ইনসাইড ওয়েদার

তেঁতুলিয়ায় ফের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড

প্রকাশ: ০৯:৩৯ এএম, ১৫ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

দেশের সবচেয়ে উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ে আবারো শুরু হয়েছে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ। চারদিনের ব্যবধানে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলায় আবারো দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। 
  
আজ শনিবার (১৫ জানুয়ারি) সকাল ৬টায় এটি রেকর্ড করা হয় বলে জানিয়েছেন তেঁতুলিয়া আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. রাসেল শাহ।

তীব্র শীতে অসহায় ও নিম্ন আয়ের মানুষজন কাহিল হয়ে পড়েছে। শীতের কাপড় না থাকায় দরিদ্র ও নিম্ন আয়ের মানুষজন কাজে যেতে পারছে না। কাজে যেতে না পারায় তারা বিপাকে পড়েছে। দ্রুত সরকারি সহায়তা চেয়েছেন এ অঞ্চলের মানুষজন।
এদিকে ভোরে ঘন কুয়াশা থাকায় জেলার বিভিন্ন সড়কগুলোতে হেডলাইট জ্বালিয়ে যানবাহনগুলোকে চলাচল করতে দেখা গেছে।

এর আগে, ১০ থেকে ১৩ জানুয়ারি পর্যন্ত তেঁতুলিয়ায় মৃদু শৈত্যপ্রবাহ কেটে গিয়েছিল। ওই সময় তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১১ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস থেকে ১৪ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত ওঠানামা করেছে।

তবে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর থেকে উত্তরের এ জনপদে হিমেল বাতাস বাড়তে শুরু করে। এতে রাতভর কনকনে শীত অনুভূত হয়। রাত গভীর হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়তে থাকে কুয়াশা। গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির মতো ঝড়তে থাকা কুয়াশা আজ বেলা ১১টা পর্যন্ত স্থায়ী ছিল।

বেলা ১১টার পর সূর্য হালকা উঁকি দিলেও রোদ তীব্রতা ছড়াতে পারেনি। সকাল পর্যন্ত কনকনে ঠান্ডা অনুভূত হওয়ায় খেটে খাওয়া মানুষ বিপাকে পড়েছে। হিমেল বাতাসে কাবু হয়ে অনেকেই খড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছে।

তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের উচ্চ পর্যবেক্ষক জীতেন্দ্র নাথ রায় বলেন, আবারো তেঁতুলিয়ায় মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে শুরু করেছে। গত ৩-৪ দিন গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হওয়ায় তাপমাত্রা কিছুটা বেড়েছিল। উত্তরের ভারী শীতল বাতাস তেঁতুলিয়ায় সরাসরি প্রবেশ করে তাপমাত্রা আবার কমে গেছে। এতে শীত বেশি অনুভূত হচ্ছে।

তিনি বলেন, আকাশের উপরিভাগে ঘন কুয়াশা ও জলীয় বাষ্প থাকায় সূর্যের তীব্রতা ভূপৃষ্ঠে আসতে পারছে না। এ কারণে দিনেও বেশি শীত অনুভূত হচ্ছে। আগামী কয়েকদিন তেঁতুলিয়ার এমন আবহাওয়া ‍স্থিতিশীল থাকতে পারে।

শীত   তাপমাত্রা   উত্তরাঞ্চল  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড ওয়েদার

আগামীকাল থেকে বাড়বে শীত, হতে পারে বৃষ্টি

প্রকাশ: ০৮:৫৪ এএম, ২৬ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

পশ্চিমা লঘুচাপের প্রভাবে শুরু হওয়া গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি আজও (বুধবার) অব্যাহত থাকবে। মেঘ ও বৃষ্টি কেটে গেলে বৃহস্পতিবার থেকে শীতের তীব্রতা আরও বাড়বে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, মঙ্গলবার সারা দেশে মেঘ-বৃষ্টি ও কোথাও কোথাও কুয়াশা ছিল। বুধবার পর্যন্ত সারা দেশের আকাশ আংশিক মেঘলা থাকলেও বৃহস্পতিবার বাড়বে শীতের তীব্রতা।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, মঙ্গলবার সকাল ৬টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৮ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে রাঙামাটিতে। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল কক্সবাজারের টেকনাফে ২৯ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়াতে ১০ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, সর্বনিম্ন ১৬ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আগামী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে রাজশাহী, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের দু-এক জায়গায় হালকা বৃষ্টি অথবা গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। বুধবার পর্যন্ত সারা দেশের আকাশ আংশিক মেঘলা থাকবে। বুধবারের পর মেঘ কেটে গেলে বাড়বে শীত। কিছু অঞ্চলে শুরু হবে শৈত্যপ্রবাহ।

চলতি মৌসুমে এ পর্যন্ত তিন দফা শৈত্যপ্রবাহ বয়ে গেছে। তবে কোনোটিই তিন-চার দিনের বেশি স্থায়ী হয়নি। এর মধ্যে ২০ ডিসেম্বর চুয়াডাঙ্গায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা নেমেছিল ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসে, যা চলতি মৌসুমে সর্বনিম্ন।

আবহাওয়া অফিস   শৈত্যপ্রবাহ   বৃষ্টির সম্ভাবনা  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড ওয়েদার

আবারও আসছে শৈত্যপ্রবাহ, সঙ্গে বৃষ্টির সম্ভাবনা

প্রকাশ: ১০:৪২ এএম, ২৫ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

মাঘের দ্বিতীয় সপ্তাহে এসে শীত তার তীব্রতা ছড়াতে না ছড়াতেই চলে যাচ্ছে। তবে বৃষ্টি কেটে বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) থেকে ৫-৬ দিনের জন্য জেঁকে বসবে শীত। তবে তা তীব্র নয়, মৃদু শৈত্য প্রবাহ। আবহাওয়া বিশেষজ্ঞরা বলছেন, রাজধানীবাসী এবছর তীব্র, মাঝারী বা মৃদু শৈত্যপ্রবাহের কোনটিরই অনুভূতি পাবেন না। শুক্রবার থেকে সোমবার পর্যন্ত ঢাকার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা নামতে পারে ১২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হতে পারে ২ ফেব্রুয়ারি। মাঘ বিদায়ের আগে আরেকদফা শীত নামতে পারে ৩-৪ দিনের জন্য। এভাবেই ফাগুনে প্রবেশ করবে আবহাওয়া। উত্তুরে বাতাস সরিয়ে দখল করবে দখিনা হাওয়া।

দ্বিমেরুর প্রভাবে অতীতের শীত মৌসুমের চেয়ে এবারের শীতকাল কিছুটা ব্যতিক্রমী হচ্ছে বলে জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। এর কারণ  বহুবিধ। রয়েছে বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে দক্ষিণের উপকূলে সৃষ্ট উষ্ণ মেঘের সঙ্গে হিমালয় থেকে আসা শীতল বাতাসের লড়াই। আছে প্রশান্ত মহাসাগরের ‘এল নিনো’ ও ‘লা নিনার’ প্রভাব। এবার মাঘের শীত বাঘ তো দূরের কথা, ঢাকার মানুষকেও কাঁপাতেও পারেনি।

আবহাওয়াবিদ হাফিজুর রহমান বলেন, আজ মঙ্গলবার থেকে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা কমবে। রাতের তাপমাত্রা ক্রমশ হ্রাস পেতে পারে। বৃষ্টি কেটে যাওয়ার পর বৃহস্পতিবার থেকে ফের রাতের তাপমাত্রা কমে শীত জেঁকে বসতে পারে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে। 


আবহাওয়া অফিস   শৈত্যপ্রবাহ   বৃষ্টির সম্ভাবনা  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড ওয়েদার

বৃষ্টি কমবে কাল তবে বাড়বে শীত

প্রকাশ: ০৮:৪৫ এএম, ২৪ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

কয়েক দিন ধরে দেশের বিভিন্ন স্থানে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। বেশির ভাগ জায়গায়ই আকাশ ছিল মেঘলা, দেখা মেলেনি সূর্যের। আজ সোমবারও এমন অবস্থা অব্যাহত থাকবে। তবে কাল মঙ্গলবারের পর থেকে অবস্থার উন্নতি হবে। তবে আগের চেয়ে শীত বাড়বে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।  

গতকাল সন্ধ্যা ৬টা থেকে আগামী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে রাজশাহী, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, সারা দেশে মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত কোথাও কোথাও হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে। সারা দেশে রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে এবং দিনের তাপমাত্রা কিছুটা বাড়তে পারে।

আগামী দুই দিনের আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, এ সময়ের শেষের দিকে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা কমতে পারে। আগামী পাঁচ দিনের আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, এ সময়ের শুরুতে রাতের তাপমাত্রা কমতে পারে। গতকাল চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। এ ছাড়া বিভাগীয় শহরগুলোর মধ্যে ঢাকার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৫.৬, ময়মনসিংহে ১৩.৮, চট্টগ্রামে ১৬.২, সিলেটে ১৩.৫, রাজশাহীতে ১৩.৭, রংপুরে ১৩.৪, খুলনায় ১৪.৮ এবং বরিশালে ১২.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে।

রাজবাড়ীতে টানা তিন দিন ধরে সূর্যের দেখা নেই। প্রায় সারা দিনই কুয়াশার চাদরে ঢাকা থাকছে জেলার বেশির ভাগ জায়গা। একই সঙ্গে গতকাল দিনভর থেমে থেমে নেমেছে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি। এতে বেড়েছে শীত। ফলে স্থবির হয়ে পড়েছে জনজীবন। বিশেষ করে নিম্ন আয়ের মানুষ, কৃষক ও খেটে খাওয়া মানুষ বিপাকে পড়েছে। শীতের কারণে ফসল বপন ও চলাচলে সমস্যা হচ্ছে।

আবহাওয়া অফিস   শৈত্যপ্রবাহ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড ওয়েদার

সারা দেশেই বৃষ্টির সম্ভাবনা আজ

প্রকাশ: ০৯:৩৯ এএম, ২৩ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

গত দুই দিন ধরে বিচ্ছিন্নভাবে কিছু এলাকায় বৃষ্টিপাত হলেও আজ রবিবার সারা দেশেই গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। কাল সোমবারও এই বৃষ্টি অব্যাহত থাকবে। এরপর এ মাসের শেষ দিকে শৈত্যপ্রবাহের সম্ভাবনা রয়েছে।

এদিকে গতকাল ভোর থেকেই বাগেরহাটের মোংলা মেঘ ও ঘন কুয়াশায় আচ্ছাদিত হয়ে পড়ে।

মধ্য দুপুর পর্যন্ত আকাশে দেখা মেলেনি সূর্যের। তবে মাঝে মধ্যে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হয়েছে। তাই আগের চেয়ে বেশি শীত জেঁকে বসেছে এ এলাকায়। কুয়াশায় নৌ ও সড়ক পথে যান চলাচল বিঘ্নিত হয়েছে।

আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুখ বলেন, ‘আগামী সোমবার পর্যন্ত সারা দেশের কিছু এলাকায় বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। এরপর বৃষ্টি কমলেও আকাশে মেঘ থাকবে। আগামী শুক্রবার থেকে কিছু জেলায় মৃদু শৈত্যপ্রবাহের সম্ভাবনা রয়েছে। ’

গতকাল সন্ধ্যা ৬টা থেকে আগামী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, খুলনা ও বরিশাল বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের দু-এক জায়গায় হালকা অথবা গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হতে পারে। সারা দেশে মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে।

তাপমাত্রার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, সারা দেশে রাতের তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে পারে। উত্তরাঞ্চলে দিনের তাপমাত্রা কমতে পারে এবং দেশের অন্যত্র তা অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

আবহাওয়া অফিস   শৈত্যপ্রবাহ   বৃষ্টির সম্ভাবনা  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড ওয়েদার

বৃষ্টির সাথে পড়তে পারে ঘন কুয়াশা

প্রকাশ: ১০:০৮ এএম, ২২ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

দেশের ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। তবে, সিলেট বিভাগের দু’এক জায়গায় হালকা অথবা গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির আভাস রয়েছে। এছাড়া মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের উত্তরপশ্চিমাঞ্চল এবং নদী অববাহিকার কোথাও কোথাও মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে এবং অন্যত্র হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে।

পূর্বাভাসে আরও বলা হয়, পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ হিমালয়ের পাদদেশীয় পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। উপ-মহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ বিহার ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে।

গতকাল শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) বদলগাছিতে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। এ ছাড়া ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, ময়মনসিংহে ১২ দশমিক ৮, চট্টগ্রামে ১৫ দশমিক ৩, সিলেটে ১৪ দশমিক ৬, রাজশাহীতে ১০ দশমিক ৪ ডিগ্রি, রংপুরে ১১ দশমিক ২, খুলনায় ১৩ দশমিক ৫ এবং বরিশালে ১১ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে।

শীত   তাপমাত্রা   উত্তরাঞ্চল   কুয়াশা  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন