ইনসাইড ওয়েদার

এ সপ্তাহেই শুরু হতে পারে বর্ষা

প্রকাশ: ০৯:০৬ এএম, ২৮ মে, ২০২২


Thumbnail এ সপ্তাহেই শুরু হতে পারে বর্ষা

মেঘের ঘনঘটা, অঝোরে টানা বৃষ্টিধারা এই হলো আমাদের বর্ষা। সাধারণ বাংলাদেশে বর্ষা শুরু হয় জুনের প্রথম থেকে দ্বিতীয় সপ্তাহের মধ্যে। তবে এবার জুনের প্রথম থেকেই চট্টগ্রাম দিয়ে অঝোরে বৃষ্টি নামিয়ে বর্ষা বাংলাদেশে শুরু হচ্ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। 

এমনেতেই পুরো মে মাসটা বাংলাদেশের উপর দিয়ে বয়ে গেছে তীব্র দাবদাহ। দাবদাহের প্রচণ্ড উত্তাপে যখন দেশবাসী ক্লান্ত তখনই শুরু হতে যাচ্ছে বৃষ্টির হানা। 

সাধারণত বাংলাদেশ বর্ষার পূর্ব লক্ষণ হিসেবে বঙ্গোপসাগরের মৌসুমি বায়ু প্রবাহ দক্ষিণ ভারত হয়ে মিয়ানমারকে স্পর্শ করে বাংলাদেশের টেকনাফ দিয়ে প্রবেশ করলে বর্ষাকাল শুরু হয়। সেই হিসেবে মৌসুমি বায়ুপ্রবাহ ইতিমধ্যে দক্ষিণ ভারত উপকূল ও মিয়ানমারে চলে এসেছে বলে জানিয়েছে ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তরের মৌসুমি বায়ু হালনাগাদ প্রতিবেদন। 

সরকারের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের সঙ্গে আবহাওয়া অধিদপ্তরের মৌসুমি বায়ুর গতিপ্রকৃতি নিয়ে একটি সভাও গত সপ্তাহে শেষ হয়েছে। এবার যথাসময়ে, অর্থাৎ জুনের শুরু থেকে মাঝারি মাত্রার শক্তিশালী মৌসুমি বায়ু দেশে প্রবেশ করতে যাচ্ছে বলে মতামত দেওয়া হয়েছে সেখানে। ফলে আগামী তিন থেকে চার দিনের মধ্যে চট্টগ্রাম দিয়ে অঝোরে বৃষ্টি নামিয়ে বর্ষা বাংলাদেশে শুরু হচ্ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আরও তিন থেকে চার দিন পর রাজধানীসহ সারা দেশে বৃষ্টি শুরু হতে পারে।

বাংলাদেশের আবহাওয়া নিয়ে গবেষণা করেন, এমন একাধিক বিজ্ঞানী গণমাধ্যমকে বলেন, এবার মৌসুমি বায়ু হতে পারে বেশ শক্তিশালী। এর সঙ্গে আসা বিশাল মেঘমালার কারণে বৃষ্টি বেশি হবে। ফলে এবার বন্যা স্বাভাবিকের চেয়ে একটু বেশি মাত্রায় হতে পারে। স্বাভাবিক বন্যায় দেশের ২৫ থেকে ৩০ শতাংশ এলাকা প্লাবিত হয়। আর মাঝারি মাত্রার বন্যায় তা ৩৫ থেকে ৪০ শতাংশ হয়ে থাকে।

এ বিষয়ে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুজ্জামান ভূইয়া গণমাধ্যমকে বলেন, মৌসুমি বায়ু এবার একটু আগেভাগে বাংলাদেশের দিকে আসতে শুরু করেছে। এরই মধ্যে এর অগ্রভাগ মিয়ানমারের আরাকান উপকূল ও ভারতের দক্ষিণ উপকূল স্পর্শ করেছে। তিনি বলেন, মৌসুমি বায়ুর কারণে বৃষ্টি বেড়ে এবার জুনের মাঝামাঝি সময় থেকে গঙ্গা ও ব্রহ্মপুত্রের পানি বিপৎসীমার ওপরে চলে যেতে পারে। ফলে দেশের উত্তর ও মধ্যাঞ্চলে ওই সময় থেকে বন্যা শুরু হতে পারে।

মৌসুমি বায়ুর গতিপ্রকৃতি নিয়ে ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তরের পর্যবেক্ষণ বলছে, এ বছর পশ্চিমা লঘুচাপের কারণে বর্ষা আসার আগের সময়টায় মেঘ-বৃষ্টি ও বজ্রপাত বেশি থাকবে। অর্থাৎ আগামী তিন-চার দিন বাংলাদেশের উজানে ভারতের মেঘালয়, আসাম ও পশ্চিমবঙ্গে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি হতে পারে। ওই পানি ঢল হয়ে বাংলাদেশের ব্রহ্মপুত্র ও গঙ্গা দিয়ে প্রবেশ করবে।

আবহাওয়াবিদেরা বলছেন, চলতি মে মাসজুড়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে যে বৃষ্টি হয়েছে, তা মূলত পশ্চিমা লঘুচাপের প্রভাবে। লঘুচাপের প্রভাবে সৃষ্ট বৃষ্টির সঙ্গে থাকে বজ্রপাত আর দমকা হাওয়া। ফলে টানা মুষলধারে বৃষ্টি হয় না। অল্প সময়ের জন্য বৃষ্টি এসে আবার চলে যায়। কিন্তু মৌসুমি বায়ুর সঙ্গে বিশাল মেঘমালা ভেসে আসে। ফলে দেশের বিভিন্ন স্থানে একযোগে টানা বৃষ্টি শুরু হয়।

বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের পর্যবেক্ষণ বলছে, সিলেট বিভাগের বিভিন্ন স্থানে ১০-১২ দিন ধরে যে বন্যা হয়, তা নিয়ে আপাতত ভয় পাওয়ার কিছু নেই। মৌলভীবাজার, সিলেট, হবিগঞ্জ, নেত্রকোনার সব এলাকা থেকে বন্যার পানি নেমে গেছে। জেলাগুলোতে আপাতত বন্যার কোনো আশঙ্কা নেই।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস বলছে, আজ শনিবার ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট ও বরিশাল বিভাগের বেশির ভাগ স্থানে এবং রাজশাহী, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগের কিছু স্থানে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হতে পারে। বৃষ্টিহীন থাকায় পাবনা, চুয়াডাঙ্গা, খুলনা, পটুয়াখালী ও বাগেরহাটের বেশির ভাগ জায়গায় মৃদু দাবদাহ বয়ে যাচ্ছে। তা আজও অব্যাহত থাকতে পারে। গতকাল সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে রাঙামাটিতে, ৫৪ মিলিমিটার। আর বেশি তাপমাত্রা ছিল বাগেরহাটের মোংলায় ৩৭ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

বৃষ্টি   বর্ষা  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড ওয়েদার

ঢাকাসহ ২০ অঞ্চলে ঝড় হওয়ার সম্ভাবনা

প্রকাশ: ১২:৫২ পিএম, ৩০ Jun, ২০২২


Thumbnail ঢাকাসহ ২০ অঞ্চলে ঝড় হওয়ার সম্ভাবনা

ঢাকাসহ দেশের ২০ টি অঞ্চলের ওপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। তাই সে সকল এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) এমন পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

আবহাওয়াবিদ মো. মনোয়ার হোসেন জানান- রাজশাহী, দিনাজপুর, পাবনা, রংপুর, বগুড়া, টাংগাইল, ময়মনসিংহ, যশোর, কুষ্টিয়া, ঢাকা, ফরিদপুর, মাদারীপুর, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার এবং সিলেট অঞ্চলসমূহের উপর দিয়ে দক্ষিণ/দক্ষিণ-পুর্ব দিক থেকে ঘন্টায় ৪৫-৬০ কি.মি. বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দর সমূহকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

বর্তমানে মৌসুমী বায়ুর অক্ষ বিহার, পশ্চিম বঙ্গ এবং বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চল হয়ে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। এর একটি বর্ধিতাংশ উত্তরপশ্চিম বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের উপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারী অবস্থায় রয়েছে।

এই অবস্থায় শুক্রবার (০১ জুলাই) পর্যন্ত রংপুর, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং রাজশাহী, ঢাকা, বরিশাল ও খুলনা বিভাগের অনেক জায়গায়
অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারী ধরনের বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসাথে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারী ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে। সারাদেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। ঢাকায় দক্ষিণ/দক্ষিণপূর্ব দিক থেকে ঘন্টায় বাতাসের গতিবেগ থাকতে পারে ১০-১৫ কি.মি.,  যা অস্থায়ীভাবে ঘন্টায় ২৫-৩০ কি.মি. বেগে বৃদ্ধি পেতে পারে।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টা থেকে আগের ২৪ঘণ্টায় দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ঈশ্বরদীতে, ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়েছে ফেনীতে, ৭২ মিলিমিটার। ঢাকায় বৃষ্টিপাত হয়েছে ১৬ মিলিমিটার, আর সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩২ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

ঢাকাসহ   ঝড়   সম্ভাবনা  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড ওয়েদার

দেশের ১১ অঞ্চলে ঝড়ের পূর্বাভাস

প্রকাশ: ০৮:২৪ এএম, ২৯ Jun, ২০২২


Thumbnail দেশের ১১ অঞ্চলে ঝড়ের পূর্বাভাস

দেশের ১১টি অঞ্চলের ওপর দিয়ে সর্বোচ্চ ৬০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যাওয়ার পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। এ সময় অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। 

মঙ্গলবার (২৮ জুন) রাতে এমন পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে এক নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। 

আবহাওয়াবিদ খো. হাফিজুর রহমান জালোল, রংপুর, দিনাজপুর, ময়মনসিংহ, টাঙ্গাইল, ঢাকা, ফরিদপুর, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার এবং সিলেট অঞ্চল সমূহের ওপর দিয়ে দক্ষিণ/দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫-৬০ কি.মি. বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দর সমূহকে ১ নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

বর্তমানে মৌসুমি বায়ুর অক্ষ বিহার, পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চল হয়ে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। এর একটি বর্ধিতাংশ উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের ওপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি অবস্থায় রয়েছে। এই অবস্থায় আজ বুধবার সন্ধ্যা পর্যন্ত রংপুর, ময়মনসিংহ, সিলেট, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রাজশাহী, ঢাকা ও খুলনা বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সাথে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে।

সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে ও রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকবে। ঢাকায় দক্ষিণ/দক্ষিণপূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় বাতাসের গতিবেগ থাকবে ১০-১৫ কি.মি., যা অস্থায়ীভাবে ঘণ্টায় ৩০-৪০ কি.মি. বেগে বৃদ্ধি পেতে পারে। বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) নাগাদ আবহাওয়ার সামান্য পরিবর্তন হতে পারে। বর্ধিত পাঁচদিনের আবহাওয়ায় বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বৃদ্ধি পেতে পারে।

ঝড়   পূর্বাভাস  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড ওয়েদার

সিলেটসহ ছয় অঞ্চলে ৬০ কিমি বেগে ঝড়ের সম্ভাবনা

প্রকাশ: ০৮:২৮ এএম, ২৮ Jun, ২০২২


Thumbnail সিলেটসহ ছয় অঞ্চলে ৬০ কিমি বেগে ঝড়ের সম্ভাবনা

সিলেটসহ দেশের ছয়টি অঞ্চলের উপর দিয়ে সর্বোচ্চ ৬০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। তাই সেসব অঞ্চলের নদীবন্দরগুলোকে এক নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। এছাড়া আগামী বুধবার নাগাদ আবহাওয়ার সামান্য পরিবর্তন হবে। বর্ধিত পাঁচদিনে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বাড়তে পারে। 

সোমবার (২৭ জুন) সন্ধ্যায় এমন পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। 

এতে বলা হয়েছে, রংপুর, দিনাজপুর, বগুড়া, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ এবং সিলেট অঞ্চলগুলোর উপর দিয়ে দক্ষিণ/দক্ষিণ-পূর্বদিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫-৬০ কিলোমিটার বেগে বৃষ্টি/বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে এক নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এ অবস্থায় আগামী মঙ্গলবার সন্ধ্যা পর্যন্ত রংপুর, ময়মনসিংহ, ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রাজশাহী, খুলনা ও বরিশাল বিভাগের দু’এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে সারাদেশের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে। সারাদেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকবে। ঢাকায় দক্ষিণ/দক্ষিণপূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় বাতাসের সর্বোচ্চ গতিবেগ থাকবে ১০-১৫ কিলোমিটার।

আবহাওয়া অধিদপ্তর   ঝড়   সম্ভাবনা   ছয় অঞ্চল  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড ওয়েদার

ঢাকাসহ ১৯ অঞ্চলে ঝড়ের সম্ভাবনা

প্রকাশ: ০৩:১৯ পিএম, ২৫ Jun, ২০২২


Thumbnail ঢাকাসহ ১৯ অঞ্চলে ঝড়ের সম্ভাবনা

ঢাকাসহ দেশের ১৯টি অঞ্চলের ওপর দিয়ে সর্বোচ্চ ৬০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। তাই সে সব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে এক নস্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

শনিবার (২৫ জুন) এমন পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

আবহাওয়াবিদ মো. মনোয়ার হোসেন জানান, রাজশাহী, পাবনা, রংপুর, বগুড়া, টাংগাইল, ময়মনসিংহ, যশোর, কুষ্টিয়া, ঢাকা, ফরিদপুর, মাদারীপুর, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার এবং সিলেট অঞ্চলসমূহের ওপর দিয়ে দক্ষিণ/দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫-৬০ কি.মি. বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দর সমূহকে ১ নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

বর্তমানে মৌসুমী বায়ুর অক্ষ বিহার, পশ্চিম বঙ্গ এবং বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চল হয়ে উত্তরপূর্ব দিকে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের ওপর মোটামোটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে রয়েছে মাঝারি অবস্থায়।

এ অবস্থায় রোববার (২৬ জুন) সকাল পর্যন্ত খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী, ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগের দু'এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে মাঝারি ধরনের ভারী বর্ষণ হতে পারে। সারাদেশে দিন এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকবে।

ঢাকায় দক্ষিণ/দক্ষিণপূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় বাতাসের গতিবেগ থাকবে ১০-১৫ কি.মি.। আগামী তিন দিনের শেষের দিকে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বাড়বে।

শনিবার বেলা ১১টা থেকে আগের ২৪ঘণ্টায় দেশে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়েছে তেঁতুলিয়ায়, ৫৪ মিলিমিটার। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে রাজশাহীতে, ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

ঢাকাসহ   ১৯ অঞ্চলে   ঝড়ের সম্ভাবনা  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড ওয়েদার

দেশের অধিকাংশ জায়গায় বজ্রসহ বৃষ্টির আভাস

প্রকাশ: ০৮:৪৫ এএম, ২৩ Jun, ২০২২


Thumbnail দেশের অধিকাংশ জায়গায় বজ্রসহ বৃষ্টির আভাস

ঢাকাসহ দেশের অধিকাংশ জায়গায় বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) বজ্রসহ বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের ওপর সক্রিয় থাকায় দেশের অধিকাংশ জায়গায় বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

বুধবার (২২ জুন) সন্ধ্যা ৬টা থেকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, মৌসুমি বায়ুর অক্ষ বিহার, পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চল হয়ে উত্তর-পূর্ব দিকে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের ওপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি অবস্থায় রয়েছে।

এ অবস্থায় রংপুর, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রাজশাহী, ময়মনসিংহ ও ঢাকা বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়ার সঙ্গে প্রবল বিজলি চমকানোসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে রংপুর, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে।

এছাড়া সারাদেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। আগামী ৪৮ ঘণ্টা বৃষ্টিপাতের প্রবণতা অব্যাহত থাকতে পারে।


বজ্র   বৃষ্টি   আবহাওয়া  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন