ইনসাইড গ্রাউন্ড

টিকা নেয়া না থাকায় ফুটবল দলের ইন্দোনেশিয়া সফর বাতিল

প্রকাশ: ০১:৫২ পিএম, ১৩ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

জাতীয় ফুটবল দলের সব ফুটবলারদের দুই ডোজ টিকা নেয়া না থাকায় তাদের ইন্দোনেশিয়া সফর বাতিল হয়েছে। 

বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের জানুয়ারির ফিফা উইন্ডোতে ম্যাচ খেলা হচ্ছে না। ২৪ ও ২৭ জানুয়ারি ইন্দোনেশিয়ার বালিতে দুটি প্রীতি ম্যাচ খেলার কথা ছিল জামালদের। বাংলাদেশ দলের দুই ডোজ ভ্যাকসিন না থাকায় ইন্দোনেশিয়ায় যেতে পারবে না। ফলে দুই দেশের ফেডারেশন আসন্ন প্রীতি ম্যাচ স্থগিত করেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন।



বিস্তারিত আসছে... 



ফুটবল  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

চমক দেখিয়ে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে আফগানিস্তান

প্রকাশ: ১০:২৩ এএম, ২৮ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

চমক দেখিয়ে যুব বিশ্বকাপের সুপার লিগ সেমিফাইনালে নাম লেখালো আফগানিস্তান অনূর্ধ্ব-১৯ দল। বৃহস্পতিবার রাতে এন্টিগায় শ্বাসরুদ্ধকর এক লড়াইয়ে শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব-১৯ দলকে ৪ রানে হারিয়ে দিয়েছে তারা।

দ্বিতীয় কোয়ার্টার ফাইনালে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে আফগানিস্তানের ইনিংস গুটিয়ে যায় মাত্র ১৩৪ রানে। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৭ রান করেন আব্দুল হাদি, ৯৭ বলের মোকাবেলায়। এছাড়া নূর আহমেদ ৩০ ও আল্লাহ নূর ২৫ রান করেন।

শ্রীলঙ্কার পক্ষে ভিনুজা রানপল একাই শিকার করেন পাঁচটি উইকেট। এছাড়া তিনটি উইকেট শিকার করেন ওয়েল্লালাগে।

জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ২ রানে প্রথম উইকেট হারানো শ্রীলঙ্কা পড়ে আরও ভয়ানক ব্যাটিং বিপর্যয়ে। ৪৩ রানের মধ্যেই ৭ উইকেট হারিয়ে ফেলে দলটি। এরপর হাল ধরেন অধিনায়ক দুনিথ ও রবিন ডি সিলভা।

অষ্টম উইকেটে দুজনে গড়েন ৬৯ রানের পার্টনারশিপ। ৬১ বলে ৩৪ রান করে বিদায় নেন দুনিথ। ৮৪ বলে ২১ রান করা রবিনও সাজঘরে ফেরেন।

এরপর ভিনুজাকে নিয়ে ত্রিভান ম্যাথু আপ্রাণ চেষ্টা করেছেন। তবে ভুল বোঝাবুঝিতে ম্যাথু রানআউট হলে ৪ ওভার বাকি থাকতেই ১৩০ রানে থামে লঙ্কানদের ইনিংস। ১৪ বলে ১১ রানে অপরাজিত থাকেন ভিনুজা।

আফগানদের পক্ষে জোড়া উইকেট শিকার করেন বিলাল সামি।

যুব বিশ্বকাপ   অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

এশিয়ার প্রথম দল হিসেবে কাতার বিশ্বকাপের টিকেট পেল ইরান

প্রকাশ: ১০:১০ এএম, ২৮ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

ইরাককে হারিয়ে এশিয়ার প্রথম দল হিসেবে বাছাই পর্ব পেরিয়ে কাতার বিশ্বকাপের টিকেট পেল ইরান। এ নিয়ে টানা তৃতীয় ও সব মিলিয়ে ষষ্ঠবারের মতো বিশ্বকাপের মূল পর্বে জায়গা করে নিল ইরান।

বৃহস্পতিবার তেহরানে এশিয়া অঞ্চলের বাছাইয়ে ‘এ’ গ্রুপের ম্যাচটি ১-০ গোলে জিতেছে ইরান। ইরানের হয়ে ৪৮তম মিনিটে জয়সূচক গোলটি করেন দলে ফেরা থারেমি। 

এশিয়া অঞ্চলের বাছাইয়ে ৭ ম্যাচে ছয় জয় ও এক ড্রয়ে ১৯ পয়েন্ট নিয়ে ছয় দলের মধ্যে শীর্ষে আছে ইরান। সমান ম্যাচে পাঁচ জয় ও দুই ড্রয়ে ১৭ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে দক্ষিণ কোরিয়া। তিন নম্বরে থাকা সংযুক্ত আরব আমিরাতের পয়েন্ট ৯।
এশিয়া অঞ্চলের বাছাইয়ে দুই গ্রুপের শীর্ষ দুটি করে দল সরাসরি বিশ্বকাপে খেলবে। তৃতীয় হওয়া দুই দল নিজেদের মধ্যে খেলার পর বিজয়ী দল আরেকটি প্লে-অফে লড়বে দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের পঞ্চম দলের সঙ্গে।

কাতার বিশ্বকাপ   ইরান ফুটবল   ইরাক ফুটবল  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

বিপিএল: কি অপেক্ষা করছে চট্টগ্রাম পর্বে?

প্রকাশ: ০৯:০০ এএম, ২৮ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) অষ্টম আসরের প্রথম পর্ব অর্থাৎ ঢাকা পর্ব শেষ হয়েছে। চার দিনে আটটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে 'হোম অব ক্রিকেট' খ্যাত মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে। এবার বিপিএলের চট্টগ্রাম পর্বের পালা। তিনদিন বিরতির পর আজ থেকে বন্দরনগরী চট্টগ্রামে শুরু হচ্ছে বিপিএল উৎসব। ঢাকা পর্ব শেষ হওয়ার দুই দিনের মধ্যেই সবগুলো দল পৌঁছে গেছে চট্টগ্রামে। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামেও চার দিনে আটটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। ঢাকা পর্বে অনেক সমালোচনা, ত্রুটি এবং বিতর্ক হলেও চট্টগ্রাম শোনাচ্ছে আশার বাণী। 

ঢাকায় সবথেকে সমালোচিত হয়েছে উইকেট। টি-টোয়েন্টি মানেই চার-ছয়ের ধুম হলেও ঢাকায় প্রথম পর্বের ম্যাচগুলোতে দেখা গেলো একদম উল্টো চিত্র। মিরপুরে চার দিনেই ছিল রান খরা। দিনের ম্যাচগুলো ছিল লো স্কোরিং। সন্ধ্যার পর যদিও কিছু্টা রানের লড়াই মঞ্চস্থ হয়েছে। তবে 'সাগরিকা' খ্যাত চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম হাই স্কোরিং ম্যাচের জন্য বিখ্যাত। এই উইকেটে বরাবরই রানের জোয়ার বইতে দেখা গেছে। চট্টগ্রামের উইকেট রান করার জন্য 'লাকি গ্রাউন্ড' হিসেবে পরিচিত। ব্যাটাররা এখানে রান পান। ঢাকার মতো দিন এবং রাতের উইকেটের মধ্যে যে তারতম্য, তা এখানে না দেখার সম্ভাবনাই বেশি। এখানে ঘুচতে পারে রান খরার আক্ষেপ। কারণ বিপিএলের ইতিহাসে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড এই মাঠেই।

চট্টগ্রামের কিউরেটর জাহিদ রেজা বাবুও আত্মবিশ্বাসী, টি-টোয়েন্টির আসল ধামাকা এবার দেখা যাবে সাগরিকায়। যদিও রোদের তীব্রতা কম থাকায় কিছুটা চিন্তিত তিনি, তবুও মিরপুরের চেয়ে ভালো লড়াইয়ের আশা করছেন দেশের অন্যতম সেরা এই কিউরেটর। অবশ্য চট্টগ্রামে এখন নেই ভারতীয় কিউরেটর প্রাভীন হিনগানিকর। ছুটিতে দেশে গিয়ে করোনা আক্রান্ত হয়ে পড়েছেন তিনি। তাই এখনো ফিরতে পারেননি চট্টগ্রাম। এবার বিপিএলের এই পর্ব তাই জাহিদ রেজা বাবু একাই সামলাবেন। 

এছাড়া জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে মাঠের সংস্কার কাজও করা হয়েছে। স্টেডিয়ামের আগের জীর্ণ দশা আর নেই। ভাঙ্গাচোরা চেয়ারগুলোকে সরিয়ে বিপিএল উপলক্ষে ১২ হাজার চেয়ার নতুন চেয়ার বসানো হয়েছে। স্টেডিয়ামের চেহারায় জাঁকজমকপূর্ণ পরিবর্তন আনা হয়েছে।

চট্টগ্রাম পর্বের জন্য রয়েছে আরেকটি সুখবর। চট্টগ্রাম পর্ব থেকে বিপিএলে যোগ হচ্ছে বিকল্প 'ডিআরএস' পদ্ধতি। এবারের বিপিএলে 'ডিআরএস' না থাকায় বিতর্কের শঙ্কা ছিল এবং তা বাস্তবে পরিণত হয় মিনিস্টার ঢাকা ও সিলেট সানরাইজার্সের ম্যাচে। এই ম্যাচে বেশকিছু সিদ্ধান্ত ঢাকার বিপক্ষে যায়। তাতেই বয়ে যায় সমালোচনার ঝড়। তাই বিকল্প 'ডিআরএস' পদ্ধতির সিদ্ধান্ত।

বিকল্প 'ডিআরএস' নিয়ে দলগুলোর সাথে অনলাইনে সভা করেছেন বিপিএল টেকনিক্যাল কমিটির প্রধান ও বিসিবি প্রধান ম্যাচ রেফারি রকিবুল হাসান। বিকল্প এই 'ডিআরএস' পদ্ধতি কাজ করবে মূলত 'স্লো মোশন' প্রযুক্তির উপর ভিত্তি করে। কট বিহাইন্ডের অস্পষ্টতা দূর করতে এই পদ্ধতি সব সময় কার্যকর না হলেও বল কোথায় গিয়ে পড়ে, কোথায় গিয়ে আঘাত করে সেটি বোঝা যাবে।তাতে অন্তত কিছুটা স্বচ্ছতা পাওয়া যাবে।

সবকিছু মিলিয়ে চট্টগ্রাম পর্বের জন্য আশাবাদী হচ্ছেন দর্শকরা। এবার ক্রিকেটভক্তদের জন্য কিছু উপভোগের মূহুর্ত এনে দেবে সাগরিকা। প্রচুর রান উঠবে, দর্শকরা আনন্দ পাবে, তেমনই প্রত্যাশা সবার।

বিপিএল   বিপিএল ২০২২  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

ব্রাজিল না পারলেও পেরেছে আর্জেন্টিনা

প্রকাশ: ০৮:৩৪ এএম, ২৮ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে ব্রাজিল জিততে না পারলেও জয় পেয়েছে আর্জেন্টিনা। মেসিকে ছাড়াই চিলির বিপক্ষে জয় তুলে নেয় তারা। আনহেল ডি মারিয়ার নেতৃত্বে আলবিসেলেস্তেরা ২-১ গোলে জয় লাভ করেন। আর্জেন্টিনার পক্ষে গোল করেন ডি মারিয়া ও মার্টিনেজ। 

করোনার ধকল মাত্রই সামলে উঠায় ছিলেন না লিওনেল মেসি। করোনা পজিটিভ থাকায় ডাগ আউটে থাকতে পারেননি কোচ লিওনেল স্ক্যালোনিও। তাতে অবশ্য জিততে সমস্যা হলো না আর্জেন্টিনার।

লিওনেল মেসি না থাকলেও প্রতিপক্ষের মাঠে নেমে ম্যাচের সপ্তম মিনিটেই গোলের দেখা পায় আর্জেন্টিনা। রদ্রিগো ডি পল বল বাড়িয়ে দেন ডি মারিয়ার দিকে। তার সামনে তখন প্রতিপক্ষে তিন ফুটবলার। তাদের এক রকম ফাঁকি দিয়ে বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া শটে দৃষ্টিনন্দন এক গোল করে দলকে এগিয়ে দেন তিনি।

তবে ম্যাচের ২০তম মিনিটে স্বাগতিক চিলিকে সমতায় ফেরান বেন ব্রেন্টন দিয়াজ। মার্সেলিয়ানো নুয়েজের কাছ থেকে পাওয়া বলে দুরূহ কোন থেকে গোল করেন তিনি। 

২৫ মিনিটে ডি মারিয়ার বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া আরও একটি শট আটকে দেন গোলরক্ষক ক্লদিও ব্রাভো। ৩৪ মিনিটেও ঠেকিয়ে দিয়েছিলেন রদ্রিগো ডি পলের শট। কিন্তু ফিরতি বল পেয়ে যান মার্টিনেজ। গোল করতে ভুল করেননি তিনি।

ম্যাচের শেষ মুহূর্তে ৮৪ মিনিটে এসে গোলের খুব কাছাকাছি ছিল চিলি। কিন্তু এবার আর্জেন্টিনার ত্রাণকর্তা হন এমিলিয়ানো মার্টিনেজ। বেন ব্রেন্টনের হেড ঝাঁপিয়ে পড়ে ঠেকিয়ে দেন অ্যাস্টন ভিলা তারকা। হতাশ হতে হয় চিলিকে। শেষ পর্যন্ত হার নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয় স্বাগতিকদের।

কাতারের টিকেট আগেই নিশ্চিত হওয়ায় বাছাইয়ের বাকি ম্যাচগুলো আর্জেন্টিনার জন্য মূলত দল গুছিয়ে নেওয়ার।

আর্জেন্টিনা   মেসি   ডি মারিয়া  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

৩২ ফাউল, ২ লাল কার্ডের ম্যাচে ইকুয়েডরের সাথে ব্রাজিলের ড্র

প্রকাশ: ০৮:০৮ এএম, ২৮ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

 ঘটনাবহুল ম্যাচে অবশেষে ইকুয়েডরের সাথে ড্র করতে পারলো ব্রাজিল। শুরুতে এগিয়ে গিয়েও শেষ পর্যন্ত ড্র'তেই সন্তুষ্ট থাকতে হয়  ব্রাজিলকে।  ম্যাচজুড়ে ঘটনার কমতি ছিল না। লাল কার্ড দেখেছিলেন ব্রাজিলের গোলরক্ষক এলিসন বেকার। কিন্তু ভিএআরের সিদ্ধান্তে বাতিল হয়ে যায় সেটি। তবুও অবশ্য লাল কার্ড দেখেছেন দু দলের দুই ফুটবলার। ফাউলের ছড়াছড়ি ছিল ম্যাচজুড়ে। দাপট ছিল ‘ভিএআর’ এ সিদ্ধান্ত বদলেরও। 

শুক্রবার বাংলাদেশ সময় ভোরে অনুষ্ঠিত ব্রাজিল ও ইকুয়েডরের বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়েছে। ম্যাচের মাত্র ৬ মিনিটে গোল করে সেলেসাওদের এগিয়ে দেন ক্যাসেমিরো। পরে ম্যাচের ৭৫তম মিনিটে গিয়ে সমতা টানেন ফেলিক্স তোরেস।

চোটের কারণে এই ম্যাচে ছিলেন না ব্রাজিলের সবচেয়ে বড় তারকা নেইমার। তার জায়গায় সম্প্রতি বার্সেলোনা থেকে ধারে অ্যাস্টন ভিলায় খেলতে যাওয়া কৌতিনিওকে নিয়ে মাঠে নামে সেলেসাওরা। 

সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় দুই হাজার ৮৫০ মিটার উঁচুতে খেলতে নেমে মোট ৩২টি ফাউল করেছেন দুই দলের ফুটবলাররা। ম্যাচের প্রথম মিনিটেই মোইজেজ কাইসেদোকে বাজে ফাউল করে হলুদ কার্ড দেখেন ব্রাজিলের এমারসন। এর রেশ যেন চলে পুরো ম্যাচজুড়ে।

যদিও ম্যাচের ষষ্ঠ মিনিটেই ব্রাজিলকে এগিয়ে দেন ক্যাসেমিরো। ফেলিপে কৌতিনিওর বলে হেড করেন ম্যাথিউস কুনহা। সেটা কর্নারের বিনিময়ে বাঁচান ইকুয়েডর গোলরক্ষক। কর্নারে বল পেয়ে ডান পায়ে গোলবারের কাছ থেকে নেওয়া শটে গোল করেন ক্যাসেমিরো।

ম্যাচের ২০তম মিনিটে এমারসন ফাউল করেন আরও একটি। দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়তে হয় তাকে। এটি হতে পারতো ইকুয়েডরের জন্য আশীর্বাদের। কিন্তু এর পাঁচ মিনিট আগেই লাল কার্ড পায় তারাও। 

প্রতিপক্ষের দুই খেলোয়াড়ের চ্যালেঞ্জ সামলে এগিয়ে যান ব্রাজিলের কুনহা। পোস্ট ছেড়ে বেরিয়ে বল ক্লিয়ার করতে শট নেন আলেকসান্দের ডমিঙ্গেজ। কিন্তু তা পা বলে তো লাগেইনি উল্টো ডি-বক্সের মুখে ছুটে আসা প্রতিপক্ষের গলায় বুট দিয়ে আঘাত করে বসেন তিনি। ভিএআরের সাহায্যে তাকে লাল কার্ড দেখান তিনি। 

২৬তম মিনিটে ব্রাজিল পড়েছিল আরও বড় বিপদে। ৯ জনের দল হতে বসেছিল তারা। প্রতিপক্ষের পাল্টা আক্রমণ রুখতে ডি-বক্স থেকে বের হয়ে শট নেন আলিসন। কিন্তু একটু পরই তার পা লাগে এনের ভ্যালেন্সিয়ার মাথায়। লাল কার্ড দেখান রেফারি। কিন্তু সেই সিদ্ধান্ত বদলে যায় ভিএআরের সাহায্যে। 

প্রথমার্ধে আর কোনো গোলের দেখা পায়নি দু দল। কয়েকটি আক্রমণ যদিও তৈরি হয়েছিল। প্রথমার্ধের শেষে ১০ মিনিট সময় যোগ করেন রেফারি। প্রথমার্ধে কিছুটা অগোছালো থাকলেও দ্বিতীয়ার্ধে বেশ ভালো কয়েকটি আক্রমণ করে ইকুয়েডর।
 
৭৫তম মিনিটে এসে গোলের দেখা পায় তারা। নসালা প্লাতার কর্নারে হেডে গোলটি করেন ফেলিক্স তোরেস। ম্যাচের শেষদিকে আর কেউ উল্লেখযোগ্য সুযোগ পায়নি। তবে নাটকীয়তা শেষ হয়নি তখনও। পাঁচ মিনিট যোগ করা অতিরিক্ত সময় টানতে হয় ১২ মিনিট পর্যন্ত। 

যোগ করা সময়ে এসে ব্রাজিলের গোলরক্ষক বল ক্লিয়ার করতে গিয়ে প্রতিপক্ষের মিডফিল্ডার প্রেসিয়াদোর মুখে আঘাত করেন। এরপর তাকে লাল কার্ড দেখান রেফারি, ইকুয়েডরকে দেন পেনাল্টি। কিন্তু সিদ্ধান্ত দুটিই পরে বদলে গেছে।

দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ব্রাজিল ১৪ ম্যাচে ১১ জয় ও তিন ড্রয়ে ৩৬ পয়েন্ট নিয়ে আছে শীর্ষে। ১৫ ম্যাচে সাত জয় ও তিন ড্রয়ে ২৪ পয়েন্ট নিয়ে তিনে আছে ইকুয়েডর।

ব্রাজিল   ইকুয়েডর  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন