ইনসাইড গ্রাউন্ড

বৃষ্টির বাগড়ায় বাংলাদেশ-উইন্ডিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচ পরিত্যক্ত

প্রকাশ: ০৮:১২ এএম, ০৩ জুলাই, ২০২২


Thumbnail

বাংলাদেশ-উইন্ডিজের মধ্যকার টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচটি ডমিনিকার জন্য ছিল একটি উৎসবের মতো। দীর্ঘ প্রায় পাঁচ বছর পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরেছিল ডমিনিকায়। তবে বৃষ্টিতে শেষ হতে পারলো না ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচটি। প্রায় পৌনে দুই ঘণ্টা পর শুরু হওয়া ম্যাচটি প্রথমে নেমে আসে ১৬ ওভারে, এরপর ১৪ ওভারে।

তবে বাংলাদেশ ইনিংসের ১৩তম ওভার শেষ হওয়ার পরই আবার নামে বৃষ্টি। এরপর রোদ দেখা গেলেও ওয়েস্ট ইন্ডিজ ইনিংস শুরু হয়নি আর। টি-টোয়েন্টিতে ফল আনতে কমপক্ষে যে ৫ ওভার খেলা হতে হয়, সেটির জন্য পর্যাপ্ত সময় ছিল না বলে জানিয়েছেন আম্পায়াররা। এ মাঠে কৃত্রিম আলোরও ব্যবস্থাও নেই। ফলে উইন্ডিজের ইনিংসটি আর মাঠে গড়ায়নি।

বৃষ্টি বাধার আগে বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ের চিত্রটা অবশ্য উপভোগ্য ছিল না তেমন। সেটি রঙ বদলেছে বার বার, খানিকটা ডমিনিকার আকাশের মতোই। সাকিব আল হাসানের ১৫ বলে ২৯ রানের ঝোড়ো ইনিংসে বেশ ভালো একটা ভিত পেলেও বাংলাদেশ পথ হারায় এরপর— ৬.১ ওভারে ২ উইকেটে ৫৬ রান থেকে ১১তম ওভারে পরিণত হয় ৭৭ রানে ৭ উইকেটে। আগেভাগেই গুটিয়ে যাওয়ার শঙ্কা তখন বাংলাদেশের, সেটি হয়নি মূলত নুরুল হাসানের কারণেই। ১৬ বলে ২৫ রানের ইনিংসে বাংলাদেশকে ১০০ পার করান তিনি।

টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ইনিংসের তৃতীয় বলেই ফেরেন মুনিম শাহরিয়ার, আকিল হোসেনের ঝুলিয়ে দেওয়া বলে আগবাড়িয়ে খেলতে গিয়ে ব্যাটের কানায় লেগে উইকেটকিপারের হাতে ধরা পড়েন নিজের তৃতীয় আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা মুনিম। তাঁর সঙ্গে ওপেনিংয়ে আসা সাত বছর পর আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি খেলতে নামা এনামুলের শুরুটা ইতিবাচকই হয়, আকিলকে কাট করে চার মারার পর শেফার্ডকে ডাউন দ্য লেগের বলে মারেন আরেকটি। তবে ১০ বলে ১৬ রান করে ওবেদ ম্যাকয়ের ফুললেংথের বল মিস করে এলবিডব্লু হন তিনি, রিভিউ নিলেও শেষরক্ষা হয়নি তাঁর। 

এনামুল ও মুনিমকে হারালেও সাকিবের দারুণ ব্যাটিংয়ে পাওয়ারপ্লের ৫ ওভারে বাংলাদেশ তোলে ৪৬ রান। ওই সময়ে ৭টি চারের সঙ্গে আসে ১টি ছক্কা। 

চারে নামা লিটন দাস অবশ্য নড়বড়ে ছিলেন শুরু থেকেই। দুইটি বাউন্ডারি মেরেছিলেন, তবে নিয়ন্ত্রণ ছিল না। স্ট্রাইক বদলাতেও হিমশিম খাচ্ছিলেন তিনি। অবশেষে সপ্তম ওভারে রোমারিও শেফার্ডের ধীরগতির শর্ট বলে তুলে মারতে গিয়ে শর্ট মিডউইকেটে উইন্ডিজ অধিনায়ক নিকোলাস পুরানের হাতে ধরা পড়েন লিটন, ১৪ বলে ৯ রান করে। ৫৬ রানে বাংলাদেশ হারায় তৃতীয় উইকেট। 

অন্যদিকে ক্রিজে আসার পর থেকেই আক্রমণ শুরু করেন সাকিব, শেফার্ডকে কাট করে মারা চার দিয়ে। স্লটে পেয়ে আকিল হোসেনকে কাউ কর্নার দিয়ে মারেন ম্যাচের প্রথম ছয়, পরে হেইডেন ওয়ালশ জুনিয়রকেও ‘স্বাগত’ জানান ছয় মেরে। অবশ্য সেই ওয়ালশের বলেই ফিরতে হয় তাঁকে। অষ্টম ওভারে অফ স্টাম্পের বাইরের গুগলিকে তাড়া করতে গিয়ে কট-বিহাইন্ড হন তিনি ১৫ বলে ২৯ রান করে। ইনিংসে মারেন ২টি করে চার ও ছক্কা। 

সাকিব আউট হওয়ার এক বল পরই আবার নামে বৃষ্টি। প্রায় আধঘণ্টার মতো তাতে বন্ধ ছিল খেলা। বিরতির পর পথ হারাতে শুরু করে বাংলাদেশও। প্রথম বলেই হেইডেন ওয়ালশকে তুলে মারতে গিয়ে ক্যাচ দেন আফিফ হোসেন, কোনো রান না করেই। অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ ঠিক ছন্দে ছিলেন না, আফিফ ফেরার ২ ওভার পর রোমারিও শেফার্ডের বল তাড়া করতে গিয়ে ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে ধরা পড়েন ১৩ বলে ৮ রান করে। ওই ওভারের পঞ্চম বলে কট-বিহাইন্ড হন মেহেদী হাসান, ওয়েস্ট ইন্ডিজ সে উইকেট পায় রিভিউ নিয়ে। 

টেস্ট সিরিজের মতো আবার লড়াই করেন এরপর নুরুল হাসান। ওবেদ ম্যাকয়কে চারের পর ওডিন স্মিথের ৩ বলের ব্যবধানে মারেন ২টি ছয়—ফাইন লেগের পর মিডউইকেট দিয়ে। অবশ্য এরপর গতি কমিয়ে অফ স্টাম্পের বাইরে করেন স্মিথ, সেটি ঘুরিয়ে খেলতে গিয়ে ধরা পড়েন নুরুল। ১৩তম ওভার শেষ হওয়ার পর আবার নামে বৃষ্টি। নাসুম অপরাজিত ছিলেন ৪ বলে ৭ রান করে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের সব বোলারই নিয়েছেন উইকেট। ২১ রানে ৩ উইকেট নিয়ে সেরা বোলার শেফার্ড, ২৪ রানে ২ উইকেট নিয়েছেন হেইডেন ওয়ালশ জুনিয়র। 

বৃষ্টি   বাংলাদেশ   উইন্ডিজ   টি-টোয়েন্টি   পরিত্যক্ত  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

আমিরাতের নতুন টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক রিজওয়ান

প্রকাশ: ০৬:১২ পিএম, ১৯ অগাস্ট, ২০২২


Thumbnail

নতুন টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক হিসেবে চুনদাঙ্গাপোয়িল রিজওয়ানকে বেছে নিয়েছে আরব আমিরাত। বাঁহাতি স্পিনার আহমেদ রাজার জায়গায় মিডল অর্ডার ব্যাটার রিজওয়ানকে অধিনায়কত্ব প্রদান করা হবে। যদিও ওয়ানডে দলের অধিনায়ক রাজাই থাককছেন।

আগামী সপ্তাহে শুরু হতে যাওয়া এশিয়া কাপের বাছাইপর্ব দিয়ে শুরু হরিজওয়ানের অধিনায়ক হিসেবে নতুন অধ্যায়।

আগামী ২০ থেকে ২৪ আগস্ট পর্যন্ত ওমানের আল আমেরাত স্টেডিয়ামে হবে এশিয়া কাপের বাছাই। কুয়েত, সিঙ্গাপুর ও হংকংয়ের সঙ্গে লড়তে হবে আমিরাতকে। চার দলের মধ্যে যেই দল শীর্ষে থাকবে সেই পাবে মূল আসরে যাওয়ার টিকিট।

এশিয়া কাপ বাছাইয়ে আরব আমিরাতের স্কোয়াডঃ

চুনদাঙ্গাপোয়িল রিজওয়ান (অধিনায়ক), চিরাগ সুরি, মোহাম্মদ ওয়াসিম, ভৃত্য অরভিন্দ, আহমেদ রাজা, বাসিল হামিদ, রোহান মোস্তফা, কাশিফ দাউদ, কার্তিক মিয়াপ্পান, জহুর খান, জাওয়ার ফরিদ, আলিশান শরাফু, সাবির আলি, আরিয়ান লাকরা, সুলতান আহমেদ, জুনায়েদ সিদ্দিকী ও ফাহাদ নওয়াজ।


ক্রিকেট   আরব আমিরাত   এশিয়া কাপ   বাছাইপর্ব  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

ভারতের চেয়ে এগিয়ে আছে পাকিস্তান: সরফরাজ

প্রকাশ: ০৫:১৯ পিএম, ১৯ অগাস্ট, ২০২২


Thumbnail ভারতের চেয়ে এগিয়ে আছে পাকিস্তান: সরফরাজ

ক্রিকেটে জয়-পরাজয়ের ব্যবধান থাকলেও ভারত-পাকিস্তানের ম্যাচ মানেই যেন আগুন আর পানির লড়াই। এবারের এশিয়া কাপ আসরের দ্বিতীয় দিনেই মাঠে নামছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী এই দুই দল। যদিও সর্বশেষ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তানের কাছে হেরেছিলো ভারত। তবে এবার আর বাবর আজমদের ছেড়ে কথা বলবে না রোহিত শর্মা ও তার দল। ক্যাননা, পরিসংখ্যান অনুযায়ী পাকিস্তানের চেয়ে ঢের এগিয়ে তারা। 

সাম্প্রতিক সময়ে ভারত দারুণ ক্রিকেট খেললেও এশিয়া কাপে পাকিস্তানকেই এগিয়ে রাখছেন সরফরাজ আহমেদ। যদিও এইবারেরে স্কোয়াডে জাগা পাননি সাবেক এই অধিনায়ক। তার মতে গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জয় এবং চেনা কন্ডিশনের কারণে এগিয়ে থাকবে বাবরের দল। 

স্পোর্টস পাকটিভিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে সরফরাজ এসব কথা বলেন।, ‘যে কোনো প্রতিযোগিতার সুর ঠিক করে দেয় প্রথম ম্যাচটিই। আমাদের প্রথম খেলা ভারতের সঙ্গে। আমাদের মনোবল এই ম্যাচে অনেক উঁচুতে থাকবে, কারণ সবশেষ যখন আমরা মুখোমুখি হয়েছিলাম, ভারতকে হারিয়েছিলাম এই ভেন্যুতেই।’

‘পাকিস্তান এই কন্ডিশন ও মাঠগুলো সম্পর্কে ভালো জানে। এখানে আমরা পিএসএলের ম্যাচ খেলেছি অনেক, আমাদের হোম সিরিজের অনেক ম্যাচ খেলেছি। হ্যাঁ, ভারতও এখানে আইপিএল খেলেছে বটে। তবে এই কন্ডিশনে আমাদের মতো এতটা অভিজ্ঞতা ওদের নেই।’

সর্বশেষ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের টপ অর্ডারকে বোলিং দিয়ে উড়িয়ে দিয়েছিলেন শাহীন শাহ আফ্রিদি। লোকেশ রাহুল, রোহিতের সঙ্গে হাফ সেঞ্চুরি করা বিরাট কোহলিকেও আউট করেছিলেন বাঁহাতি এই পেসার। এই তরুণ বোলারকে ফিট পাওয়াটা পাকিস্তানের জন্য গুরুত্বপূর্ণ মনে করেন সরফরাজ।

পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক বলেন, ‘শাহিন শাহ আফ্রিদিকে ফিট পাওয়া পাকিস্তানের জন্য হবে গুরুত্বপূর্ণ। ওর বড় ভূমিকা থাকবে। ভারতীয়রা যদিও এখন খুব ভালো ক্রিকেট খেলছে। তবে আমরাও ভালো খেলছি, বিশেষ করে সংক্ষিপ্ত সংস্করণে।’


ভারত   পাকিস্তান   এশিয়া কাপ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

বিদায়ঘণ্টা বাজছে ডমিঙ্গোর!

প্রকাশ: ০৪:৪৮ পিএম, ১৯ অগাস্ট, ২০২২


Thumbnail বিদায়ঘণ্টা বাজছে ডমিঙ্গোর!

টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে ব্যর্থতার বৃত্ত থেকে বের হতে এবার দলকে ঢেলে সাজাতে উদ্যোগি হয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। এর প্রতিফলন দেখা যেতে পারে আসন্ন এশিয়া কাপ থেকে। অধিনায়ক পরিবর্তন এর পাশাপাশি কোচিং প্যানেলেও পরিবর্তন আনার আভাশ দিয়েছেন নাজমুল হাসান পাপন। অলরেডি টি-টোয়েন্টি পরামর্শক হিসেবে ভারত থীক উড়ীয়ে আনা হচ্ছে শ্রীধরন শ্রিরামকে।

অন্যদিক বিসিবি সভাপতি আভাস দিয়েছেন, হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর সঙ্গে স্টাফ থেকে বাদ পড়তে পারেন অ্যালান ডোনাল্ড, রঙ্গনা হেরাথরা। এর সঙ্গে ভবিষ্যতের ভাবনা জানিয়ে আজ শুক্রবার গুলশানে নিজ বাসভবনে সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে আলাপ করেন পাপন।

পাপন বলেন, ‘আমাদের এখন পর্যন্ত চিন্তাধারা হচ্ছে, ডমিঙ্গোর ওয়ানডে ও টেস্টে মনোযোগী হতে হবে। আমরা সব কিছু একটু আলাদা করতে চাচ্ছি। যে পরিমান খেলা, ডমিঙ্গোর পক্ষে এত কিছুতে মনোযোগ দেওয়া সম্ভব না। তার সঙ্গে আমাদের যে চুক্তি, অনেক সিরিজে সে যেতেই পারবে না। তার ছুটির একটা নির্দিষ্ট সময় আছে। বুঝতে হবে। এটা এত সহজ না। মানসিকতার একটা ব্যাপার আছে।’

এর সাথে পাওন আরো যোগ করেন, ‘টেস্ট ও ওয়ানডের সঙ্গে টি-টোয়েন্টির কোনো মিল নেই। এসব নিয়ে চিন্তা ভাবনা করে আলাদা করার কথা ভাবছি। যদি পারি আমরা কোচিং স্টাফও আলাদা করে দেব। আমরা এশিয়া কাপে দেখব, বিশ্বকাপে দেখব। এরপর একটা সিদ্ধান্ত নেব। তারপর শ্রীরামকে টি-টোয়েন্টিতে রেখে দেব নাকি অন্য কাউকে দেখব, এটা পারফরম্যান্সের ওপর নির্ভর করবে।’

টেকনিক্যাল কনসালটেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নিতে আগামী রোববার বাংলাদেশে আসবেন শ্রীরাম। আসন্ন এশিয়া কাপে ডমিঙ্গো-শ্রীরাম দুইজনই দলের সঙ্গে থাকবেন কি-না সেটি এখনো পরিষ্কার করেননি বোর্ড সভাপতি। জানান, ২২ আগস্ট কোচিং স্টাফের সঙ্গে ডাকা বৈঠকের পর সবকিছু খোলাসা হবে।

পাপন বললেন, ‘এটা আমরা এখনো ঠিক করিনি। ২২ তারিখ সবার সঙ্গে বসা হবে। বসে আমরা সিদ্ধান্ত নেব। অনেক পরিবর্তনই আসবে। একটা-দুটো জিনিস না।’



মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

এশিয়া কাপে ভারতই ফেভারিট, দাবি সৌরভের

প্রকাশ: ০৪:১৫ পিএম, ১৯ অগাস্ট, ২০২২


Thumbnail এশিয়া কাপে ভারতই ফেভারিট, দাবি সৌরভের

সপ্তাহখানেক পরেই মাঠে গড়াবে এশিয়া কাপ। টি-টোয়েন্টি সংস্করণে হতে যাওয়া এবারের আসরে রোহিত নেতৃত্বাধীন ভারতই ফেভারিট বলে দাবি করেছেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি ও সাবেক অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলি।

কলকাতার সংবাদমাধ্যম ‘সংবাদ প্রতিদিন’ এর সঙ্গে সাক্ষাৎকারে এমন দাবি করেন তিনি।

গত বছর সংযুক্ত আরব আমিরাতে মাটিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের ভরাডুবি হয়। সাক্ষাৎকারে এবার দল নিয়ে কী মতামত জানতে চাইলে সৌরভ দু-এক্টা টুর্নামেন্ট হারলে কিছুই হয়না জানিয়ে বলেন বলেন, এক-আধটা টুর্নামেন্টে ওটা হতেই পারে। ওসব নিয়ে বেশি চিন্তার কিছু নেই। ভারতীয় দল যথেষ্ট ভাল। আমরা ধারাবাহিকভাবে ভাল খেলেছি। স্বাভাবিকভাবে ফেভারিট হয়েই আমরা নামব। দেখুন, সব টুর্নামেন্টে আপনি জিতবেন সেটা তো হয় না। আমি আশাবাদী এশিয়া কাপে আমরা দুর্দান্ত ক্রিকেট খেলব।

এশিয়া কাপের পরই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। শেষ আট-নয় বছর ভারত কোনও আইসিসি ট্রফি জেতেনি।

এ বিষয়ে বিসিসিআই সভাপতি বলেন, “জানি। সবাই তো প্রত্যেকবার বিশ্বকাপ জিতবে না। ভারত, ইংল‌্যান্ড, অস্ট্রেলিয়ার মতো টিমগুলো যে টুর্নামেন্টেই খেলতে নামুক না কেন, সব সময় ফেভরিট হয়ে নামে। এবারও তাই থাকবে। তবে বিশ্বকাপে সাব-কন্টিনেন্টের বাইরে ভারত সবসময়ই ভাল খেলেছে। অস্ট্রেলিয়াতেও আশা করছি আমরা দারুণ কিছু করব।”


ক্রিকেট   এশিয়া কাপ   ভারত   ফেভারিট  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

কোচ যেই থাকুক, সাকিবই সেরা একাদশ ঠিক করে

প্রকাশ: ০৩:৩৭ পিএম, ১৯ অগাস্ট, ২০২২


Thumbnail কোচ যেই থাকুক, সাকিবই সেরা একাদশ ঠিক করে

‘একাদশ ঠিক করার বিষয়টা আমার হাতে নেই। এটা সম্পূর্ণ বোর্ড বা ম্যানেজমেন্টের ওপর নির্ভর করে।’ চলতি বছর মার্চে এমন মন্তব্য করেছিলেন তৎকালীন টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। অথচ সাধারণত একাদশ নির্বাচন করে থাকেন অধিনায়ক ও কোচ। প্রয়োজনে সহায়তা করতে পারেন নির্বাচকরা। তবে অধিনায়ক থাকাকালীন এমন ক্ষমতা যে রিয়াদ পাননি সেটা স্বীকার করেছেন অকপটেই। 

রিয়াদ না পারলেও সদ্য অধিনায়ক হওয়া সাকিব নাকি নিজের দলের সেরা একাদশ নিজেই নির্বাচন করেন। সেক্ষেত্রে কোচ যেই থাকুক না কেন, কাজটা সাকিবই করেন বলে নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। 

মিরপুরে গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপচারিতায় পাপন বলেন, ‘না। সাকিবের কোনো সমস্যা নেই। একটা জিনিস মনে রাখবেন, সাকিব যখন অধিনায়ক হয় কে কোচ বা কে না এটা নিয়ে কোনো ইস্যু হয় না। সেরা একাদশ ওই (সাকিব) ঠিক করে। এটা তো বোঝা উচিত আপনাদের। ও (সাকিব) ওর মতো ঠিক করে।’

একাদশ সাকিব নিজে ঠিক করলেও প্রয়োজনে প্রধান কোচের সঙ্গে পরামর্শ করেন বলে নিশ্চিত করেছেন পাপন। তবে ম্যাচের পরিকল্পনা কোচের কাছ থেকেই নেন সাকিব। এদিকে প্রধান কোচ না থাকলে কখনও কখনও টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন ম্যাচের পরিকল্পনা সাজাতে সাহায্য করেন বলে জানান তিনি।

পাপন বলেন, ‘অবশ্যই ওইখানে হয়তো কোচের সঙ্গে পরামর্শ করে। কিন্তু কোচও প্রাধান্য দেয় অধিনায়ককে সেরা একাদশের ক্ষেত্রে। খেলার পরিকল্পনা কি হবে এটা হয়তো ব্যাখ্যা করে দেয়। ওইটা ব্যাখ্যা করতে পারে। এটা তো যে কেউই বাদ দিতে পারে। আমাদের যদি হেড কোচ নাও থাকে ওইখানে খালেদ মাহমুদ সুজনও করে, ওখানে জালাল ইউনুস থাকলে সেও করবে।’

এশিয়া কাপের আগে শ্রীধরন শ্রীরামকে টেকনিক্যাল কনসালট্যান্ট হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে বিসিবি। অস্ট্রেলিয়াতে অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত কাজ করার কথা রয়েছে তার। শ্রীরামকে আনার ক্ষেত্রে ক্রিকেটারদের কোনো চাওয়া ছিল কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে পাপন বলেন, ‘না, খেলোয়াড়দের এখানে কিছুই নেই।’


ক্রিকেট   সাকিব আল হাসান   বিসিবি   একাদশ  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন