ঢাকা, রোববার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ১০ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

অনলাইনে কোরবানির পশু কেনায় যে বিষয়ে সতর্ক থাকবেন  

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৮ জুলাই ২০২০ মঙ্গলবার, ০৭:৫৫ এএম
অনলাইনে কোরবানির পশু কেনায় যে বিষয়ে সতর্ক থাকবেন  

পবিত্র ঈদুল আযহার বাকি আর মাত্র কয়েক দিন। কিন্তু প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের কারণে গরুর হাটে যেতে অনেকেই অনীহার মধ্যে রয়েছেন। সেইসাথে আর্থিক কারণে অনেকে কোরবানি দিতে পারছেন না। রাজধানী ঢাকা এবং ঢাকার বাইরে সবখানেই এমন চিত্র। করোনা আর বন্যা সবকিছু মিলিয়েই এবার জমজমাট হচ্ছে অনলাইন পশুর হাট। তাছাড়া, ঢাকা, চট্টগ্রাম, নারায়ণগঞ্জ এবং গাজীপুরে যাতে পশুর হাট বসানো না হয়, সেজন্য পরামর্শ দিয়েছে জাতীয় পরামর্শক কমিটি। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের সমন্বয়ে গঠিত এই কমিটি বয়স্ক, শিশু ও অসুস্থদেরও হাটে না যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। ফলে অনলাইন পশুর হাট-ই হয়ে উঠছে একমাত্র ভরসা। কিন্তু অনলাইনে পশু কেনায় বেশ কিছু বিষয়ে সতর্ক থাকতে বলছেন বিশেষজ্ঞরা।    

বিশ্বস্ত সাইট

ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক জানান, শুধু ফেসবুক ভিত্তিক বা অপরিচিত ওয়েবসাইট থেকে গরু কেনার আগে ভালো করে যাচাই-বাছাই করে নেয়া উচিত। বিশেষ করে বিশ্বাসযোগ্য ওয়েবসাইট থেকে পশু ক্রয় করা উচিৎ। কোন ওয়েবসাইট থেকে কেনার আগে বিশ্বাসযোগ্যতা যাচাই করে দেখা উচিত। প্রয়োজন মনে করলে আগের ক্রেতাদের রিভিউ দেখা যেতে পারে। সেইসাথে ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য কিনা সেটাও দেখা উচিত। এতে করে প্রতারিত হওয়ার সুযোগ কম থাকে।

অর্থ লেনদেন

পেমেন্ট করার আগে শর্তগুলো ভালো করে দেখে নেওয়া উচিত। সেইসাথে বুঝে নেয়া উচিত কোরবানির জন্য কেনা পশু সুস্থ কিনা। এমন পরামর্শ দেন অনলাইন প্লাট ফর্মের সাথে যুক্ত থাকা বেশ কয়েকজন। সেইসাথে তাঁরা জানান, কি শর্তে কীভাবে গরু সরবরাহ করা হবে, সেগুলো বিশেষভাবে বুঝে নেয়া উচিত। প্রয়োজনে বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে এসব বিষয়ে কথা বলে পরিষ্কার করে নিতে হবে। ই-ক্যাবভুক্ত কোন সদস্য প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠলে সেক্ষেত্রে তাদের অ্যাসোসিয়েশন ব্যবস্থা নিতে পারবে। কিন্তু ই-ক্যাবভুক্ত নয়, এরকম প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠলে তাদের করার কিছু থাকবে না।

ডেলিভারি চার্জ

অর্ডার চূড়ান্ত করার আগে ভিডিও কলে গরুটি দেখে নেওয়া উচিৎ। সেইসাথে কথা বলে নিতে হবে ডেলিভারি চার্জ সম্পর্কে। বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠান গরু সরবরাহের ক্ষেত্রে আলাদা ডেলিভারি চার্জ ধরে থাকে। তাই আগে থেকে সে বিষয়ে কথা বলে নেয়া ভালো। সেইসাথে ডেলিভারিতে কয়েক সপ্তাহের ব্যবধান থাকায় গরুর ওজনের কম বেশি হতে পারে। এসব বিষয়ে বিক্রেতার সঙ্গে কথা বলে পরিষ্কার করে নিতে হবে।

ভালোভাবে যাচাই

যাচাইয়ের জন্য বিক্রেতার কাছ থেকে গরুর ছবি বেশি করে চেয়ে নিতে হবে। আরও ভালোভাবে দেখার জন্য সরাসরি গরু যাচাই করা যেতে পারে। কোন বিক্রেতা যদি গরু স্পষ্ট করে দেখাতে না চান। তাহলে সেরকম বিক্রেতাদের কাছ থেকে গরু না কেনাই ভালো। সেইসাথে পশুর অতিরিক্ত কম দাম যেমন সন্দেহজনক। তেমনি অতিরিক্ত দাম দিয়ে ঠকা থেকেও নিরাপদ থাকতে হবে। শতভাগ নিশ্চিত হওয়ার পরেই দাম পরিশোধ করা উচিৎ। তাই এই সকল বিষয়ে ভাল করে যাচাই করে নিন।