ইনসাইড গ্রাউন্ড

মাদ্রিদকে হারিয়ে ফাইনালে রিয়ালের প্রতিপক্ষ বিলবাও

প্রকাশ: ০৮:১০ এএম, ১৪ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

স্প্যানিশ সুপার কাপের ফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গী হলো অ্যাথলেটিকো বিলবাও। দুর্দান্ত ভাবে ম্যাচ ফিরে অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদকে ২-১ গোলে হারিয়ে ফাইনালে পা রাখে বিলবাও। 

বৃহস্পতিবার রাতে সৌদি আরবের রিয়াদে দ্বিতীয় সেমিফাইনালে গোলরক্ষক ওনাই সিমোনের আত্মঘাতী গোলে পিছিয়ে যায় গেল আসরের চ্যাম্পিয়নরা। এরপর ইয়েরে আলভারেস দলকে সমতায় ফেরান। নিকো উইলিয়াসের করা গোলে জয় নিশ্চিত করে অ্যাথলেটিকো বিলবাও।

ম্যাচ শুরুর মাত্র ১৫ সেকেন্ডেই বিলবাওয়ের জালে বল জড়ান অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদের জোয়াও ফেলিক্স। তবে সেই অফসাইডের ফাঁদে পড়ে। এরপর প্রথমার্ধের পুরোটা সময় বল দখলে আধিপত্য ধরে রাখলেও গোলের দেখা পায়নি অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ।

দ্বিতীয়ার্ধের ৬২তম মিনিটে প্রতিপক্ষের গোলরক্ষকের আত্মঘাতী গোলে এগিয়ে যায় মাদ্রিদ। কর্নার কিকে ফেলিক্সের দুর্বল হেড পোস্টে লেগে গোলরক্ষকের পিঠ ছুঁয়ে জাল খুঁজে নেয়।

৭৭তম মিনিটে লোপেস দুর্দান্ত এক হেডে বিলবাওকে সমতায় ফেরান। এর তিন মিনিট পরই জয়সূচক গোলটি করেন উইলিয়ামস।

শিরোপা ধরে রাখার মিশনে আগামী রোববার রিয়াল মাদ্রিদের মুখোমুখি হবে বিলবাও। এর আগে বুধবার প্রথম সেমিফাইনালে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনাকে ৩-২ গোলে হারিয়ে ফাইনালে উঠে রিয়াল।

রিয়াল মাদ্রিদ   বিলবাও   অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

নেইমারবিহীন ব্রাজিল মাঠে নামছে আজ

প্রকাশ: ১১:১২ এএম, ২৭ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

লাতিন অঞ্চলের বাছাই পর্বের ম্যাচে রাতে মাঠে নামছে ব্রাজিল। দলটির তারকা ফুটবলার নেইমারকে ছাড়াই অপরাজিত থাকার লক্ষ্য নিয়ে মাঠে নামবে পাঁচবারের বিশ্বকাপজয়ীরা। উল্লেখ্য যে, ব্রাজিল বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে ২০১৫ সালের পর অপরাজিত টানা ৩০ ম্যাচ। 

ইকুয়েডরের বিপক্ষে আজকের ম্যাচটা সহজ হবে না ব্রাজিলের জন্য। কারণ, সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে দুই হাজার ৭০০ মিটার উঁচু রদ্রিগো পাজ দেলগাদো স্টেডিয়ামে  খেলতে হবে ব্রাজিলিয়ানদের। 

বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩টায় শুরু হবে ব্রাজিল-ইকুয়েডর ম্যাচটি।  পরিসংখ্যান অবশ্য ব্রাজিলের পক্ষেই।  ইকুয়েডরের বিপক্ষে টানা ১২ ম্যাচে হারেনি পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে দুর্দান্ত খেলা ভিনিসিয়ুস জুনিয়র খেলবেন এই ম্যাচে। ব্রাজিলের জার্সিতে ৯ ম্যাচে গোল পাননি তিনি। এই ম্যাচে ভিনিসিয়ুস গোলের দেখা পান কিনা সেটা দেখার বিষয়।

ব্রাজিল   ইকুয়েডর  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

গাড়ির জঞ্জালমুক্ত হচ্ছে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম

প্রকাশ: ১০:৫৯ এএম, ২৭ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম দেশের প্রধান ক্রীড়া ভেন্যু। দীর্ঘদিন ধরে এই স্টেডিয়াম চালু  থাকলেও এখনও পুরোপুরি ভাবে ক্রীড়াবান্ধব করে গড়ে তোলা যায়নি এই স্টেডিয়ামকে। বিশেষ করে স্টেডিয়ামের বাইরে গাড়ির জঞ্জাল দেখে বুঝা মুশকিল যে এখানে একটি স্টেডিয়াম আছে। দীর্ঘদিন পর হলেও সেই জঞ্জাল থেকে মুক্তি পেতে যাচ্ছে এই স্টেডিয়াম। 

পল্টন ও হকি স্টেডিয়ামের মাঝে গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা করা হলেও সেখানে পরে তৈরি হয় শেখ রাসেল রোলার স্কেটিং কমপ্লেক্স। ফলে যে যেভাবে খুশি সেভাবেই বাইরে গাড়ি পার্কিং করতো। নতুন করে ৮৫টি গাড়ি রাখা যায় এমন একটি আন্ডারগ্রাউন্ড পার্কিং তৈরি হচ্ছে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম চত্বরে।

বাংলাদেশ রোলার স্কেটিং ফেডারেশনের উদ্যোগে আন্ডারগ্রাউন্ড পার্কিংটা হবে শেখ রাসেল রোলার স্কেটিং কমপ্লেক্সের নিচে।
 
গত বছরের আগস্টে বাংলাদেশ রোলার স্কেটিং ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আহমেদ আসিফুল হাসান সেখানে আন্ডারগ্রাউন্ড পার্কিং, ডরমিটরি এবং কমপ্লেক্সে আরও কিছু কাজ করতে চিঠি দিয়েছিলেন জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের চেয়ারম্যান এবং যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল এমপিকে। সেই চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে ২ জানুয়ারি আন্ডারগ্রাউন্ড পার্কিং তৈরির নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়।

প্রায় ২৫ কোটি টাকা ব্যয়ে আন্ডারগ্রাউন্ড পার্কিং তৈরি ছাড়াও রোলার স্কেটিং কমপ্লেক্সে তৈরি করা হবে একটি ডরমিটরি। যেখানে অন্তত ২০০ শিশু-কিশোরকে রেখে স্কেটিং শেখানোর পাশাপাশি তাদের লেখাপড়া করাবে ফেডারেশন।

নতুন এই সংস্কারকাজের মধ্যে সেখানে একটি শেখ রাসেল জাদুঘর নির্মাণের পরিকল্পনাও আছে। শেখ রাসেলের স্মৃতিময় জিনিসপত্র সংরক্ষণ করা হবে ওই জাদুঘরে। কমপ্লেক্সের সামনে সৌন্দর্যবর্ধনের কাজও আছে নতুন এ সংস্কার পরিকল্পনায়।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

পাওয়েলের শতকে ইংল্যান্ডকে হারালো উইন্ডিজ

প্রকাশ: ১০:১৬ এএম, ২৭ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে ইংল্যান্ডকে ২০ রানের ব্যবধানে পরাজিত করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। রোভম্যান পাওয়েলের শতকের সুবাদে ২২৪ রানের বিশাল সংগ্রহ পায় ক্যারিবিয়ানরা। জবাবে ব্যান্টন-সল্টের অর্ধশতকের পরও ইংল্যান্ড থামে ২০৪ রানে।

বার্বাডোসে টস জিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে আগে ব্যাটিং করার জন্য আমন্ত্রণ জানায় ইংল্যান্ড। ইয়ন মরগানের অনুপস্থিতিতে ইংল্যান্ডকে এই ম্যাচে নেতৃত্ব মঈন আলি। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই ব্রেন্ডন কিংকে বোল্ড করেন জর্জ গার্টন। ১০ বলে ১০ রান করেন কিং। আরেক ওপেনার শাই হোপ শিকার হন লিয়াম লিভিংস্টোনের। দলীয় ৪৮ রানের মাথায় বিদায় নেন হোপ, তবে তখন তার ব্যক্তিগত সংগ্রহ ছিল কেবল ৬ বলে ৪ রান।

তৃতীয় উইকেট রীতিমতো টর্নেডো বইয়ে পাওয়েল ও নিকোলাস পুরান গড়েন ৬৬ বলে ১২২ রানের বড় জুটি। ৪৩ বলে ৭০ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে আদিল রশিদের শিকার হন পুরান। এই বাঁহাতি ব্যাটারের ইনিংসে ছিল চারটি চার ও পাঁচটি বাউন্ডারি। স্ট্রাইকরেট ১৬২.৭৯। চতুর্থ উইকেটে রোমারিও শেফার্ডকে নিয়ে ৪০ রানের জুটি গড়েন পাওয়েল, যেখানে শেফার্ডের অবদান ছিল ৪ বলে ১০ রান।

৫১ বলে তিন অঙ্ক স্পর্শ করেন পাওয়েল। এটি তার আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের প্রথম শতক। ক্রিস গেইল ও এভিন লুইসের পর তৃতীয় ক্যারিবিয়ান ক্রিকেটার হিসেবে এই শতক হাঁকালেন পাওয়েল। ৫৩ বলে ১০৭ রানের এক বিধ্বংসী ইনিংস খেলেন তিনি। তার ব্যাট থেকে চার আসে মাত্র চারটি, তবে পাওয়েল ছক্কা হাঁকান ১০টি। তার স্ট্রাইকরেট ছিল ২০১.৮৯।

শেফার্ড ৫ বলে ১১ রান ও কাইরন পোলার্ড ৪ বলে ৯ রানে অপরাজিত থাকেন। নির্ধারিত ২০ ওভারে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সংগ্রহ করে ৫ উইকেটে ২২৪ রান। রান বন্যার দিনেও আদিল রশিদ ৪ ওভারে একটি উইকেট নিয়ে খরচ করেন মাত্র ২৫ রান।

বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ইংল্যান্ডও ঝড়ো শুরু পায়। তবে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে সফরকারীরা। ১৬ বলে ১৯ রান করে বিদায় নেন জেসন রয়। ৯ বলে ১৬ রান করে সাজঘরের পথ ধরেন জেমস ভিঞ্চ। অধিনায়ক মঈন রানের খাতা খোলার আগেই প্রতিপক্ষ অধিনায়ক পোলার্ডের শিকার হন। লিয়াম লিভিংস্টোন ফেরেন ৯ বলে ১১ রান করে।

সতীর্থদের আসা-যাওয়ার মিছিল দেখতে দেখতে ওপেনার টম ব্যান্টনও আউট হয়ে যান। ইংলিশদের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭৩ রান করেন ব্যান্টন। তার ৩৯ বলের ইনিংসে ছিল ৩টি চার ও ৬টি ছক্কা। আরেক তরুণ ব্যাটার সল্ট ফিলিপও অর্ধশতক হাঁকান। মাত্র ২৪ বলে ৫৭ রান করেন সল্ট। তার ঝড়ো ইনিংসে ছিল ৩টি চার ও ৫টি ছক্কা।

আর কোনো ইংলিশ ক্রিকেটার প্রতিরোধ গড়তে ব্যর্থ হলে ইংলিশরা থামে ২০৪ রানে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে শেফার্ড তিনটি ও পোলার্ড দুইটি উইকেট শিকার করেন।

২০ রানের জয়ে ২-১ ব্যবধানে সিরিজে এগিয়ে গেল স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ম্যাচসেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছেন শতক হাঁকানো পাওয়েল।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ   ইংল্যান্ড  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

যুব বিশ্বকাপে প্রথম দল হিসেবে সেমিতে ইংল্যান্ড

প্রকাশ: ০৯:৫৬ এএম, ২৭ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে প্রথম দল হিসেবে সেমিফাইনালে পা রাখলো ইংল্যান্ড। দক্ষিণ আফ্রিকার যুবাদের বিপক্ষে ৬ উইকেটের বড় জয় পায় তারা। প্রোটিয়াদের দেয়া ২১০ রানের লক্ষ্যে ৩১.২ ওভারেই টপকে যায় ইংলিশরা। 

বুধবার দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে ব্যাট হাতে সফল ছিলেন 'বেবি ডি ভিলিয়ার্স' নামে পরিচিত ডেওয়াল্ড ব্রেভিস। দলের বাকিদের ব্যর্থতার ভিড়ে তিনি করেন ৮৮ বলে ৯৭ রান। উইকেটরক্ষক ব্যাটার জেরার্ডাস মারে ২৭ ও শেষ দিকে ম্যাথু বোস্ট খেলেন ২২ রানের ইনিংস। ইংল্যান্ডের পক্ষে ৪ উইকেট নেন লেগস্পিনার রেহান আহমেদ। এছাড়া জশ বয়ডেন ও জেমস সেলসের শিকার ২টি করে উইকেট।

পরে রান তাড়া করতে নেমে জ্যাকব বেথেল ও জর্জ থমাসের উদ্বোধনী জুটিতে ১০.৪ ওভারে ১১০ রান তুলে ফেলে ইংল্যান্ড। যেখানে থমাসের অবদান মাত্র ১৯ রান। ঝড় তোলা ব্যাটিংয়ে মাত্র ৪২ বলে ১৬ চার ও ২ ছয়ের মারে ৮৮ রান করে আউট হন বেথেল।

এমন উড়ন্ত শুরুর পর আর জয় নিয়ে কোনো সংশয় ছিল না। পাঁচ নম্বরে নামা উইলিয়াম লাক্সটনের ৪১ বলে ৪৭ রানের অপরাজিত ইনিংসে ১১২ বল হাতে রেখেই ম্যাচ জিতে নেয় ইংলিশরা। স্বাভাবিকভাবেই বেথেলের হাতে ওঠে ম্যাচসেরার পুরস্কার।

যুব বিশ্বকাপ   ইংল্যান্ড   দক্ষিণ আফ্রিকা  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

বিকল্প না থাকায় এখনও স্বপদে বহাল নান্নু?

প্রকাশ: ০৯:০০ এএম, ২৭ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

বর্তমানে বাংলাদেশের ক্রিকেটাঙ্গনে সমালোচিত ব্যক্তিদের একজন মিনহাজুল আবেদিন নান্নু। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের চরম ভরাডুবির পর শোনা গিয়েছিল বোর্ডে আসছে বড় পরিবর্তন। যার মধ্যে ছিল নির্বাচক প্যানেলে পরিবর্তন, হেড কোচ পরিবর্তনের কথাও। বিশ্বকাপে বাজে পারফরম্যান্সের পর তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েন  প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল অবেদিন নান্নু। সবাই ভেবে নিয়েছিল বিশ্বকাপের পরই এই পদে নতুন কাউকে বসাবে বিসিবি। অন্ততপক্ষে চলতি বছরে জানুয়ারির মধ্যে উক্ত পদে নতুন মুখ দেখার অপেক্ষায় ছিল ক্রিকেটপ্রেমীরা। কিন্তু সবাইকে অবাক করে দিয়ে সমালোচিত নান্নু এখনও নিজের স্বপদে বহাল রয়েছেন। বিসিবির ভাষ্যমতে, যোগ্য কাউকে না পাওয়ার কারণেই এখনই প্রধান নির্বাচক পদে পরিবর্তন আনা যাচ্ছে না। 

বিশ্বকাপের পর পর শোনা গিয়েছিল নান্নুর পরিবর্তে স্থলাভিষিক্ত হতে পারেন হাবিবুল বাশার সুমন। কিন্তু সেই পরিবর্তন আর হয়নি। বিশ্বকাপের পর পর যে রকম  সমালোচনা শুরু হয়েছিল সেটি এখন অনেকটা নিষ্প্রভ। আর তাই নান্নুও এখনও নিজের পদে রয়ে গিয়েছেন। বিসিবির এক সূত্রমতে, নান্নুর বিকল্প খুঁজে পাচ্ছে না বিসিবি। আর তাই এখনও তিনি স্বপদে বহাল। 

বোর্ডের দায়িত্বশীল একটি সূত্রে জানা গেছে, ‘শ্রেয়তর বিকল্পর খোঁজেই বর্তমান প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নুর পরিবর্তে গাজী আশরাফ হোসেন লিপু এবং ফারুক আহমেদের কথা ভেবেছিল বিসিবি। কিন্তু তাদেরকেও প্রধান নির্বাচকের দায়িত্ব দিতে পারছে না বিসিবি। তাদের মধ্য একজন দায়িত্ব গ্রহণে রাজি হননি, অন্যজন ব্যস্ত। 

মাঝে নান্নুকে সরিয়ে হাবিবুল বাশারকে নির্বাচক কমিটির প্রধান করার চিন্তা ছিল। আর হান্নান সরকারকে তৃতীয় নির্বাচক হিসেবে নেয়ার কথাও শোনা যাচ্ছিল। জানা গিয়েছিল, সেটাই হতে যাচ্ছে। কিন্তু তা নিয়েও এখন খানিক ধোঁয়াশে অবস্থা। নান্নুর জায়গায় হাবিবুল বাশারকে দায়িত্ব দিলেও নতুনের কেতন ওড়ে না। সেই পুরোন আদলই থেকে যায়।

কাজেই হাবিবুল বাশারের বদলে আর কাউকে দেয়া যায় কি না, তা খুঁটিয়ে দেখা হচ্ছে। কিন্তু সেখানেও বিপত্তি। বোর্ড এর ইচ্ছে জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক এবং ব্যক্তিত্বসম্পন্ন কাউকে প্রধান নির্বাচক করতে।

কিন্তু ওই কাতারে যারা আছেন- তাদের মধ্যে আকরাম খান, খালেদ মাহমুদ সুজন আর নাাঈমুর রহমান দুর্জয়ের মত জাতীয় দলের তিন সাবেক অধিনায়ক ইতিমধ্যেই বোর্ড পরিচালক। তাদেরকে তো আর মাসোহারা দিয়ে প্রধান নির্বাচক করা যায় না। জাতীয় দলের অপর সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা এখনো খেলছেন। তাই তাকে বিবেচনায় আনা যাচ্ছে না।

অন্যদিকে মোহাম্মদ আশরাফুলেরও রয়েছে ইমেজ সংকট। সব মিলিয়ে জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়কদের মধ্য থেকে কাউকে খুঁজে পাওয়া সত্যিই কঠিন হয়ে গেছে। তেমন কাউকে খুঁজে পাওয়াও যাচ্ছে না।

সব মিলিয়ে ইচ্ছায় কিংবা অনিচ্ছায় বিসিবি যদিও নান্নুকেই প্রধান নির্বাচক হিসেবে রেখে দেয় সেটিতে অবাক হওয়ার কিছু নেই। কারণ, বর্তমানে পরিস্থিতি আগের চেয়ে অনেকটা শান্ত। আর বিসিবিও পরিবর্তনে খুব একটা আগ্রহী নয়। একদিকে বিকল্প না পাওয়া, অন্যদিকে বিসিবির কম আগ্রহ সব মিলিয়ে নান্নু যেনো নিরাপদ জোনেই থাকছে। আপাত দৃষ্টিতে ধারণা করা হচ্ছে, আফগানিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টি সিরিজে মিনহাজুল আবেদিন নান্নু অ্যান্ড কোংই বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটারদের বাছাই করবেন।

মিনহাজুল আবেদিন নান্নু   বিসিবি   হাবিবুল বাশার   মোহাম্মদ আশরাফুল  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন