ইনসাইড বাংলাদেশ

যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশ দূতাবাসের দায়িত্বে সাবেক ছাত্রদল নেতা

প্রকাশ: ০৭:০০ পিএম, ২৪ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশ দূতাবাসের দায়িত্বে সাবেক ছাত্রদল নেতা

এম শহীদুল ইসলাম, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত। একজন ক্যারিয়ার ডিপ্লোম্যাট হিসেবে তিনি পরিচিত। কিন্তু একটু গভীরে গেলেই বোঝা যায় যে, এই ক্যারিয়ার ডিপ্লোম্যাট আসলে আওয়ামীবিরোধী পরিবারের সন্তান। তিনি এবং তার পরিবারের অন্য সদস্যরা সরাসরিভাবে আওয়ামীবিরোধী রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। এম শহীদুল ইসলাম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের নেতা ছিলেন। ছাত্র হল সংসদে ছাত্রদল থেকে তিনি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাও করেছিলেন। তার ছোট ভাই কামরুল ইসলাম শিবিরের সক্রিয় ক্যাডার ছিলেন। প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র সংসদ নির্বাচনে ১৯৮৯ সালে তিনি এজিএস পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন। পরের বছর ১৯৯০ সালের ইকসু নির্বাচনে তিন জিএস পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তাঁর বড় ভাই জাহিদুল ইসলাম ব্যবসায়ী। তিনি আওয়ামী বিরোধী ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত। এম শহিদুল ইসলামের বাড়ি গোপালগঞ্জে হলেও তার পুরো পরিবার আওয়ামীবিরোধী হিসেবে পরিচিত। তার শ্বশুরবাড়ির অবস্থাও একই রকম।

তাঁর পারিবারিক সূত্রগুলো বলছে যে, শুধুমাত্র আওয়ামীবিরোধী নয় এরা এক অর্থে বাংলাদেশবিরোধী। এরকম একজন ব্যক্তি যখন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মতো গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় রাষ্ট্রদূতের দায়িত্ব পালন করছেন ঠিক সেই সময় মার্কিন প্রশাসনে বাংলাদেশবিরোধী তৎপরতা প্রবল আকার ধারণ করেছে। এটির সঙ্গে কোনো যোগসূত্র আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা দরকার। এর আগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন জিয়া উদ্দিন। তিনি যখন এই দায়িত্ব পালন করেন তখন যেভাবে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি মার্কিন প্রশাসনে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল, যেভাবে মার্কিন প্রশাসনের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান এবং কার্যক্রমকে ব্যাখ্যা করা হয়েছিল তার ধারেকাছেও তৎপরতা এখন নেই। বরং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস রুটিন কাজের মধ্যে দায়িত্ব পালন করছে।

বাংলাদেশকে গত গণতন্ত্র সম্মেলনে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের দূতাবাস তখন কি করেছে এই প্রশ্ন অনেকের মধ্যে। বাংলাদেশের সাত কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ট্রেজারি বিভাগ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। এই নিষেধাজ্ঞা জারির আগে-পরে ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মতৎপরতা নিয়ে নানা রকম প্রশ্ন এবং রহস্যের জন্ম দিয়েছে। এখন জো বাইডেন সরকার নতুন আইন করে দুর্নীতির বিরুদ্ধে নীতিমালা ঘোষণা করেছে। এই নীতিমালার আওতায় বাংলাদেশকে চাপের মধ্যে ফেলা হবে বলে কোনো কোনো মহল বলছে। এ ব্যাপারে ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ মিশন কতটা তৎপর তা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে।

অনেকে বলছেন যে, যে সর্ষ দিয়ে ভূত তাড়ানো হবে সেই সর্ষের মধ্যেই ভূত। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে জামায়াত এবং বিএনপি কোটি কোটি টাকা খরচ করছে বিভিন্ন লবিস্ট ফার্মের মাধ্যমে। তাদের মূল লক্ষ্য হলো, বাংলাদেশেবিরোধী তৎপরতাকে মার্কিন প্রশাসনের কানে তুলে দেওয়া, যেন মার্কিন প্রশাসন বাংলাদেশবিরোধী অবস্থান গ্রহণ করে। এক্ষেত্রে তারা যে অনেকখানি অনেকখানি সফল হয়েছে তা বলার অপেক্ষা রাখেনা। বিভিন্ন ক্ষেত্রে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এখন বাংলাদেশ সম্পর্কে নেতিবাচক অবস্থান অবস্থান সুস্পষ্ট হয়েছে। অথচ এর বিপরীতে বাংলাদেশের মার্কিন দূতাবাসের যে ভূমিকা পালন করার কথা ছিলো সেই ভূমিকা তারা আদৌ পালন করছে না বলে মনে করা হচ্ছে। আর এই পালন না করাটা অযোগ্যতা, অদক্ষতা নাকি উদ্দেশ্যপূর্ণ তা নিয়ে এখন আলোচনা হচ্ছে কূটনীতিকপাড়ায়। কারণ, যিনি পারিবারিক ঐতিহ্যভাবেই বিএনপি এবং জামায়াতপন্থী, তিনি যখন এরকম দায়িত্বে থাকেন তখন তিনি কতটা মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পক্ষে কতটা তৎপর থাকবেন তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন উঠেছে। তাই সাম্প্রতিক সময়ে যখন বাংলাদেশবিরোধী অবস্থান মার্কিন প্রশাসনের মধ্যে সুস্পষ্ট দৃশ্যমান হচ্ছে, তখন যদি ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ মিশন তৎপর না হয় তাহলে ভবিষ্যতে দুই দেশের সম্পর্কের ক্ষেত্রে আরও নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে বলে বিভিন্ন মহল আশঙ্কা প্রকাশ করছে।

যুক্তরাষ্ট্র  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

টানা বৃষ্টির কারণে চালের দাম কিছুটা বাড়তি: খাদ্যমন্ত্রী

প্রকাশ: ০৩:৪২ পিএম, ১৮ মে, ২০২২


Thumbnail টানা বৃষ্টির কারণে চালের দাম কিছুটা বাড়তি: খাদ্যমন্ত্রী

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, মৌসুমের শুরু ও শেষের সন্ধিক্ষণ এবং টানা বৃষ্টির কারণে চালের দাম কিছুটা বাড়তি।

বুধবার (১৮ মে) সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, বছরের শেষ ও শুরুর সন্ধিক্ষণ। অটো রাইস মিল মালিকরা ধান কিনছেন। তারা উৎপাদনে যায়নি। আর হাসকিং মিলওয়ালারা বৃষ্টির জন্য যে ধান দুদিনে শুকাতো সেটা ৫-৭ দিন লাগছে। তবে চিন্তার কিছু নেই। খুব শিগগির দাম সহনীয় হবে। পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে রেখেছি।

খাদ্যমন্ত্রী আরও বলেন, চালের যোগান কম নেই। কোনোভাবেই দেশে খাদ্য ঘাটতির সম্ভাবনা নেই।


বৃষ্টি   চালের দাম   বাড়তি   খাদ্যমন্ত্রী  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

বন্যার্তদের কথা সরকার সবসময় ভাবে: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশ: ০৩:৪০ পিএম, ১৮ মে, ২০২২


Thumbnail বন্যার্তদের কথা সরকার সবসময় ভাবে: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান বলেছেন দেশের বিভিন্ন জেলায় বৃষ্টি আকস্মিক বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের নগদ অর্থ এবং ত্রাণ সহায়তা দেওয়া হবে

বুধবার (১৮ মে) সকালে ঢাকার সাভার উপজেলার দোসাইদ এলাকার অধন্য কুমার স্কুল অ্যান্ড কলেজের চারতলা ভবন উদ্বোধন শেষে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমানবলেন, দেশের বিভিন্ন জেলায় আকস্মিক বন্যা দেখা দিয়েছে। এ বন্যায় ওইসব জেলার মানুষ দুর্ভোগে পড়েছেন। তাদের কথা সরকার সবসময় ভাবে। বন্যার্তদের পাশে দেশের সরকার রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, সরকারের উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত করতে একটি মহল উঠে পড়ে লেগেছে। কিন্তু তাদের স্বপ্ন কোনোদিন পূরণ হবে না। দেশের মানুষ সরকারের পাশে রয়েছেন।

পরে প্রতিমন্ত্রী আশুলিয়ার পাড়াগ্রাম ও মনোহরদি গ্রামের বর্তমান সরকারের উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন- আশুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন সরকার, দোসাইদ অধন্য কুমার স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ নাসির উদ্দিন, আশুলিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন মন্ডল।

ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী   ডা. এনামুর রহমান  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

হজে যেতে না পারলে জমাকৃত টাকা তুলে নেওয়ার নির্দেশ

প্রকাশ: ০৩:০০ পিএম, ১৮ মে, ২০২২


Thumbnail হজে যেতে না পারলে জমাকৃত টাকা তুলে নেওয়ার নির্দেশ

সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে যেতে নিবন্ধন করে রাখা কেউ হজে যেতে না পারলে জমাকৃত টাকা তুলে নেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়।  

বুধবার (১৮ মে) মন্ত্রণালয়ের এক নির্দেশনা সংশ্লিষ্টদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, যেসকল হজযাত্রী ইতোমধ্যে মৃত্যুবরণ করেছেন/অসুস্থ আছেন অথবা ৬৫ বছর ঊর্ধ্ব বয়সসীমার কারণে এ বছর হজে যেতে পারছেন না, তার পরিবর্তে প্রতিস্থাপিত ব্যক্তি তার নিবন্ধন বাবদ জমাকৃত অর্থ সমন্বয় করতে পারবেন না।  

এরূপ ব্যক্তি বা মৃত হজযাত্রীর ক্ষেত্রে তার প্রতিনিধি নিবন্ধন বাবদ জমাকৃত অর্থ ফেরত পাওয়া জন্যে www.hajj.gov.bd-এ প্রবেশ করে ‘নিবন্ধন রিফান্ড সিস্টেমে’ আবেদন করে জমাকৃত অর্থ উত্তোলন/ফেরত নিতে পারবেন। এক্ষেত্রে প্রতিস্থাপিত হজযাত্রীকে প্যাকেজের সম্পূর্ণ অর্থ পরিশোধ করে নিবন্ধন সম্পন্ন করতে হবে।


হজে   জমাকৃত   টাকা  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

চট্টগ্রামে অগ্নিকাণ্ডে ১ জনের মৃত্যু

প্রকাশ: ০২:৫৪ পিএম, ১৮ মে, ২০২২


Thumbnail

চট্টগ্রাম নগরের ইপিজেড থানাধীন কলসি দীঘির পাড়ের ধুমপাড়া এলাকায় দোকান ও বসতঘরে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এই অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে আব্দুল করিম নামের একজন বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। 

বুধবার (১৮ মে) দুপুর ১টার দিকে মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আগ্রাবাদ ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার নিউটন দাস। 

তবে আগুন লাগার কারণ এখনও নিশ্চিত হতে পারিনি। ফায়ার সার্ভিসের তিনটি স্টেশনের ১৩টি ইউনিট প্রায় দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় বেলা সাড়ে ১২টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। 

ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক মো. ফারুক হোসেন বলেন, নগরের ইপিজেডের কলসি দীঘির পাড়ে কয়েকটি দোকান ও বসতঘরে সকাল সোয়া ১১টার দিকে আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে। আগুনে পুড়ে আব্দুল করিম নামের ওই বৃদ্ধ মারা গেছেন।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, তিনি শতবর্ষী এবং কানে শোনেন না ও চোখে দেখেন না। আমরা তার লাশ উদ্ধার করেছি।


চট্টগ্রামে   অগ্নিকাণ্ডে   মৃত্যু  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

নিত্যপণ্যের দাম বৃদ্ধির জন্য আন্তর্জাতিক বাজার দায়ী: বাণিজ্যমন্ত্রী

প্রকাশ: ০২:১১ পিএম, ১৮ মে, ২০২২


Thumbnail নিত্যপণ্যের দাম বৃদ্ধির জন্য আন্তর্জাতিক বাজার দায়ী: বাণিজ্যমন্ত্রী

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, আন্তর্জাতিক বাজারে দাম না কমলে কিছুই করতে পারবো না। কারণ দেশে নিত্যপণ্যের দাম বৃদ্ধির জন্য আন্তর্জাতিক বাজার দায়ী।

বুধবার (১৮ মে) দুপুরে সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে দ্রব্যমূল্য ও বাজার পরিস্থিতি পর্যালোচনা সংক্রান্ত টাস্কফোর্স কমিটির সভায় তিনি এ কথা বলেন।

নিত্যপণ্যের দাম কবে মানুষের নাগালে আসবে এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, এ প্রশ্নের উত্তর আমার জানা নেই। এটির উত্তর জানতে হলে আমার আর্জেন্টিনা-ব্রাজিলে যেতে হবে। আন্তর্জাতিক বাজারে দাম না কমা পর্যন্ত আমরা কিছুই করতে পারবো না। কলকাতায় খবর নিন সেখানে কত দামে তেল বিক্রি হচ্ছে। মানুষকে বৈশ্বিক অবস্থা জানাতে হবে।

ডলারের দাম বাড়ায় সমস্যা তৈরির বিষয়ে তিনি বলেন, আমাদের দুই বছর আমদানি কম ছিল। এখন খুলে যাওয়ায় ক্যাপিটালে প্রভাব পড়েছে, দুই বছরের চাপ পড়েছে একসঙ্গে। সবকিছু মিলে একটা প্রভাব পড়েছে। আমাদের বৈদেশিক রিজার্ভে চাপ পড়েছে। গত দুই বছর আমদানি কমায় বেড়েছিল রিজার্ভ। এখন চাপ পড়ায় এই সমস্যা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, শ্রীলঙ্কায় বিপদ বলে আমাদের বিপদ তা তো নয়। আমরা তো তাদের সহায়তা করেছি। আমাদের ঘাবড়ানোর কোনো কারণ নেই। প্রধানমন্ত্রী এটি নিয়ে সুন্দরভাবে বলেছেন আমাদের দেশে বৈশ্বিক প্রভাব পড়েছে, সাশ্রয়ী হতে হবে।


আন্তর্জাতিক   বাজার   দায়ী   বাণিজ্যমন্ত্রী  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন