ইনসাইড গ্রাউন্ড

জুভেন্টাসকে হারিয়ে সুপার কাপের শিরোপা ইন্টারের

প্রকাশ: ০৯:৩৭ এএম, ১৩ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

এক সময় মনে হচ্ছিল ম্যাচের নিষ্পত্তি ঘটবে টাইব্রেকারে। তবে ম্যাচকে টাইব্রেকারে যেতে দেননি অ্যালেক্সিস সানচেজ। শেষ মুহূর্তে তার করা গোলে জুভেন্টাসকে ২-১ গোলে হারিয়ে ১১ বছর পর ইতালিয়ান সুপার কাপের শিরোপা জিতে ইন্টার মিলান। 

ম্যাচের নির্ধারিত ৯০ মিনিটের পর অতিরিক্ত ৩০ মিনিট শেষ হওয়ার পর যোগ করা সময়ের প্রথম মিনিটে গোল করে ইন্টার মিলানকে শিরোপা এনে দিয়েছেন চিলির তারকা ফরোয়ার্ড।

সবশেষ ২০১০ সালে নাপোলিকে হারিয়ে ইতালিয়ান সুপার কাপের শিরোপা ঘরে তুলেছিল মিলানের ক্লাবটি। প্রায় এক যুগ পর ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাসকে হতাশার সাগরে ভাসিয়ে চ্যাম্পিয়ন হলো তারা। পুরো ম্যাচে দাপট দেখিয়ে যোগ্যতর দল হিসেবেই জিতেছে সিমোন ইনজাঘির শিষ্যরা।

ম্যাচের প্রথম গোলটি করেছিল জুভেন্টাসই। ম্যাচের ২৫ মিনিটের মাথায় দলকে এগিয়ে দেন ওয়েস্টন ম্যাককেনি। আলভারো মোরাতার ক্রস এক ডিফেন্ডারের পায়ে লেগে পড়ে গোলবারের কাছে। সামনেই থাকা ম্যাককেনি সহজ সুযোগ হাতছাড়া করেননি।

সমতা ফেরাতে অবশ্য বেশি সময় নেয়নি ইন্টার। দশ মিনিটের ব্যবধানে জুভেন্টাসের কাছ থেকে উপহার হিসেবে পাওয়া পেনাল্টিতে ম্যাচে ফেরে স্বাগতিকরা। ডি-বক্সের মধ্যে ফাউলের শিকার হয়েছিলেন এডিন জেকো। পেনাল্টিতে জোরালো শটে লক্ষ্যভেদ করেন আর্জেন্টাইন তারকা লাউতারো মার্টিনেজ।

এরপর প্রথমার্ধের বাকি সময় কিংবা পুরো দ্বিতীয়ার্ধেও মেলেনি আর গোলের দেখা। ফলে খেলা গড়ায় অতিরিক্ত ত্রিশ মিনিটে। সেখানেও ১৫ মিনিটের দুই অর্ধে কেউ পারছিল না গোল দিতে। ম্যাচ যখন প্রায় শেষের পথে, তখনই জ্বলে ওঠেন সানচেজ।

নির্ধারিত ৯০ মিনিট শেষে ৩০ মিনিটেরও খেলা হয়ে যাওয়ার পর চলছিল যোগ করা সময়ের খেলা। ঠিক তখন মাতেও দারমেইনের কাছ থেকে পাওয়া বলে নিখুঁত ফিনিশিংয়ে জয়সূচক গোল করেন অ্যালেক্সিস সানচেজ। যা শিরোপা এনে দেয় ইন্টারকে।

ইন্টার মিলান   জুভেন্টাস  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

আইপিএলের সব ম্যাচ এক শহরে, শুরু ২৭ মার্চ

প্রকাশ: ১১:২৭ এএম, ২৮ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

করোনার ঊর্ধ্বমুখীর মধ্যেই আইপিএল আয়োজনের জোড় প্রস্তুতি চালিয়ে যাচ্ছে আয়োজকরা। আগামী ২৭ মার্চ থেকে শুরু হতে পারে এবারের আইপিএল। তবে, এবারের আইপিএলে ভেন্যু কমে যাচ্ছে। 

এবারের আইপিএল সম্ভবত পুরোটাই হবে মুম্বাই শহরে। আনুষ্ঠানিক ঘোষণা না আসলেও বৃহস্পতিবার ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) সভায় মোটামুটি এমন সিদ্ধান্ত হয়েছে।

আইপিএলের কেন্দ্র হিসেবে মুম্বাইয়ের কথা ভাবার বড় কারণ, সেখানে কোভিডের সংক্রমণ অনেকটাই কমে গেছে। তাছাড়া মুম্বাইয়ে খেলা হলে একসঙ্গে তিনটি স্টেডিয়াম পাওয়া যাবে।

ওয়াংখেড়ে, ব্র্যাবোর্ন এবং ডিওয়াই পাতিল স্টেডিয়ামে ম্যাচগুলো আয়োজনের পরিকল্পনা করা হচ্ছে। তেমন হলে দলগুলোকে আর বিমানে যাতায়াত করতে হবে না। প্রয়োজন পড়লে কিছু ম্যাচ পুনেতেও নেওয়া হতে পারে।

আইপিএল  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

অতিরিক্ত খেলোয়াড় না থাকায় উইকেটকিপিং করলেন কোচ!

প্রকাশ: ১১:০৯ এএম, ২৮ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

করোনার কারণে দলের এমনই বিপদ যে, উইকেটের পেছনে দাঁড়ানোর মতো কেউ নেই। কিন্তু দলের মুখরক্ষা করতে গিয়ে সহকারী কোচকে প্যাড-গ্লাভস করে উইকেটরক্ষা করতে নেমে পড়তে হলো। খেলোয়াড় হিসেবে দলে ছিলেন না। ফলে খেলার কোনো কথাও ছিল না। নিয়মিত উইকেটকিপার কোভিডে আক্রান্ত হওয়ায় এই কাণ্ড!

ঘটনাটি ঘটেছে অস্ট্রেলিয়ার টি-টোয়েন্টি লিগ বিগ ব্যাশে (বিবিএল)। বিবিএলে সেমিফাইনাল খেলা ছিল সিডনি সিক্সার্স ও অ্যাডিলেড স্ট্রাইকার্সের মধ্যে। কিন্তু ম্যাচের আগে সিডনির উইকেটকিপার জস ফিলিপের কোভিড পরীক্ষার ফল পজিটিভ আসে। বদলি উইকেটকিপার হিসেবে কাউকে না পাওয়ায় সিডনি বাধ্য হয় তাদের সহকারী কোচ জে লেন্টনকে উইকেটকিপার হিসেবে নামাতে।

নিয়মিত উইকেটকিপারকে না পেয়েও সিডনির অবশ্য জিততে কোনও অসুবিধে হয়নি। তারা ৪ উইকেটে হারায় অ্যাডিলেডকে। 

বিগ ব্যাশ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

ধোনির ফোন নম্বার জানেন না রবি শাস্ত্রী!

প্রকাশ: ১০:৫৪ এএম, ২৮ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

খুব কম মানুষের কাছে মহেন্দ্র সিং ধোনির ফোন নম্বর রয়েছে। ২০১৪ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত এক সাজঘরে সময় কাটিয়েও রবি শাস্ত্রীর কাছে বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়কের নম্বর নেই। ধোনি এমনই মানুষ। তাঁর নাগাল পেতে সাংবাদিকরা যেমন হিমশিম খান, শাস্ত্রীরও নাকি তেমন অবস্থাই হয়।

২০১৯ সালে অবসর নেওয়ার পর ধোনি কোথায় রয়েছেন তা নিয়ে প্রশ্ন ছিল। কিন্তু তাঁর খোঁজ প্রায় কারও কাছেই ছিল না। বেশ কিছু দিন পর তিনি নিজেই জানান খামারবাড়িতে রয়েছেন তিনি। ধোনি না চাইলে তাঁর খোঁজ পাওয়া সত্যিই বেশ মুশকিল। শোয়েব আখতারকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে শাস্ত্রী বলেন, “ফোন যাতে হাতে না নিতে হয়, তার জন্য যা যা করা যায়, সব করবে ধোনি। সত্যি বলতে আমার কাছে ওর নম্বর নেই। ওর কাছে ফোন খুব কম থাকে। ধোনি এমনই মানুষ।”

ভারতীয় ক্রিকেটে ধোনিকে ‘ক্যাপ্টেন কুল’ বলে ডাকা হয়। মাঠের মধ্যে কখনও রাগতে দেখা যায়নি ধোনিকে। শাস্ত্রী বলেন, “আমি অনেক ক্রিকেটার দেখেছি। শচীন টেন্ডুলকারকে দেখেছি। কিন্তু ধোনির মতো কাউকে দেখিনি। শূন্য করুক বা ১০০, বিশ্বকাপ জিতুক বা প্রথম পর্বে হেরে যাক, ধোনির কাছে কোনওটাই যেন কোনও ব্যাপার নয়। অনেক সময় শচীনকেও রাগতে দেখেছি, কিন্তু ধোনিকে কখনও না।”

মহেন্দ্র সিং ধোনি   রবি শাস্ত্রী  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

চমক দেখিয়ে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে আফগানিস্তান

প্রকাশ: ১০:২৩ এএম, ২৮ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

চমক দেখিয়ে যুব বিশ্বকাপের সুপার লিগ সেমিফাইনালে নাম লেখালো আফগানিস্তান অনূর্ধ্ব-১৯ দল। বৃহস্পতিবার রাতে এন্টিগায় শ্বাসরুদ্ধকর এক লড়াইয়ে শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব-১৯ দলকে ৪ রানে হারিয়ে দিয়েছে তারা।

দ্বিতীয় কোয়ার্টার ফাইনালে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে আফগানিস্তানের ইনিংস গুটিয়ে যায় মাত্র ১৩৪ রানে। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৭ রান করেন আব্দুল হাদি, ৯৭ বলের মোকাবেলায়। এছাড়া নূর আহমেদ ৩০ ও আল্লাহ নূর ২৫ রান করেন।

শ্রীলঙ্কার পক্ষে ভিনুজা রানপল একাই শিকার করেন পাঁচটি উইকেট। এছাড়া তিনটি উইকেট শিকার করেন ওয়েল্লালাগে।

জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ২ রানে প্রথম উইকেট হারানো শ্রীলঙ্কা পড়ে আরও ভয়ানক ব্যাটিং বিপর্যয়ে। ৪৩ রানের মধ্যেই ৭ উইকেট হারিয়ে ফেলে দলটি। এরপর হাল ধরেন অধিনায়ক দুনিথ ও রবিন ডি সিলভা।

অষ্টম উইকেটে দুজনে গড়েন ৬৯ রানের পার্টনারশিপ। ৬১ বলে ৩৪ রান করে বিদায় নেন দুনিথ। ৮৪ বলে ২১ রান করা রবিনও সাজঘরে ফেরেন।

এরপর ভিনুজাকে নিয়ে ত্রিভান ম্যাথু আপ্রাণ চেষ্টা করেছেন। তবে ভুল বোঝাবুঝিতে ম্যাথু রানআউট হলে ৪ ওভার বাকি থাকতেই ১৩০ রানে থামে লঙ্কানদের ইনিংস। ১৪ বলে ১১ রানে অপরাজিত থাকেন ভিনুজা।

আফগানদের পক্ষে জোড়া উইকেট শিকার করেন বিলাল সামি।

যুব বিশ্বকাপ   অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

এশিয়ার প্রথম দল হিসেবে কাতার বিশ্বকাপের টিকেট পেল ইরান

প্রকাশ: ১০:১০ এএম, ২৮ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

ইরাককে হারিয়ে এশিয়ার প্রথম দল হিসেবে বাছাই পর্ব পেরিয়ে কাতার বিশ্বকাপের টিকেট পেল ইরান। এ নিয়ে টানা তৃতীয় ও সব মিলিয়ে ষষ্ঠবারের মতো বিশ্বকাপের মূল পর্বে জায়গা করে নিল ইরান।

বৃহস্পতিবার তেহরানে এশিয়া অঞ্চলের বাছাইয়ে ‘এ’ গ্রুপের ম্যাচটি ১-০ গোলে জিতেছে ইরান। ইরানের হয়ে ৪৮তম মিনিটে জয়সূচক গোলটি করেন দলে ফেরা থারেমি। 

এশিয়া অঞ্চলের বাছাইয়ে ৭ ম্যাচে ছয় জয় ও এক ড্রয়ে ১৯ পয়েন্ট নিয়ে ছয় দলের মধ্যে শীর্ষে আছে ইরান। সমান ম্যাচে পাঁচ জয় ও দুই ড্রয়ে ১৭ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে দক্ষিণ কোরিয়া। তিন নম্বরে থাকা সংযুক্ত আরব আমিরাতের পয়েন্ট ৯।
এশিয়া অঞ্চলের বাছাইয়ে দুই গ্রুপের শীর্ষ দুটি করে দল সরাসরি বিশ্বকাপে খেলবে। তৃতীয় হওয়া দুই দল নিজেদের মধ্যে খেলার পর বিজয়ী দল আরেকটি প্লে-অফে লড়বে দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের পঞ্চম দলের সঙ্গে।

কাতার বিশ্বকাপ   ইরান ফুটবল   ইরাক ফুটবল  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন