ইনসাইড গ্রাউন্ড

দলে ফেরার আশা ছাড়েননি আল-আমিন

প্রকাশ: ০৫:৪৭ পিএম, ১৪ Jun, ২০২২


Thumbnail দলে ফেরার আশা ছাড়েননি আল-আমিন

করোনাকালের ঠিক আগে সবশেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচটা খেলেছেন পেসার আল-আমিন হোসেন। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজে খেলেছিলেন একটি করে ম্যাচ। সেই শেষ। এরপর থেকে জাতীয় দলে আর জায়গা হয়নি পেসার আল-আমিন হোসেনের। চোট নিয়ে দীর্ঘসময় দলের বাইরে ছিলেন। 

এরপর তো বাংলাদেশ দলে রীতিমতো ‘পেস বিপ্লবই’ হয়ে গেছে। আল আমিনের ভাষায়, “এখন বাংলাদেশে পেস বোলিং বিপ্লব চলছে। ৩-৪টা করে পেস বোলার খেলে। যারা বাইরে আছে তারাও খুব ভালো করছে”’ এই কারণে আল আমিনের ফেরার পথটা হয়ে যায় বন্ধ। তবে নিজেকে প্রমাণ করে শিগগিরই আল আমিন ফিরতে চান জাতীয় দলে, গায়ে চড়াতে চান লাল সবুজের জার্সি।  

এক সময় জাতীয় দলে নিয়মিত মুখ ছিলেন। তবে দল থেকে বাদ পড়ে এখন আবার নিজেকে তিনি দেখছেন অভিষেকের আগের অবস্থায়। তখন যেমন পারফর্ম করে জায়গা করে নিয়েছিলেন জাতীয় দলে, এখন ঠিক একইভাবে দলে ফিরতে চান তিনি।

মিরপুরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এমনটাই জানান আল-আমিন। বলেন, “ক্রিকেট খেলতে হলে জাতীয় দলের মত জাতীয় দলের বাইরেও খেলতে হবে। এটাই আসলে জীবন। যখন জাতীয় দলে খেলিনি তখন তো বাইরে পারফর্ম করেই দলে ঢুকেছি। ইঞ্জুরির কারণে জাতীয় দলে ছিলাম না। চেষ্টা করছি পারফর্ম করে কীভাবে আবার কামব্যাক করা যায়।”
 
জাতীয় দলের বাইরে থাকা পেসারদের নিয়ে হচ্ছে ক্যাম্প। সেখানে নিজের ভুল ত্রুটি শুধরে নিয়ে তিনি স্কিলে মনোযোগ দিচ্ছেন আপাতত। বললেন, ‘খুব ভালো একটা প্র্যাকটিসের ব্যবস্থা হয়েছে, ক্রিকেট বোর্ডকে ধন্যবাদ জানাই। আমরা যারা জাতীয় দলের সাথে সংযুক্ত নেই তাদেরকে নিয়ে ক্যাম্পে স্থানীয় কোচ তালহা ভাই, নাজমুল ভাইরা খুব ভালো কাজ করছেন। অনেক দিন ধরে হয়ত আমরা খেলছি কিন্তু নিজেদের ভুলভ্রান্তি ধরতে পারছিলাম না। এখানে ভিডিও হচ্ছে, যার যে সমস্যা সেটা নিয়ে নির্দিষ্ট করে কাজ হচ্ছে।’ 

তিনি আরও বলেন, “যখন ম্যাচের মধ্যে ঢুকব তখন উইকেটের চিন্তা করা উচিৎ। আমাদের এখানে স্কিল নিয়েই মূলত কাজ হচ্ছে। কারও আউটসুইং ভালো, কারও ইনসুইং কম, ইয়র্কার, কারও বোলিং করার সময় বডি বাঁকা হয়... স্কিলের সমস্যাগুলো নিয়েই ক্যাম্প হচ্ছে।”

স্কিল ক্যাম্প চলছে এখন, এরপর এ দলের প্রস্তুতি ম্যাচ। দুই পর্ব শেষ করে বাংলাদেশ ‘এ’ দল যাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে। তবে এত দূরের ভাবনা আপাতত আল-আমিন করছেন না। জানালেন, ‘সামনে ‘এ’ দলের ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর আছে। এখন এটা নিয়ে চিন্তা করছি না। স্কিল ক্যাম্পের পর প্রস্তুতি ম্যাচ আছে। নির্বাচকরা সুযোগ দিলে চিন্তা করা যাবে।’ 

জাতীয় দল বর্তমানে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে আছে। সেখানে সাফল্যের পূর্বশর্ত কী? আল-আমিন জানালেন, ‘আমার কাছে মনে হয় ওদের পেস বোলিংয়ের চেয়ে আমাদের পেস বোলিং অভিজ্ঞতায় অনেক এগিয়ে। দেশের বাইরে চ্যালেঞ্জ সবসময় ব্যাটারদের। দক্ষিণ আফ্রিকাতে পেসার স্পিনাররা ভালোই করেছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজে ব্যাটাররা ভালো করলে ফলাফল আমাদের পক্ষে আসবে।’


আল-আমিন   বাংলাদেশ   ক্রিকেট  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

দ্বিতীয় ম্যাচে আমরা আরও উন্নতি করবো: ডোমিঙ্গো

প্রকাশ: ১১:৩১ এএম, ০৩ Jul, ২০২২


Thumbnail

ডোমিনিকার উইন্ডসর পার্কে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি পরিত্যক্ত হওয়ার আগে ১৩ ওভার ব্যাটিং করে ৮ উইকেট হারিয়ে ১০৫ রান সংগ্রহ করেছিল বাংলাদেশ। ব্যাটারদের মধ্যে দুই অঙ্কের ঘরে গেছেন কেবল এনামুল হক বিজয় (১০ বলে ১৬), সাকিব আল হাসান (১৫ বলে ২৯) ও নুরুল হাসান সোহান (১৬ বলে ২৫)।

কোনো বিরতি না দিয়ে রোববার (০৩ জুলাই) দ্বিতীয় ম্যাচে মাঠে নামবে দুই দল। এই ম্যাচে বাকিরাও ভালো খেলবে বলে আশাবাদী টাইগারদের হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো। 

বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত প্রথম ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলন তিনি বলেন, ‘যা হলো (পরিত্যক্ত) সেটি আদর্শ নয়। তবে এটি দুই দলের জন্যই সমান। দুই দলকেই এটির মধ্য দিয়ে যেতে হচ্ছে। আমরা আগে বল করলে ভালো হতো। কিন্তু টস হেরে গিয়েছিলাম। এটি খেলারই অংশ।’

ডোমিঙ্গো আরও বলেন, ‘দ্বিতীয় ম্যাচে আমরা আরও উন্নতি করবো। আমাদের বেশ কয়েকজন খেলোয়াড় কয়েক সপ্তাহ পর খেলতে নেমেছে। মাহমুদউল্লাহ, আফিফ দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের পর প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের হয়ে খেললো। যেটা কয়েক মাস হয়ে গেছে। তো তারা আরও ভালো করবে।’

ডোমিঙ্গো   টি-টোয়েন্টি   টাইগার  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

হজ পালন করতে সৌদি আরবে মুশফিক

প্রকাশ: ১০:০২ এএম, ০৩ Jul, ২০২২


Thumbnail হজ পালন করতে সৌদি আরবে মুশফিক

চলতি বছরের হজ পালন করতে সৌদি আরবে যাচ্ছেন মুশফিক, তা আগেই জানা গিয়েছিল। শনিবার (০২ জুলাই) তিনি হজ পালন করতে সৌদি আরবে পৌঁছেছেন। সেখানে গিয়ে বিষয়টি ফেসবুকে জানিয়ে সবার দোয়া চেয়েছেন তিনি।  

শুক্রবার (০১ জুলাই) মুশফিক সৌদি আরবের উদ্দেশ্যে রওয়ানা করেন। পবিত্র হজ পালনের প্রধান শর্ত, ইহরাম বাধা অবস্থায় ছবি প্রকাশ করেছেন তিনি। ছবিতে দেখা যায় তার অবস্থানটা কাবা শরিফের ঠিক সামনে। এর আগে বাংলাদেশের সাবেক এই অধিনায়ক ওমরাহ পালন করলে হজ পালন করছেন এবারই প্রথম।

এই হজ পালনের জন্য দলের সঙ্গে উইন্ডিজ যাত্রায় যোগ দেননি তিনি। ছুটি পেয়েছেন। তাকে ছাড়া অবশ্য দলের পরিস্থিতি খুব একটা ভালো নয়। দুই টেস্টের সিরিজ, আর প্রথম টি-টোয়েন্টিতে এর ছাপ পড়েছে বেশ ভালোই। দল ব্যাটিং ব্যর্থতার মধ্য দিয়েই পার করছে সময়।

হজের জন্য দেশ ছাড়ার আগে অবশ্য ব্যস্ত সময় পার করেছেন তিনি। ব্যক্তিগত কাজ, ফিটনেস নিয়ে কাজ করেছেন তিনি। এছাড়াও মেটলাইফ ইনসুরেন্স কোম্পানি আর নগদ ইসলামিকের শ্যুটিং করছেন তিনি। ঈদের আগে টিভিতে সম্প্রচার হবে দুটি বিজ্ঞাপনই।

হজ   পালন   সৌদি আরব   মুশফিক  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

বৃষ্টির বাগড়ায় বাংলাদেশ-উইন্ডিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচ পরিত্যক্ত

প্রকাশ: ০৮:১২ এএম, ০৩ Jul, ২০২২


Thumbnail

বাংলাদেশ-উইন্ডিজের মধ্যকার টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচটি ডমিনিকার জন্য ছিল একটি উৎসবের মতো। দীর্ঘ প্রায় পাঁচ বছর পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরেছিল ডমিনিকায়। তবে বৃষ্টিতে শেষ হতে পারলো না ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচটি। প্রায় পৌনে দুই ঘণ্টা পর শুরু হওয়া ম্যাচটি প্রথমে নেমে আসে ১৬ ওভারে, এরপর ১৪ ওভারে।

তবে বাংলাদেশ ইনিংসের ১৩তম ওভার শেষ হওয়ার পরই আবার নামে বৃষ্টি। এরপর রোদ দেখা গেলেও ওয়েস্ট ইন্ডিজ ইনিংস শুরু হয়নি আর। টি-টোয়েন্টিতে ফল আনতে কমপক্ষে যে ৫ ওভার খেলা হতে হয়, সেটির জন্য পর্যাপ্ত সময় ছিল না বলে জানিয়েছেন আম্পায়াররা। এ মাঠে কৃত্রিম আলোরও ব্যবস্থাও নেই। ফলে উইন্ডিজের ইনিংসটি আর মাঠে গড়ায়নি।

বৃষ্টি বাধার আগে বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ের চিত্রটা অবশ্য উপভোগ্য ছিল না তেমন। সেটি রঙ বদলেছে বার বার, খানিকটা ডমিনিকার আকাশের মতোই। সাকিব আল হাসানের ১৫ বলে ২৯ রানের ঝোড়ো ইনিংসে বেশ ভালো একটা ভিত পেলেও বাংলাদেশ পথ হারায় এরপর— ৬.১ ওভারে ২ উইকেটে ৫৬ রান থেকে ১১তম ওভারে পরিণত হয় ৭৭ রানে ৭ উইকেটে। আগেভাগেই গুটিয়ে যাওয়ার শঙ্কা তখন বাংলাদেশের, সেটি হয়নি মূলত নুরুল হাসানের কারণেই। ১৬ বলে ২৫ রানের ইনিংসে বাংলাদেশকে ১০০ পার করান তিনি।

টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ইনিংসের তৃতীয় বলেই ফেরেন মুনিম শাহরিয়ার, আকিল হোসেনের ঝুলিয়ে দেওয়া বলে আগবাড়িয়ে খেলতে গিয়ে ব্যাটের কানায় লেগে উইকেটকিপারের হাতে ধরা পড়েন নিজের তৃতীয় আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা মুনিম। তাঁর সঙ্গে ওপেনিংয়ে আসা সাত বছর পর আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি খেলতে নামা এনামুলের শুরুটা ইতিবাচকই হয়, আকিলকে কাট করে চার মারার পর শেফার্ডকে ডাউন দ্য লেগের বলে মারেন আরেকটি। তবে ১০ বলে ১৬ রান করে ওবেদ ম্যাকয়ের ফুললেংথের বল মিস করে এলবিডব্লু হন তিনি, রিভিউ নিলেও শেষরক্ষা হয়নি তাঁর। 

এনামুল ও মুনিমকে হারালেও সাকিবের দারুণ ব্যাটিংয়ে পাওয়ারপ্লের ৫ ওভারে বাংলাদেশ তোলে ৪৬ রান। ওই সময়ে ৭টি চারের সঙ্গে আসে ১টি ছক্কা। 

চারে নামা লিটন দাস অবশ্য নড়বড়ে ছিলেন শুরু থেকেই। দুইটি বাউন্ডারি মেরেছিলেন, তবে নিয়ন্ত্রণ ছিল না। স্ট্রাইক বদলাতেও হিমশিম খাচ্ছিলেন তিনি। অবশেষে সপ্তম ওভারে রোমারিও শেফার্ডের ধীরগতির শর্ট বলে তুলে মারতে গিয়ে শর্ট মিডউইকেটে উইন্ডিজ অধিনায়ক নিকোলাস পুরানের হাতে ধরা পড়েন লিটন, ১৪ বলে ৯ রান করে। ৫৬ রানে বাংলাদেশ হারায় তৃতীয় উইকেট। 

অন্যদিকে ক্রিজে আসার পর থেকেই আক্রমণ শুরু করেন সাকিব, শেফার্ডকে কাট করে মারা চার দিয়ে। স্লটে পেয়ে আকিল হোসেনকে কাউ কর্নার দিয়ে মারেন ম্যাচের প্রথম ছয়, পরে হেইডেন ওয়ালশ জুনিয়রকেও ‘স্বাগত’ জানান ছয় মেরে। অবশ্য সেই ওয়ালশের বলেই ফিরতে হয় তাঁকে। অষ্টম ওভারে অফ স্টাম্পের বাইরের গুগলিকে তাড়া করতে গিয়ে কট-বিহাইন্ড হন তিনি ১৫ বলে ২৯ রান করে। ইনিংসে মারেন ২টি করে চার ও ছক্কা। 

সাকিব আউট হওয়ার এক বল পরই আবার নামে বৃষ্টি। প্রায় আধঘণ্টার মতো তাতে বন্ধ ছিল খেলা। বিরতির পর পথ হারাতে শুরু করে বাংলাদেশও। প্রথম বলেই হেইডেন ওয়ালশকে তুলে মারতে গিয়ে ক্যাচ দেন আফিফ হোসেন, কোনো রান না করেই। অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ ঠিক ছন্দে ছিলেন না, আফিফ ফেরার ২ ওভার পর রোমারিও শেফার্ডের বল তাড়া করতে গিয়ে ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে ধরা পড়েন ১৩ বলে ৮ রান করে। ওই ওভারের পঞ্চম বলে কট-বিহাইন্ড হন মেহেদী হাসান, ওয়েস্ট ইন্ডিজ সে উইকেট পায় রিভিউ নিয়ে। 

টেস্ট সিরিজের মতো আবার লড়াই করেন এরপর নুরুল হাসান। ওবেদ ম্যাকয়কে চারের পর ওডিন স্মিথের ৩ বলের ব্যবধানে মারেন ২টি ছয়—ফাইন লেগের পর মিডউইকেট দিয়ে। অবশ্য এরপর গতি কমিয়ে অফ স্টাম্পের বাইরে করেন স্মিথ, সেটি ঘুরিয়ে খেলতে গিয়ে ধরা পড়েন নুরুল। ১৩তম ওভার শেষ হওয়ার পর আবার নামে বৃষ্টি। নাসুম অপরাজিত ছিলেন ৪ বলে ৭ রান করে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের সব বোলারই নিয়েছেন উইকেট। ২১ রানে ৩ উইকেট নিয়ে সেরা বোলার শেফার্ড, ২৪ রানে ২ উইকেট নিয়েছেন হেইডেন ওয়ালশ জুনিয়র। 

বৃষ্টি   বাংলাদেশ   উইন্ডিজ   টি-টোয়েন্টি   পরিত্যক্ত  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

টানা চতুর্থবার সাফের প্রেসিডেন্ট হলেন কাজী সালাউদ্দিন

প্রকাশ: ০৫:৫৪ পিএম, ০২ Jul, ২০২২


Thumbnail টানা চতুর্থবার সাফের প্রেসিডেন্ট হলেন কাজী সালাউদ্দিন

আবরও সাউথ এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশনের (সাফ) প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি কাজী মোহাম্মদ সালাউদ্দিন। এই নিয়ে টানা চতুর্থবার সাফের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হলেন তিনি।

শনিবার (২ জুলাই) রাজধানীর একটি ৫ তারকা হোটেলে সাফের কংগ্রেস শেষে সভাপতি হিসেবে সালাউদ্দিনের নাম ঘোষণা করেন সাফের সেক্রেটারি আনওয়ারুল হক হেলাল। 

সাফের বাকি ছয় দেশ থেকে কেউ মনোনয়নপত্র জমা না দেওয়ায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সাফের প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন সালাউদ্দিন। তবে সব দেশের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে হওয়া কংগ্রেসে চূড়ান্ত ঘোষণা চলে এলো। 

২০০৯ থেকে সালাউদ্দিনের অধীনে সাফের ২২টি টুর্নামেন্ট হয়েছে। তার মধ্যে ৬টি সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ। এ ছাড়া ৫টি নারী চ্যাম্পিয়নশিপ।

উল্লেখ্য, ২০০৯ সাল থেকে এখন পর্যন্ত টানা দক্ষিণ এশিয়ান ফুটবলের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন সাবেক এই তারকা ফুটবলার। 



মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

ব্রডের এক ওভারে ৩৫ রান, বুমরাহর বিশ্বরেকর্ড

প্রকাশ: ০৫:৩৮ পিএম, ০২ Jul, ২০২২


Thumbnail

ভারতের বিপক্ষে খেলতে এলেই যেন কী যেন হয়ে যায় স্টুয়ার্ট ব্রডের। ২০০৭ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে যুবরাজ সিংয়ের কাছে হজম করেছিলেন ছয় ছক্কা। এবার এজবাস্টন টেস্টে ছয় ছক্কা হজম না করলেও লজ্জার এক বিশ্বরেকর্ড গড়ে বসেছেন তিনি। এক ওভারে হজম করেছেন ৩৫ রান, যার ২৯ এসেছে ভারতীয় অধিনায়ক যশপ্রীত বুমরাহর ব্যাট থেকে। তাতে ইতিহাসের পাতায় উঠে গেছেন ভারতীয় এই ব্যাটসম্যানও।

আজ শনিবার ভারতীয় ইনিংসের ৮৪তম ওভারে ইংলিশ অধিনায়ক বেন স্টোকস বল তুলে দিয়েছিলেন ব্রডের হাতে। সেই ওভার করতে এসে ব্রড হজম করেন ৪ টি চার আর ২ টি ছক্কা। প্রথম বলেই চার হাঁকান বুমরাহ। এরপরের বলটা হলো ওয়াইড, বল পেরিয়ে গেল সীমানাদড়ি, ভারত পেল ৫ রান।

এর পরের বলটা ওভার স্টেপের কারণে হলো নো বল, বুমরাহ ছক্কা আদায় করলেন তা থেকে। একটি বৈধ বল করেই ব্রড দিয়ে বসেন ১৬ রান, বিশ্বরেকর্ডের সম্ভাবনা মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছিল তখনই।  

পরের তিনটি বৈধ বল থেকে বুমরাহ হাঁকালেন ছক্কা। দুই বল হাতে রেখেই টেস্টে এক ওভারে সর্বোচ্চ রান তোলার বিশ্বরেকর্ড গড়া হয়ে যায় তাতে। পঞ্চম বলে ছক্কা হাঁকিয়ে বসেন বুমরাহ। পরের বলে এক রানসহ রেকর্ডটা গিয়ে ঠেকে ৩৫ রানে।

এর আগে এক ওভারে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডটা ছিল যৌথভাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্রায়ান লারা, অস্ট্রেলিয়ার জর্জ বেইলি আর দক্ষিণ আফ্রিকার কেশভ মহারাজের দখলে। ২০০৩-০৪ মৌসুমে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে চারটি চার আর দুইটি ছক্কায় এই রেকর্ড গড়েছিলেন লারা।

২০১৩-১৪ মৌসুমে বেইলি রেকর্ডটা ছুঁয়েছিলেন জেমস অ্যান্ডারসনের এক ওভারে তিন ছক্কা আর দুই চার মেরে। মহারাজের রেকর্ডটা বেশিদিন আগের নয়। সেটাও এসেছিল ব্রডের এক ওভারেই। ২০১৯-২০ মৌসুমে ইংল্যান্ডের দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে মহারাজ ব্রডের এক ওভারে নিয়েছিলেন ২৮ রান।


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন