ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , ৫ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

খাবার মেন্যুতে কূটনীতি!

বিশ্বজুড়ে ডেস্ক 
প্রকাশিত: ১৩ জুন ২০১৮ বুধবার, ০৪:৪৪ পিএম
খাবার মেন্যুতে কূটনীতি!

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের ঐতিহাসিক বৈঠকটি হয়ে গেল গতকাল। কিন্তু এর রেশ কাটছে না এখনো। এমনকি তাদের মধ্যাহ্নভোজের মেন্যু নিয়েও বয়ে যাচ্ছে আলোচনার ঝড়।

মধু আর লেবুর রস দিয়ে কাঁচা আমের `কেরাবু` আর অক্টোপাস, শসার ভেতর পুর দেওয়া কোরীয় খাবার `ওইসেয়ন`, এশীয় সবজি দিয়ে কড মাছের পদ `দেয়গু জরিম`। এসব খাবার ট্রাম্পের তো বটেই অনেক কোরিয়ানদেরও খুব বেশি পরিচিত নয়।  তারা বলছে, মেন্যুতে এমন অনেক কিছুই দেখা গেছে, যা কোরীয়দের রোজকার খাদ্যতালিকায় থাকেনা।

বিশ্লেষকেরা বলছেন, মেন্যু জুড়ে বিস্ময়ের সঙ্গে সঙ্গে ছিল কূটনীতিও।

মেন্যুতে `ওইসেয়ন` নামের ডিশটি সাধারণত কোরিয়ান রাজপরিবারের মেন্যুতে থাকে। সাধারণ জনগণের মধ্যে খুব একটা পরিচিত নয় এটি। কোরিয়ার জোসেয়ন সাম্রাজ্যের(ত্রয়োদশ থেকে প্রায় উনবিংশ শতক পর্যন্ত টিকে ছিল এই সাম্রাজ্য) সময়কার প্রচলিত খাবার এটি। শসার মধ্যে গরুর মাংস, ডিম এবং গাজর দিয়ে  তৈরি করা হয় এই ‘ওইসেয়ন`।

সিদ্ধ মাংস, মাছ আর সবজি দিয়ে বানানো `দেয়গু জরিম` নামের ডিশটি কোরিয়াতে বেশ প্রচলিত বলে জানা গেছে।

 মেন্যুতে থাকা ইয়াংঝৌ ফ্রায়েড রাইস হয়তো চীনকে ধন্যবাদ জানানোর একটি চেষ্টা বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। ফ্রায়েড রাইস যুক্তরাষ্ট্রের চীনা রেস্টুরেন্টগুলোর একটি পরিচিত খাবার।

অনেকে বলছেন, মেন্যুটি নাকি এমনভাবে ঠিক করা হয়েছিল যে, খেতে খেতে যে কেউ ভাবতে পারেন, আশির দশকের নিউইয়র্কের কোনো রেস্তোরায় বসে খাচ্ছেন তিনি।

মেন্যুর আরেকটি খাবার কাঁচা আমের `কেরাবু` মূলত মালয়শিয়ার খাবার। সিঙ্গাপুরের ঐতিহ্যবাহী চীনা, ভারতীয় আর মালয় ধরনের খাবারের সংমিশ্রণ ছিল এই ডিশটিতে।

যুক্তরাষ্ট্র আর পশ্চিমা দেশগুলোর খাবারের সঙ্গে সঙ্গে কোরিয়া, চীন আর সিঙ্গাপুরের নিজস্ব স্বাদের খাবারও ছিল গতকালের মধ্যাহ্নভোজে । পিয়ং ইয়ং – যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কে প্রভাববিস্তারকারী সবগুলো দেশকেই হয়তো স্মরণ করা হয়েছে এই মেন্যুর মাধ্যমে।

বাংলা ইনসাইডার/ এএইচসি/ জেডএ