ইনসাইড গ্রাউন্ড

নাবিলের ক্রিকেটার হওয়ার গল্প

প্রকাশ: ০৪:৪৩ পিএম, ২৯ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail নাবিলের ক্রিকেটার হওয়ার গল্প

২০১১ বিশ্বকাপে মিরপুরের উদ্বোধনী ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের হার একজন শিশুর মনে দাগ কেটে গিয়েছিল। সেদিনের সেই ৮-৯ বছরের শিশুটি বর্তমান বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের টপ অর্ডার ব্যাটার প্রান্তিক নওরোজ নাবিল। সেদিন সেই হারের পর শিশু নাবিল সিদ্ধান্ত নেন, ক্রিকেটার হয়েই বাংলাদেশের এই লজ্জার বদলা তিনি নিবেন। এবং তিনি নিয়েছেনও। ২০২০ অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারতকে হারিয়েই শিরোপা জিতেছিলো তাঁর দল। যদিও সেই ম্যাচে নাবিল ছিলেননা একাদশে।

দুই বছর পর আরো একটি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ, আরো একটি বাংলাদেশ-ভারত ‘মহারণ’। এবার কোয়ার্টার ফাইনালে মুখোমুখি দুই দল। ম্যাচের আগে দেওয়া সাক্ষাৎকারে প্রান্তিক নওরোজ নাবিল বলেছেন তাঁর ক্রিকেটার হওয়ার অনুপ্রেরণার গল্প।

তিনি বলেন, “২০১১ বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচ ছিলো বাংলাদেশ বনাম ভারত- যা আমরা হেরে গিয়েছিলাম। এবং আমি জানিনা কখন আমার চোখ দিয়ে দু ফোঁটা অশ্রু গড়িয়ে পড়েছিলো। আমি বুঝেছিলাম ক্রিকেট আমার মজ্জায় গেঁথে আছে। এবং আমি বুঝে গিয়েছিলাম আমার জীবনে কি হতে হবে”

গত বিশ্বকাপে একাদশে জায়গা না পেলেও বিভিন্ন জায়গায় সাক্ষাৎকার দিয়ে বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের নজর কেড়েছিলেন প্রান্তিক নওরোজ নাবিল নিজের ইংরেজী বাগ্মীতা আর পরিণতিবোধ দিয়ে। এবার প্রান্তিক দলের একদম মূল ব্যাটারদের একজন। ওয়ান ডাউনে নেমে ইনিংস বিল্ড আপের কাজ করেন। বইপোকা নাবিল পড়াশোনাতেও ছিলেন খুব ভালো। ইংলিশ মিডিয়ামের ছাত্র নিজের সকল সম্ভাবনার বলিদান দিয়ে বেছে নিয়েছেন ক্রিকেটকে।

“আমি খুব ভালো ছাত্র ছিলাম। যখন আমি ক্রিকেট খেলি না তখন আমি বইয়ের সাগরে নিজেকে ডুবিয়ে রাখতে পছন্দ করি। এই অভ্যাসটা আমি গড়ে তুলেছি বলে আমি খুবই কৃতজ্ঞ নিজের প্রতি। কারণ পেশাদারভাবে ক্রিকেট খেলা শুরু করলে পড়াশোনার প্রতি সেই গুরুত্বটা দেওয়া সম্ভব হয়না।”

বাংলাদেশের হেড কোচ নাভিদ নেওয়াজও সাক্ষাৎকারে নাবিলের পরিণতিবোধ নিয়ে গেয়েছেন স্তুতি।

“যখনই আমরা কোন বিষয় নিয়ে কথা বলি সে খুব ঠান্ডা মাথায় শোনে। এমনকি নোট করে নেয়। এরপর বারবার সেই সমস্যা নিয়ে আমার কাছে ফিরে আসে। যখন আমি বাইরে থাকি সে আমাকে ভিডিও পাঠায় যে সব ঠিক আছে কিনা।”

ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশ মাঠে নামবে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭টায়।

নাবিল  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

তামিমের সেঞ্চুরিতে বড় সংগ্রহের পথে বাংলাদেশ

প্রকাশ: ০১:০৬ পিএম, ১৭ মে, ২০২২


Thumbnail

টেস্টে ব্যাট হাতে দারুণ ধারাবাহিক তামিম ইকবাল কেবল সেঞ্চুরির দেখাটাই পাচ্ছিলেন না। চট্টগ্রাম টেস্টে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সেই আক্ষেপে প্রলেপ দিলেন বাঁহাতি ওপেনার। দীর্ঘ ২৬ মাসের বেশি সময় পর সাদা পোশাক গায়ে চাপিয়ে তিন অঙ্কের স্বাদ পেলেন তিনি। এই ফরম্যাটে লঙ্কানদের বিপক্ষে এটি তার প্রথম শতক। তামিমের সেঞ্চুরিতে ভর করে বড় সংগ্রহের পথে হাঁটছে বাংলাদেশ। ৫২ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১ উইকেট হারিয়ে ১৬৯ রান।

ইনিংসের ৫১ম ওভারে শ্রীলঙ্কান পেসার অসিথা ফার্নান্দোকে মিড উইকেটে খেলে দৌড়ে ১ রান নিয়ে এই মাইলফলক স্পর্শ করেন তামিম। টেস্টে এটি তার ১০ নম্বর সেঞ্চুরি। এই ফরম্যাটে সবশেষ শতকটি করেছিলেন ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। এর মাঝে কেটে গেছে ১৬ ইনিংস। যেখানে ৬টি অর্ধশতক হাঁকালেও ম্যাজিক ফিগারের দেখা পাচ্ছিলেন না তিনি। ২৬ মাসের বেশি সময় পর সেই আক্ষেপ ঘুচলো তামিমের।

৮৯ রান নিয়ে মধ্যাহ্নভোজের বিরতিতে যান তামিম, সেখান থেকে ফিরেই সেঞ্চুরির কোটা পূর্ণ করেন। ৭৩ বলে ফিফটি করলেও পরের পঞ্চাশ করতে লেগেছে ৮৮ বল। সাকুল্য তামিমের এই শতক এসেছে ১৬২ বলে। যেখানে নেই কোনো ওভার বাউন্ডারি, চার মেরেছেন ১০টি।

এর আগে টেস্ট সংস্করণে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৭টি অর্ধশতক থাকলেও ছিল না কোনো শতক। লঙ্কনাদের বিরুদ্ধে এটি তামিমের প্রথম তিন অঙ্ক ছোঁয়া রান। আগে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ছিল ৯২ রান। এমনকি টেস্টে তামিমের পাকিস্তানের পর সবথেকে কম ব্যাটিং গড় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে।


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

বিনা উইকেটে দেড়শ রান পেরিয়ে ইনিংস বিরতিতে বাংলাদেশ

প্রকাশ: ১২:৩০ পিএম, ১৭ মে, ২০২২


Thumbnail বিনা উইকেটে দেড়শ রান পেরিয়ে ইনিংস বিরতিতে বাংলাদেশ

দীর্ঘ পাঁচ বছর পর টেস্ট ক্রিকেটে ওপেনিং জুটিতে শতরানের দেখা পেলো বাংলাদেশ দল। এই পাঁচ বছরে ৬২ ইনিংসে কোন শতরানের জুটি গড়ে তুলতে পারেনি কোন বাংলাদেশি ব্যাটার। তবে সেই আফসোস শ্রীলঙ্কা সাথে খেলায় গোচালেন তামিম ইকবাল ও মাহমুদুল হাসান জয়। আর সেই সাথে ১৫৭ রানে কোন উইকেট না হারিয়েই তৃতীয় দিনের প্রথম সেশনে বিরতিতে গেলো বাংলাদেশ দল। 

যদিও শত রানের ইনিংসে বাংলাদেশের দুই ব্যাটারের যত অবদান তার কোন অংশও কম পাবে না শ্রীলঙ্কার ফিল্ডাররাও। কিছু সহজ ক্যাচ মিস কাজে লাগাতে পারলে হয়ত বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ে ভিন্ন চেহারার দেখা পাওয়া যেতো। তবে তৃতীয় দিনের প্রথম ইনিংসের খেলা শেষ বাংলাদেশের দুই ব্যাটার তামিম ইকবাল ১৫২ বল মোকাবেলায় ৮৯ রান এবং মাহমুদুল হাসান জয় ১৩৪ বল মোকাবেলায় ৫৮ রানে অপরাজিত রয়েছেন। 

সকাল থেকেই শ্রীলঙ্কান বোলারদের বিপক্ষে দারুণ স্বাচ্ছন্দ্য তামিম ইকবাল ও মাহমুদুল হাসান। এই সেশনে টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ রানের মালিকও হয়েছেন তামিম। এই ইনিংসের আগে সর্বোচ্চ রান ছিল মুশফিকুর রহিমের। তামিম দাঁড়িয়ে ছিলেন ৪ হাজার ৮৪৮ রানে। মুশফিককে (৮১ টেস্টে ৪৯৩২) পেরিয়ে যেতে তামিমের দরকার ছিল ৮৪ রান। সেটি আজ তুলে ফেলেছেন বাঁ হাতি ব্যাটসম্যান। এই প্রতিবেদন লেখার সময় তামিম ১০ বাউন্ডারিতে ১৫২ বলে অপরাজিত ৮৯ রানে। মুশফিকের চেয়ে তিনি এগিয়ে গেছেন ৫ রানে।

তামিমকে দারুণ সঙ্গ দিচ্ছেন তরুণ মাহমুদুল হাসানও। তিনিও দেখেশুনে খেলছেন শ্রীলঙ্কান বোলারদের। মারার বলটাই মারছেন। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ফিফটিটি তুলে নিয়েছেন মাহমুদুলও। তিনি অপরাজিত ১৩৪ বলে ৫৮ রান নিয়ে। তাঁর ইনিংসে বাউন্ডারি ৯টি। তবে তাঁর ইনিংসে একটাই খুঁত রয়ে যাচ্ছে। আসিত ফার্নান্দোর বলে পুল করতে গিয়ে ফাইন লেগে লাসিথ এম্বুলদিনিয়াকে ক্যাচ দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সেটি ধরতে পারেননি এম্বুলদিনিয়া।

বাংলাদেশ   শ্রীলঙ্কা   টেস্ট  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

মেসির বার্সায় ফেরা নিয়ে যা বললো বার্সা

প্রকাশ: ০৯:৪৩ পিএম, ১৬ মে, ২০২২


Thumbnail মেসিকে নিয়ে যা বললো বার্সা

লিওনেল মেসির বার্সেলোনায় ফেরার গুঞ্জন গত রোববার আবারও উসকে দিয়ে তার বাবা হোর্হে মেসি জানিয়েছেন, কোনো একদিন মেসিকে ফিরতে দেখতে চান বার্সেলোনায়। এরপর থেকেই গুঞ্জন মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে আবার। এবার সেই প্রসঙ্গেই মুখ খুলেছেন বার্সার ফুটবল পরিচালক মাতেও আলেমানি।

আর্জেন্টাইন এই তারকার সঙ্গে বার্সেলোনার সম্পর্কটা ছিল ১৭ বছর দীর্ঘ। সেটা গেল বছরের আগস্টে শেষ হয়ে গেছে লা লিগার বেধে দেওয়া নিয়মের বেড়াজালে।

মেসিকে হারিয়ে বার্সেলোনা ধুঁকেছে চলতি মৌসুমে। ১৭ বছর পর খেলতে হয়েছে ইউরোপা লিগে। লা লিগা আর কোপা দেল রেতেও শিরোপা জিততে পারেনি দলটি। সব মিলিয়ে মেসির শূন্যতাটা বার্সা টের পেয়েছে ভালোভাবেই।

বার্সেলোনা ছেড়ে মেসিও ধুঁকেছেন বৈকি। সব প্রতিযোগিতায় ৩৩ ম্যাচ খেলে করেছেন মাত্র ১১ গোল, করিয়েছেন ১৩টি। যে কারণে পিএসজি তাকে দলে ভিড়িয়েছে, সেই চ্যাম্পিয়ন্স লিগের দেখা পাইয়ে দিতে পারেননি, উলটো দল প্রতিযোগিতা থেকে ছিটকে গেছে শেষ ষোলো থেকেই। আশানুরূপ পারফর্ম্যান্স না পেয়ে দর্শকদের দুয়োও শুনেছেন মেসি।

সব মিলিয়েই তার বার্সেলোনায় ফেরার গুঞ্জন শুরু হয় আবার। মেসি আগে ফেরার আশা ব্যক্ত করেছিলেন। এরপর বার্সেলোনা রাইটব্যাক ও মেসির সাবেক সতীর্থ দানি আলভেস তাকে ‘শেষ একটা নাচের’ জন্য ক্লাবে ফেরাতে চেয়েছিলেন। কোচ জাভিও বলেছিলে, ‘মেসির জন্য বার্সার দুয়ার খোলা সবসময়।’ সভাপতি হোয়ান লাপোর্তার কথাও ছিল জাভির মতোই। 

তবে মাঝে বিষয়টা অনেকটাই আলোচনার বাইরে চলে গিয়েছিল। যা আবারও আলোচনায় ফিরেছে গতকাল। মেসির বাবা ফিরেছেন বার্সেলোনায়, সেখানেই সাংবাদিকদের প্রশ্ন ধেয়ে যায় তার দিকে, তার একটা থাকে মেসির বার্সায় ফেরা প্রসঙ্গে। তিনি উত্তরে বলেন, ‘মেসি বার্সায় ফিরবে কি না? আশা করি, কোনো একদিন সে বার্সেলোনায় ফিরবে।’ 

হোর্হে শুধু মেসির বাবা হলে বিষয়টাকে নিছকই আবেগী কিছু বলে উড়িয়ে দেওয়া চলত। তবে তিনি যে মেসির এজেন্ট হিসেবেও কাজ করেন! সে কারণেই বাড়তি গুরুত্ব পেয়েছে বিষয়টি। 

স্প্যানিশ সংবাদ মাধ্যমে গুরুত্ব পেলেও তা বার্সার পরিচালক আলেমানির কাছে পৌঁছায়নি। অন্তত বার্সেলোনা এই কর্তা দাবি করেন এমন কিছুই। আজ সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এই প্রশ্নের মুখোমুখি হয়েছিলেন তিনি। এরপরই তার উত্তর আসে এমন। 

তিনি বলেন, ‘আমি এখনো বিবৃতিটা (মেসির বাবার) শুনিনি। আমার মতে, তারা যদি কিছু বলতে চায়, সেক্ষেত্রে তাদেরকে আমাদের সঙ্গেই কথা বলতে হবে।’

যদিও ইউরোপীয় দলবদল বিষয়ক খবরের সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য নাম ফ্যাব্রিজিও রোমানো সম্প্রতি জানিয়েছেন, এখনই পিএসজি ছাড়ার ইচ্ছে নেই সাবেক বার্সা অধিনায়কের। অন্তত চুক্তিটা শেষ করতে চান সেখানে, যা শেষ হবে ২০২৩ এর জুনে।


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

লাঞ্চের বিরতির পর সাকিবের জোড়া আঘাত

প্রকাশ: ০১:১১ পিএম, ১৬ মে, ২০২২


Thumbnail লাঞ্চের বিরতির পর সাকিবের জোড়া আঘাত

লাঞ্চ বিরতি থেকে ফেরার পর মাঠে নেমেই উইকেটের দেখা পেয়েছেন সাকিব আল হাসান। ওভারের দ্বিতীয় বলে রামেশ মেন্ডিসকে (১) বোল্ড করার পরের বলেই ব্যাট করতে নামা লাসিথ এমবুলদেনিয়াকে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পেলেন দেশসেরা এই অলরাউন্ডার। রিভিউ নিয়েও আউট এড়াতে পারেন নি।  

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ১২১ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ৩৪০ রান। ম্যাথিউস অপরাজিত আছেন ১৫৭ রানে।

এর আগে চট্টগ্রাম টেস্টের দ্বিতীয় দিনে ব্যাট করতে নেমে দারুণ শুরু করেন আগের দিন অপরাজিত থাকা শ্রীলঙ্কার দুই ব্যাটার অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস ও দিনেশ চান্দিমাল। ২০৮ বলে শতরানের জুটি পূর্ণ করেন তারা। এরপর বাংলাদেশের বিপক্ষে ক্যারিয়ারের তৃতীয় অর্ধশতকের দেখা পান চান্দিমাল। ১২৮ বলে তিনি পঞ্চাশ পূর্ণ করেন।

অর্ধশতক হাঁকিয়ে বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি চান্দিমাল। ১১৪তম ওভারে এসে প্রথম বলেই লঙ্কান এই ব্যাটারের উইকেট তুলে নেন নাঈম হাসান। এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়ে ৬৬ রানে বিদায় নেন চান্দিমাল। একই ওভারের পঞ্চম বলে ব্যাট করতে নামা নিরোশান ডিকওয়েলাকে ৩ রানে বিদায় করে বাংলাদেশকে স্বস্তি এনে দেন নাঈম। ৩২৭ রান নিয়ে দ্বিতীয় সেশন শেষ করে শ্রীলঙ্কা।  

এর আগে প্রথম দিন শেষে স্বাগতিকদের বিপক্ষে ৪ উইকেট হারিয়ে ২৫৮ রান সংগ্রহ করে শ্রীলঙ্কা। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস ১১৪ ও চান্দিমাল অপরাজিত ছিলেন ৩৪ রান করে। বাংলাদেশের পক্ষে নাঈম হাসান দুই আর তাইজুল ইসলাম ও সাকিব আল হাসান নিয়েছেন একটি করে উইকেট।


সাকিব   জোড়া আঘাত   সাকিব আল হাসান  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

দ্বিতীয় দিনেও নাঈমের জোড়া আঘাত, বাংলাদেশের স্বস্তি

প্রকাশ: ১২:১১ পিএম, ১৬ মে, ২০২২


Thumbnail দ্বিতীয় দিনেও নাঈমের জোড়া আঘাত, বাংলাদেশের স্বস্তি

চট্টগ্রাম টেস্টের দ্বিতীয় দিনে ব্যাট করতে নেমে আগের দিনের অপরাজিত থাকা শ্রীলঙ্কার দুই ব্যাটার অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস ও দিনেশ চান্দিমাল দারুণ শুরু করেন। ২০৮ বলে শতরানের জুটি পূর্ণ করেন তারা।

এরপর বাংলাদেশের বিপক্ষে ক্যারিয়ারের তৃতীয় অর্ধশতকের দেখা পান চান্দিমালও। ১২৮ বলে তিনি পঞ্চাশ পূর্ণ করেন।

যদিও অর্ধশতক হাঁকিয়ে বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি চান্দিমাল। ১১৪তম ওভারে এসে প্রথম বলেই লঙ্কান এই ব্যাটারের উইকেট তুলে নেন নাঈম হাসান। এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়ে ৬৬ রানে বিদায় নেন চান্দিমাল। একই ওভারের পঞ্চম বলে ব্যাট করতে নামা নিরোশান ডিকওয়েলাকে ৩ রানে বিদায় করে বাংলাদেশকে স্বস্তি এনে দেন নাঈম।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ১১৪ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ৩২৪ রান। ম্যাথিউস ১৪৫ ও রামেশ মেন্ডিস ০ রানে অপরাজিত আছেন।

এর আগে প্রথম দিন শেষে স্বাগতিকদের বিপক্ষে ৪ উইকেট হারিয়ে ২৫৮ রান সংগ্রহ করে শ্রীলঙ্কা। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস ১১৪ ও চান্দিমাল অপরাজিত ছিলেন ৩৪ রান করে। বাংলাদেশের পক্ষে নাঈম হাসান দুই আর তাইজুল ইসলাম ও সাকিব আল হাসান নিয়েছেন একটি করে উইকেট।

নাঈম   জোড়া আঘাত   বাংলাদেশ  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন