ইনসাইড বাংলাদেশ

যুক্তরাষ্ট্রে যেখানে দরকার, তদবির করা হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশ: ০২:৪৪ পিএম, ১৪ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আইনে লবিস্ট ফার্ম নিয়োগ দেওয়া একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া এবং যেখানে প্রয়োজন, সেখানে বাংলাদেশ তাদের ব্যবহার করবে।

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) সকালে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ল’ অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্স আয়োজিত এক আন্তর্জাতিক কনফারেন্স শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

এসময় তিনি বলেন, আমাদের দেশে এটিকে আমরা তদবির বলি। যেখানে দরকার হবে, সেখানে আমরা তদবির চালাব।

মন্ত্রী বলেন, র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) ওপর একটা নিষেধাজ্ঞা এসেছে, কিন্তু স্টেট ডিপার্টমেন্ট বলছে এবং স্বীকার করেছে যে র‌্যাব সন্ত্রাস অনেকটা কমিয়েছে। তারা সেগুলো চিন্তাভাবনা করবে। তাদের যে লক্ষ্য, সন্ত্রাস কমানোসহ অন্যান্য কাজ, র‌্যাব সেগুলোই করছে এবং সফলভাবে করছে। এ কারণে র‌্যাব বাংলাদেশের জনগণের আস্থা অর্জন করেছে। আমার মনে হয়, সবাই এটা বুঝবে এবং তখন অবস্থার পরিবর্তন হবে।

তিনি বলেন, আমরা আইনের দেশ। এ দেশের সৃষ্টিই হয়েছিল গণতান্ত্রিকভাবে। আমেরিকাও গণতান্ত্রিক দেশ। গণতন্ত্রে অনেক ধাক্কা আসে। সব গণতন্ত্রতেই অপূর্ণতা আছে। আমরা দিনে দিনে পরিপক্কতা অর্জন করেছি। আমরা আমাদের গণতান্ত্রিক নিয়মে চলছি। এর মধ্যে যদি কোনো ধাক্কা আসে, আমরা সেটা গুরুত্বের সঙ্গে দেখব।

এর আগে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ল' অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্স (বিলিয়া) অডিটোরিয়ামে একটি আন্তর্জাতিক কনফারেন্সে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিলিয়ার পরিচালক অধ্যাপক মিজানুর রহমান।  

অনুষ্ঠানে এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের ডিন অধ্যাপক ড. রহমত উল্লাহ, বিলিয়ার চেয়ারম্যান ও সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র অ্যাডভোকেট ব্যরিস্টার এম আমির-উল ইসলাম, বিলিয়ার আজীবন সদস্য মুহাম্মদ জামিরসহ অনেকে। এসময় দেশের বাইরে থেকেও বিভিন্ন অতিথি অনলাইনে যুক্ত হন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী   যুক্তরাষ্ট্র  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

দুর্নীতির সূচকে ১৮০ দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১৪৭

প্রকাশ: ১১:৫৫ এএম, ২৫ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

দুর্নীতির সূচকে ১৮০ দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১৪৭তম বলে জানিয়েছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। টিআইবি জানায়, দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান নিচের দিক থেকে দ্বিতীয়। 

বিশ্বের ১৮০টি দেশ ও অঞ্চলের ২০২১ সালের পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে তৈরি করা এই সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ঊর্ধ্বক্রম অনুযায়ী (ভালো থেকে খারাপ) ১৪৭ নম্বরে।

আর উল্টোভাবে, অধঃক্রম (খারাপ থেকে ভালো) অনুযায়ী ‘সবচেয়ে দুর্নীতিগ্রস্ত’ দেশের তালিকায় এবার বাংলাদেশ রয়েছে ১৩তম স্থানে। 

টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বাংলাদেশের এই অবস্থানকে খুবই হতাশাজনক মন্তব্য করে তিনি বলেন, বাংলাদেশের ক্ষেত্রে ৮টি জরিপের ফলাফল থেকে সূচকটি নির্ধারণ করা হয়েছে। বাংলাদেশের ২০১৮ সালের নভেম্বর থেকে ২০২১ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময়কে হিসেব করা হয়েছে। 

টিআইবি   ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

সরকারের নিষেধাজ্ঞা চেয়ে এবার ইউরোপীয় ইউনিয়নে আবেদন

প্রকাশ: ১১:১৬ এএম, ২৫ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

একজন ব্যক্তি বাংলাদেশ সরকারের উপর নিষেধাজ্ঞা চেয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের কাছে আবেদন করেছেন। তবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন এই আবেদন গ্রহণ করেছেন বা এটিকে গুরুত্ব সহকারে গ্রহণ করেছেন এমন কোন তথ্য পাওয়া যায়নি। 

বাংলাদেশে মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটেছে এবং র্যাবের হাতে মানবাধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে, গুম হচ্ছে সহ বিভিন্ন অভিযোগ তুলে ওই ব্যক্তি ইইউর কাছে বাংলাদেশর উপর নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আবেদন করেছেন। এই ধরনের আবেদনের কতটুকু যৌক্তিকতা আছে বা তার নেপথ্য কে আছে সে সম্পর্কে এখনো কিছু জানা যায় নি। 

ইইউ   মানবাধিকার   নিষেধাজ্ঞা  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

ধর্ষণ মামলায় নারায়ণগঞ্জ আদালতে মামুনুল হক

প্রকাশ: ১০:৪৯ এএম, ২৫ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থানায় দায়ের করা ধর্ষণ মামলায় তৃতীয় দফায় সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য নারায়ণগঞ্জ আদালতে আনা হয়েছে হেফাজতে ইসলামের বিলুপ্ত কমিটির যুগ্ম-মহাসচিব মামুনুল হককে।

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) সকাল ৯টায় কঠোর নিরাপত্তা বলয়ের মধ্য দিয়ে কাশিমপুর কারাগার থেকে তাকে আদালপাড়ায় আনা হয়।

দুপুর ১২টার দিকে নারায়ণগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক নাজমুল হক শ্যামলের আদালতে সাক্ষগ্রহণ শুরু হবে।

এই সাক্ষ্যগ্রহণকে কেন্দ্র করে আদালতপাড়াতে নেওয়া হয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা। আদালতের প্রবেশ ফটকে সবাইকে জিজ্ঞাসাবাদ ও চেক করে প্রবেশ করানো হচ্ছে।

এর আগে গত ১৩ ডিসেম্বর দ্বিতীয় দফায় মামুনুলের বিরুদ্ধে রয়েল রিসোর্টের সুপারভাইজার আব্দুল আজিজ, রিসিপশন অফিসার নাজমুল ইসলাম অনিক ও আনসার গার্ড রতন বড়াল সাক্ষ্য দিয়েছিলেন।

প্রসঙ্গত, ২০২১ সালের ৩ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে রয়েল রিসোর্টে এক নারীর সঙ্গে অবস্থান করছিলেন মামুনুল হক। ওই সময় স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা এসে মামুনুল হককে ঘেরাও করেন। পরে স্থানীয় হেফাজতের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা এসে রিসোর্টে ব্যাপক ভাঙচুর করেন এবং তাকে ছিনিয়ে নিয়ে যান। পরে ৩০ এপ্রিল সোনারগাঁ থানায় মামুনুল হকের বিরুদ্ধে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ মামলা করেন ওই নারী।  


মামুনুল হক   হেফাজতে ইসলাম  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

ইসি গঠন আইন নিয়ে দ্বিচারিতা করছে সুশীল সমাজ?

প্রকাশ: ১০:০০ এএম, ২৫ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন না থাকাকেই প্রধান দুর্বলতা হিসেবে এতদিন চিহ্নিত করে আসছিলো নাগরিক সমাজ বা সুশীল সমাজ। সভা-সমাবেশ, টিভি টক শো, সব জায়গায়ই আইন না থাকাতে নিরপেক্ষ ইসি গঠন সম্ভব হচ্ছে না বলে গলা ফাটাতেন সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা। ফলে ইসি গঠনের আগে আইন তৈরি করার নৈতিক সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। ইতোমধ্যে গত রোববার (২৩ জানুয়ারি) প্রধান নির্বাচন কমিশনার এবং নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ বিল, ২০২২ জাতীয় সংসদে উত্থাপন করেছেন আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক। কিন্তু আইন প্রণয়নের পরও সমালোচনা বন্ধ নেই সুশীল প্রতিনিধিদের। এতদিন তারা বলতেন আইন তৈরি করা মাত্র দুই মিনিটের ব্যাপার কিন্তু আইনটি সংসদে তোলার পর এখন সুশীল সমাজ বলছে আইনটি তড়িঘড়ি করে তৈরি করা হয়েছে। সুশীলদের এ ধরণের দ্বিচারি অবস্থানের কারণেই গণতন্ত্র সুসংহত হচ্ছে না বলে মনে করছেন সমাজ বিশ্লেষকেরা।

সন্ত্রাস-ধর্ষণ-মৌলবাদ-সাম্প্রদায়িকতা-গণতন্ত্র-নারী অধিকার ইত্যাদি বিষয়ে দেশের সুশীল সমাজকে প্রায়শই সরব হতে দেখা যায়। নিয়মিত বক্তৃতা-বিবৃতির পাশাপাশি অনেক সময় তারা রাজপথে মিছিল-সমাবেশের মাধ্যমেও জানান প্রতিবাদ। রাজনৈতিক দল এমনকি সরকারের ওপর চাপ তৈরি করতেও তাদের ভূমিকা আলোচনায় এসেছে নানা সময়ে। কিছুদিন আগে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য এখনই আইন প্রণয়নের তাগিদ দিয়ে বিবৃতি দেন দেশের ৫৩ বিশিষ্ট নাগরিক। বিবৃতিদাতাদের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, সংবিধান প্রণয়ন কমিটির সদস্য আইনজীবী আমীর-উল ইসলাম, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এম হাফিজউদ্দিন খান, আকবর আলি খান, রাশেদা কে চৌধুরী, সুপ্রিম কোর্টের সাবেক বিচারপতি আব্দুল মতিন, সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার, সাবেক নির্বাচন কমিশনার এম সাখাওয়াত হোসেনসহ বিভিন্ন পেশার শীর্ষস্থানীয় ব্যক্তি রয়েছেন। বিবৃতিতে তারা বলেন, বিগত দুই নির্বাচন কমিশনের ‘পক্ষপাতদুষ্ট’ আচরণের কারণে নির্বাচনী ব্যবস্থায় মানুষের আস্থার সংকট দেখা দিয়েছে। নির্বাচনী ব্যবস্থায় মানুষের আস্থা ফেরাতে নির্বাচন কমিশন এমনভাবে পুনর্গঠন করতে হবে, যেটা সবার কাছে গ্রহণযোগ্য হয়। এ জন্য সংবিধানের আলোকে ‘আইনের বিধানাবলি সাপেক্ষে’ পরবর্তী নির্বাচন কমিশন গঠনের আহ্বান জানান তারা। 

একাধিক রাজনৈতিক দলের চাওয়া ও নাগরিক সমাজের দাবির মুখে শেষমেশ ইসি গঠনের আগে আইন প্রণয়নের সিদ্ধান্ত নেয় সরকার এবং গত মঙ্গলবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে আইনের খসড়া চূড়ান্তভাবে অনুমোদন দেওয়া হয়৷ কিন্তু এখন নতুন খুঁত ধরতে সুশীল সমাজ ব্যতিব্যস্ত। সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা এখন বলছেন যে, নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন করার ক্ষেত্রে আরো সময় নিয়ে সব রাজনৈতিক দলের সঙ্গে আলোচনা করার প্রয়োজন ছিল৷ এই আইনের খসড়ায় কিছু অপূর্ণতা আছে। বর্তমান নির্বাচন কমিশন সদিচ্ছা থাকলে ভালো নির্বাচন করতে পারত৷ কিন্তু তাদের পারফর্মেন্স সন্তোষজনক নয়৷ সরকারের পক্ষে সুন্দর একটা আইন করার সুযোগ ছিল৷ কিন্তু তারা সেটা না করে তড়িঘড়ি করে আইনটি করতে যাচ্ছে৷ এতে তো সমস্যার সমাধান হবে না৷

অথচ সুশীল সমাজের এই প্রতিনিধিরাই দুই দিন আগে বলেছেন, সংবিধানে নির্বাচন কমিশন আইনের কথা বলা আছে। কিন্তু গত ৫০ বছরেও সেই আইন হয়নি। আইন হলে সেখানে কারা নির্বাচন কমিশনের সদস্য হতে পারবেন, কে প্রধান নির্বাচন কমিশনার হবেন  তাদের যোগ্যতা, সততা, গ্রহণযোগ্যতা এসব বিষয়ে স্পষ্ট আইন থাকবে। তাদের ব্যাপারে প্রকাশ্যে নাগরিকদের জানানো হবে। সে ব্যাপারে নাগরিকেরা কথা বলতে পারবেন। আবার তাদের ক্ষমতা এবং এখতিয়ার নিয়ে আইনে স্পষ্ট উল্লেখ থাকবে। কিন্তু দাবি-দাওয়া উল্টে এখন তারা সার্চ কমিটিকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চেষ্টা করছেন বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

রামুতে বাসচাপায় মাদরাসা শিক্ষকের মৃত্যু

প্রকাশ: ০৯:২৮ এএম, ২৫ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

কক্সবাজার জেলার রামুতে বাসচাপায় মো. হেলাল উদ্দিন (৩৫) নামে এক মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যু হয়েছে। নিহত হেলাল উদ্দিন চকরিয়া উপজেলার বরইতলী ইউনিয়নের আবুল বাশারের ছেলে। তিনি সদরের ঝিলংজা ইউনিয়নের খরুলিয়া মাস্টার পাড়া সুলতানিয়া নূরানী একাডেমীর প্রধান শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

গতকাল সোমবার (২৪ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার তেচ্ছিপুল স্টেশন এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, রামু থেকে রাতে মোটরসাইকেলে মাদরাসায় ফেরার পথে চাকমারকুল ইউনিয়নের তেচ্ছিপুল এলাকায় খাগড়াছড়িগামী একটি বাস হেলাল উদ্দিনকে চাপা দেয়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

রামু ক্রসিং হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুর রব বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মরদেহটি হাসপাতালের মর্গে রয়েছে। দুর্ঘটনা কবলিত বাসটি জব্দ করা হয়েছে এবং আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

মাদরাসা শিক্ষক   মৃত্যু  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন