্পর্কে এমনই কিছু তথ্য জেনে নেওয়া যাক:

উত্তাপ হারাচ্ছে চাঁদ:

নাসার গবেষণা বলছে, ক্রমান্বয়ে উত্তাপ হারাচ্ছে চাঁদ। এ কারণে চাঁদের উপরিভাগ আঙ্গুর থেকে কিশমিশের রূপ ধারণ করছে। শুধু তাই নয়, চাঁদের ভেতরের অংশও সঙ্কুচিত হচ্ছে ক্রমান্বয়ে। কয়েক লাখ বছর ধরে এটি দাঁড়িয়েছে ৫০ মিটারে।

আমেরিকার পতাকা উড়ার গল্প:  

অনেকে বলেন, চাঁদে পা রাখার ঘটনা ছিল ভুয়া। চাঁদের পরে কোনো একটি মঞ্চে অভিনয় করেছিলেন নেইল আর্মস্ট্রং ও বাজ অলড্রিন। কারণ, অলড্রিনের রাখা আমেরিকার পতাকা উড়তেছিল, অথচ মহাশূন্যে তা উড়ার কথা না। তবে, পতাকা ওড়ার কারণ হিসাবে নাসা বলছে, বাজ অলড্রিন পতাকার দণ্ড নাড়ানোয় অমন দেখা গিয়েছিল।

চরম গরম অথবা হঠাৎ ঠাণ্ডা:

তাপমাত্রার উঠানামায় আমাদের নাভিশ্বাস উঠে, তা ঠিক। কিন্তু এই উঠানামা চাঁদের তুলনায় কিছু্ই না। কারণ, চাঁদের গায়ে যখন সূর্যের তাপ পড়ে, তখন এর তাপমাত্রা ১২৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত উঠে। আবার সূর্যের আলো সরলেই মাইনাস ১৫৩ ডিগ্রি পর্যন্ত নেমে যায় তাপমাত্রা।

চাঁদের বুড়ি:

চাঁদের বয়স যত, চাঁদে মানুষ বা বুড়ি আছে এমন রূপকতার বয়সও তত। অনেকেই পূর্ণ চন্দ্রের মধ্যে একজন মানুষের মুখ দেখতে পান। অনেকে বলেন, পাপ করার কারণে ওই ব্যক্তিকে গ্রাস করেছে চাঁদ। চাঁদের বুড়ির গল্পতো কতো শুনতে হয় আমাদের! আর যুদ্ধাপরাধী সাঈদীকে চাঁদে দেখা গেছে, বাংলাদেশে এমন গুজব রটার বয়সওতো বেশিদিন হয়নি।

চাঁদ কি দূরে সরে যায়?

প্রতিবছর চার সেন্টিমিটার করে পৃথিবী থেকে দূরে সরে যায় চাঁদ। দূরে সরে গেলে আমাদের কাছে সেটাকে ছোটো দেখায়। এভাবে ৫৫০ মিলিয়ন বছর পরে এটাকে সবচেয়ে ছোটো দেখা যাবে। এরপর আর কোনো পূর্ণ সূর্যগ্রহণ হবে না।

চাঁদকে পরোয়া করে না নেকড়ে:

সিনেমার দৃশ্যের কথা মনে পড়ে? যেখানে চাঁদের দিকে নেকড়ের ভীতিকর গর্জনে শেষ হয় হরর সিনেমা। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে পূর্ণ জোৎস্না হলেও নেকড়ের কিছু যায় আসে না। এমনকি তারা সেদিকে তাকিয়ে গর্জনও দেয় না। তবে, রাতে নেকডের গর্জনের কারণে আমাদের পূর্বপুরুষরা দুটোর সংযোগ ঘটিয়েছেন হয়ত।

চন্দ্রারোহী সবাই আমেরিকান ও পুরুষ:

এখন পর্যন্ত ১২ জন মানুষ চাঁদে হেঁটেছেন। নানান পেশা থেকে আসলেও কিছু ক্ষেত্রে মিল রয়েছে তাঁদের। মিলগুলো হচ্ছে-তারা সবাই আমেরিকার, সবাই সাদা এবং সবাই পুরুষ। আমেরিকানের বাইরে কিংবা নারীদের চাঁদে যাওয়ার জন্য আরো অনেক সময় অপেক্ষা করতে হবে বোধহয়।


বাংলা ইনসাইডার/এমআরএইচ