ইনসাইড এডুকেশন

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের দুর্নীতি রোধে মঞ্জুরি কমিশনের নির্দেশনা আসছে

প্রকাশ: ১১:৫২ এএম, ১৭ মে, ২০২২


Thumbnail পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের দুর্নীতি রোধে মঞ্জুরি কমিশনের নির্দেশনা আসছে

দেশের বিভিন্ন সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে আর্থিক অনিয়ম বন্ধে ৫০ বিশ্ববিদ্যালয়কে ব্যয়-সংক্রান্ত নির্দেশনা দিচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। এ বিষয়ে শিগগিরই ইউজিসি থেকে একটি সর্তকতা পরিপত্র জারি করা হবে।

জানা গেছে, বিভিন্ন ক্ষেত্রে বেশির ভাগ বিশ্ববিদ্যালয়ে আর্থিক অনিয়ম চলছে। এ ক্ষেত্রে কয়েকজন উপাচার্য বেশ বেপরোয়া। তারা আইনকানুন মানছেন না। এ কারণে গতবছর থেকে নিজেদের বাজেট পাশের আগে ইউজিসি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে সতর্ক করে পরিপত্র দিয়ে আসছে।

জানা গেছে, ইউজিসির কর্মকর্তারা বিশ্ববিদ্যালয় পরিদর্শনে গিয়ে যে আর্থিক অনিয়মের চিত্র তুলে এনেছেন, তাতে উপাচার্য থেকে শুরু করে ড্রাইভার পর্যন্ত বিধিবহির্ভূতভাবে অর্থ গ্রহণ করছেন তহবিল থেকে। উপাচার্যরা কেউ বিশেষ ভাতা আবার কেউ দায়িত্ব ভাতার নামে বেতনের অতিরিক্ত ২০ শতাংশ পর্যন্ত হারে অর্থ নিচ্ছেন। শিক্ষক-কর্মচারীদেরকে পূর্ণ বাড়ি দেওয়ার পর বর্গফুট হিসেবে ভাড়া আদায় করা। সহকারী রেজিস্ট্রাররা পঞ্চম বা ষষ্ঠ গ্রেডে আর উপরেজিস্ট্রার চতুর্থ ও পঞ্চম গ্রেডে বেতন নিচ্ছেন। নিয়োগের দিন থেকে ভূতাপেক্ষ পদোন্নয়ন বা উচ্চতর স্কেল নেওয়ার মতো ঘটনাও ঘটছে।

ইউজিসির প্রস্তাবিত পরিপত্রে বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের কোয়ার্টার বা ডরমেটরিতে বসবাসরত শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বাসাভাড়া, বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস ইত্যাদি বিলের ব্যাপারে সংসদীয় স্থায়ী কমিটির পর্যবেক্ষণ আছে। কমিটির অষ্টম বৈঠকে এ নিয়ে আপত্তি দেওয়া হয়েছে। উল্লেখিত জনবলকে ইতিপূর্বে দেওয়া বর্গফুট হিসেবে বা নির্দিষ্ট হারে বা সাব-স্টান্ডার্ড (নিম্নমানের) দেখিয়ে বা দৈনিক ভিত্তিতে ভাড়া দেওয়া হয়েছে। এ ধরনের সুবিধা দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই। তাই এ ক্ষেত্রে সরকারের প্রচলিত নিয়মে বাড়ি ভাড়া আদায় করতে হবে। আর সুবিধাভোগীর কাছ থেকে অন্যান্য (পানি, বিদ্যুৎ, গ্যাস) প্রকৃত বিল আদায় করতে হবে। কোনো রূপ ভর্তুকি দেওয়া যাবে না।

বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতি বন্ধে আরও বলা হয়, এক খাতের অর্থ অন্য খাতে কিংবা মূল খাতের অর্থ অভ্যন্তরীণ কোনো খাতেই সমন্বয় করা যাবে না। কমিশনের অনুমতি ছাড়া কোনো খাতে বরাদ্দের অতিরিক্ত ব্যয় করা যাবে না। কোনো খাতে বাড়তি অর্থের দরকার হলে ইউজিসিকে অবহিত করতে হবে। অনুমোদিত জনবলের বাইরে কোনোপ্রকার নিয়োগ করা যাবে না। বিধিবহির্ভূত নিয়োগে ব্যয়ের অর্থ জন্য বরাদ্দ রাখা হয়নি। চুক্তিভিত্তিক নিয়োগপ্রাপ্তরা অবসরপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান থেকেই উৎসব ও নববর্ষভাতা গ্রহণ করবেন।

বলা হয়েছে, চুক্তিভিত্তিক প্রতিষ্ঠান থেকে গ্রহণ করতে হলে তাকে অঙ্গীকারনামা দিতে হবে যে, তিনি অবসরপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান থেকে এসব ভাতা নেন না। এ ধরনের জনবলকে চুক্তিভিত্তিক প্রতিষ্ঠানে কনসোলিডেট পেমেন্ট ফিক্সেশনের সময়ে কোনোভাবেই উল্লেখিত ভাতা অন্তর্ভুক্ত করা যাবে না।

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়   মঞ্জুরি কমিশন   দুর্নীতি   রোধ   নির্দেশনা  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড এডুকেশন

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে ইবিতে বর্ণাঢ্য র‍্যালি

প্রকাশ: ০১:৫৬ পিএম, ২৫ Jun, ২০২২


Thumbnail পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে ইবিতে বর্ণাঢ্য র‍্যালি

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) বর্ণাঢ্য র‍্যালি ও পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার দেখানো হয়েছে।

শনিবার (২৫ জুন) বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলানায়তনে (টিএসসি) প্রজেক্টরের মাধ্যমে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখানো হয়। এর আগে সকাল সাড়ে ৯টায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনিক ভবন চত্বর থেকে বর্ণাঢ্য র‍্যালি বের করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। র‍্যালিটি ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে টিএসসিতে মিলিত হয়।

টিএসসিতে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা ও পদ্মা সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার দেখানো হয়। শিক্ষার্থীসহ বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সকলে সরাসরি পদ্মা সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠান উপভোগ করেন।

এ সময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আবদুস সালাম, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভুঁইয়া, প্রক্টর অধ্যাপক ড.জাহাঙ্গীর হোসেন, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মু. আতাউর রহমানসহ সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. আবদুস সালাম বলেন, আমরা অসাধ্য সাধনের সাক্ষী হলাম। পদ্মা খরস্রোতা নদী। সেই খরস্রোতকে জয় করে স্বপ্নের পদ্মা বাস্তব রূপ নিয়েছে। আমরা স্বপ্নকে ছুঁয়েছি।

পদ্মা সেতু   উদ্বোধন   উপলক্ষে   ইবি   র‍্যালি  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড এডুকেশন

টানা ১৯ দিন বন্ধ থাকবে প্রাথমিক বিদ্যালয়

প্রকাশ: ০১:২০ পিএম, ২৫ Jun, ২০২২


Thumbnail টানা ১৯ দিন বন্ধ থাকবে প্রাথমিক বিদ্যালয়

গ্রীষ্মকালীন ছুটি এবং ঈদুল আযহা ও আষাঢ়ী পূর্ণিমা উপলক্ষে ২৮ জুন থেকে ১৬ জুলাই পর্যন্ত মোট ১৯ দিন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষে সরাসরি পাঠদান বন্ধ থাকবে।

 বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে এ সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।

এতে বলা হয়, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২০২২ খ্রিস্টাব্দের ছুটি তালিকায় গ্রীষ্মকালীন ছুটি ১৬-২৩ মে নির্ধারিত ছিল। শিক্ষকদের শ্রান্তি বিনোদন ছুটি প্রদানের সুবিধার্থে পূর্বে নির্ধারিত গ্রীষ্মকালীন ছুটি ১৬-২৩ মে'র পরিবর্তে ২৮ জুন থেকে ৫ জুলাই সমন্বয়পূর্বক নির্ধারণ করা হলো।  

এমতাবস্থায়, আগামী ২৮ জুন থেকে ৫ জুলাই গ্রীষ্মকালীন ছুটি ও ৬ থেকে ১৬ জুলাই পর্যন্ত ঈদুল আযহা এবং আষাঢ়ী পূর্ণিমা উপলক্ষে বিদ্যালয়ে সরাসরি পাঠদান কার্যক্রম বন্ধ থাকবে।

টানা ১৯ দিন   বন্ধ থাকবে   প্রাথমিক বিদ্যালয়  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড এডুকেশন

স্কুল-কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মাস্ক পরার নির্দেশ

প্রকাশ: ০৮:১৫ এএম, ২৪ Jun, ২০২২


Thumbnail

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ আবারও বেড়ে যাওয়ায় স্কুল-কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মাস্ক পরা ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করার নির্দেশ দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)।

বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) মাউশির সহকারী পরিচালক (প্রশাসন) রূপক রায়ের স্বাক্ষর করা নির্দেশনা থেকে এ তথ্য জানা যায়।

নির্দেশনায় বলা হয়, করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের আওতাধীন অফিস/ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থী এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাস্ক পরিধান করে অফিস/শ্রেণির কার্যক্রম পরিচালনার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে অনুরোধ করা হলো।

বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন এক হাজার ৩১৯ জন। আর মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৯ লাখ ৬০ হাজার ৫২৮ জনে। শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ৩২ শতাংশ। এ সময়ের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে একজনের। ফলে মোট মারা যাওয়ার সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৯ হাজার ১৩৫ জনে।

স্কুল-কলেজ   শিক্ষক-শিক্ষার্থী   মাস্ক  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড এডুকেশন

দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের ব্রেইল বই দিয়েছে বসুন্ধরা খাতা

প্রকাশ: ০৭:২৯ পিএম, ২৩ Jun, ২০২২


Thumbnail দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের ব্রেইল বই দিয়েছে বসুন্ধরা খাতা

২০২১ সালে মাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের মাঝে ব্রেইল বই বিতরণ করেছে বসুন্ধরা খাতা। বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফওয়ান সোবহানের উদ্যোগে ভিউ ফাউন্ডেশনের (ভিজুয়ালি ইম্পায়ার্ড এডুকেশন অ্যান্ড ওয়েলফেয়ার) সহযোগিতায় শিক্ষার্থীদের হাতে বইগুলো তুলে দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) বিকেলে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে ‘বসুন্ধরা খাতা ব্রেইল বই ডোনেশন প্রোগ্রাম’ আয়োজিত হয়। অনুষ্ঠানে ব্রেইল প্রিন্টিং পদ্ধতিতে তৈরি জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) অনুমোদিত বাংলা সহপাঠ, বাংলা সাহিত্যপাঠ ও ইংলিশ ফর টুডে বই বিতরণ করা হয়েছে।

দীর্ঘ এক যুগ ধরে সমাজের প্রতিটি স্তরের মানুষের মাঝে শিক্ষার আলো পৌঁছে দিতে বসুন্ধরা পেপার মিলস লিমিটেড প্রতিনিয়ত শিক্ষার উপকরণ উৎপাদন, বিক্রয় ও বিপণন করে আসছে। সঠিক জিএসএম, সঠিক পৃষ্ঠা সংখ্যা ও উন্নত মানের বিভিন্ন ধরনের খাতা এবং এ-ফোর কাগজ তার মধ্যে অন্যতম। এরই ধারাবাহিকতায় এই প্রথম দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের উচ্চশিক্ষার স্তর নিশ্চিত করতে বসুন্ধরা খাতা বিতরণ করল ব্রেইল বই।

ব্রেইল বইগুলো বিতরণ করা হয়েছে ভিউ ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে। এই সংগঠনটি ২০১৬ সাল থেকে দৃষ্টিপ্রতিবন্ধীদের জন্য বিভিন্ন সমাজসেবামূলক কার্যক্রম করে আসছে। ভিউ ফাউন্ডেশন তাদের নিজস্ব ব্রেইল বই প্রিন্টিং হাউজে বইগুলো ছাপানোর কাজ সম্পন্ন করেছে।

‘বসুন্ধরা খাতা ব্রেইল বই ডোনেশন প্রোগ্রাম’ এর আয়োজন শুরু হয় পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে। এরপর স্বাগত বক্তব্য রাখেন ভিউ ফাউন্ডেশনের ট্রাস্টি সোহরাব হোসেন। অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের পরিচালক ও জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলন।

শিক্ষার্থীদের ব্রেইল বই ডোনেশন প্রোগ্রামে আরও উপস্থিত ছিলেন বসুন্ধরা পেপার মিলস লিমিটেডের হেড অব মার্কেটিং মোহাম্মদ আলাউদ্দিন, হেড অব ডিভিশন (সেলস) গোলাম সারওয়ার নওশাদ, ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (ন্যাশনাল সেলস) রাজু আহমেদ, ভিউ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান প্রফেসর মোহাম্মদ ইউসুফ আলি চৌধুরীসহ দুই প্রতিষ্ঠানের অন্যান্য কর্মকর্তারা।

বসুন্ধরা  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড এডুকেশন

এসএসসি পরীক্ষা ঈদের পর

প্রকাশ: ০৫:৩৩ পিএম, ২২ Jun, ২০২২


Thumbnail এসএসসি পরীক্ষা ঈদের পর

বন্যার কারণে স্থগিত হয়ে যাওয়া চলতি বছরের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা ঈদুল আজহার পর শুরু হবে বলে জানিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

বুধবার (২২ জুন) উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব আবু বকর ছিদ্দীক নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা জানান।

আবু বকর ছিদ্দীক বলেন, দেশে সার্বিক বন্যার কারণে ঈদের আগে পরীক্ষা নেওয়া যাবে না। ঈদের পর পরীক্ষা নিতে হবে। আর এসএসসি পরীক্ষা পিছিয়ে যাওয়ার কারণে এইচএসসি পরীক্ষাও পিছিয়ে যাবে।

উল্লেখ্য, এ বছরের এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা গত ১৯ জুন শুরু হওয়ার কথা ছিল। নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী এসএসসি পরীক্ষা শেষ হতো ৬ জুলাই। কিন্তু সারা দেশে সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় গত ১৭ জুন এই পরীক্ষা স্থগিতের ঘোষণা করা হয়।

এসএসসি পরীক্ষা   এসএসসি   পরীক্ষা  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন