ঢাকা, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

ভ্রমনের বিশ্বসেরা ১০ স্থান

বিশ্বজুড়ে ডেস্ক 
প্রকাশিত: ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ বৃহস্পতিবার, ০৩:০১ পিএম
ভ্রমনের বিশ্বসেরা ১০ স্থান

ভ্রমন মানেই তো আনন্দ! এই ব্যস্ত জীবনে ভ্রমনে আগ্রহ নেই, এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দায়। অবশ্য ইচ্ছা থাকলেও অনেকে হয়তো সময় করে উঠতে পারে না। আবার সময় পেলেও ভাবতেই চলে যায় অনেক সময়। তা সত্ত্বেও ভ্রমনপ্রেমীরা সব সময়ই খোঁজ রাখেন ভ্রমনের সেরা জায়গাগুলোর, যাতে সুযোগ পেলেই ঢুঁ মেরে আসতে পারেন। টাইমস ম্যাগাজিনে সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে, বিশ্বে ভ্রমনের উপযুক্ত স্থানগুলোর তালিকা। আসুন তবে জেনে নেই ২০১৮ সালে ভ্রমনে সেরা ১০ স্থান সম্পর্কে।

তিয়ানজিন বিনহাই লাইব্রেরি

তিয়ানজিন, চীন


চীনের উত্তর উপকূলের শহর তিয়ানজিনের এই লাইব্রেরিটি বর্তমানে পর্যটকদের কাছে বিশ্বের অন্যতম আকর্ষণীয় স্থান। জ্ঞানপিপাসুদের জন্যও অন্যতম প্রিয় স্থান এই লাইব্রেরি। গত বছর অক্টোবরে লাইব্রেরিটির উদ্বোধন করা হয়। খোলার প্রথম দিনেই এখানে দর্শনার্থীর সংখ্যা ছিল প্রায় ১০ হাজার। প্রচুর দর্শক সমাগম আর তাদের প্রশংসায় লাইব্রেরিটি এরই মধ্যে বিশেষ জায়গা করে নিয়েছে। এই লাইব্রেরিতে রয়েছে প্রায় ১ দশমিক ২ মিলিয়ন বই।

সাইক্লিং থ্রু ওয়াটার

জেঙ্ক, বেলজিয়াম


পানির মধ্য দিয়ে সাইকেল চালানো কষ্টকর মনে হলেও, পানির ওপর দিয়ে সাইকেল চালানো কিন্তু বেশ আনন্দের। তাই তো উত্তর বেলজিয়ামের এ স্থানটি প্রায় ৫ লাখ সাইক্লিস্টকে আকর্ষণ করেছে। জেঙ্ক শহরে অবস্থিহ প্রায় ১২৪০ মাইল দীর্ঘ এই পথ। ভ্রমন পিপাসু যেকোনো মানুষের কাছে এমনিতেই বেলজিয়াম আকর্ষণীয় স্থান। তার ওপর পানির ওপর সাইকেল চালানোর মজা নিতে চাইলে ঘুরে আসতে পারেন বেলজিয়ামের জেঙ্ক থেকে।

মরগ্যান’ইনস্পিরেশন আইল্যান্ড

সান আন্টোনিও, টেক্সাস


প্রতিবন্ধীদের জন্য চালু এই বিশেষ পার্কটি যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে অবস্থিত। টেক্সাসের সান আন্তোনিয়োয় গড়ে উঠেছে এই ওয়াটার থিম পার্ক। এটি খোলা হয় ২০১০ সালে। পার্কটির প্রতিষ্ঠাতা গর্ডন হার্টম্যানের দাবি, শারীরিক প্রতিবন্ধকতা তুচ্ছ করে, বিশেষ ওই মানুষগুলো যাতে চুটিয়ে মজা করতে পারেন, সেজন্যই তৈরি করা হয়েছে এই পার্ক। শুধুমাত্র প্রতিবন্ধীদের জন্য বিশ্বের আর কোথাও এমন ওয়াটার পার্ক তৈরি হয়নি।

গোল্ডেন ব্রিজ

বা না হিলস, ভিয়েতনাম


ভিয়েতনামের সোনালি রঙের এই সেতুটি পুরো বিশ্বের জন্য এক বিস্ময়ের নাম। দুর্গম পাহাড়ি অঞ্চলে এই সেতুর অবস্থান। ৪৯০ ফুট দীর্ঘ এই সেতুটি তৈরি করা হয় প্রায় ৯৯ বছর আগে। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ৪৬০০ ফুট ওপরে এই সেতুটি অবস্থিত। নতুন করে চলতি বছরের জুনে সেতুটি আবার পর্যটকদের চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয়। ডানাং শহরে অবস্থিত এই সেতুটি বর্তমানে পর্যটকদের অন্যতম আকর্ষণের স্থান।

টিপেট রাইজ আর্ট সেন্টার,

মন্টেনা, যুক্তরাষ্ট্র


মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মন্টানায় অবস্থিত এই আর্ট সেন্টারটি। প্রায় ১১ হাজার ৫০০ একরের বিশাল ভূমির উপর নির্মিত হয়েছে টিপেট রাইজ আর্ট সেন্টার। এটি ইয়েলোস্টোন ন্যাশনাল পার্ক থেকে মাত্র ১৫০ মাইল দূরে অবস্থিত। ২০১৬ সালে চালু হয় বিশ্বের অন্যতম এই আর্ট সেন্টারটি । এতে চিত্র প্রদর্শনীর হল এবং কনসার্ট হল ছাড়াও বাইরের উন্মুক্ত স্থান জুড়ে আছে বিশাল আকৃতির অসাধারণ কিছু ভাস্কর্য। পর্যটক আকর্ষনের অন্যতম স্থান এটি।

প্যানডোরা: দ্য ওয়ার্ল্ড অব অ্যাভাটার

বে লেক, ফ্লোরিডা


যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় অবস্থিত ডিজনি অ্যানিমেল ল্যাণ্ড থিমপার্ক। আর এই ডিজনি অ্যানিমেল ল্যান্ডেরই সাম্প্রতিক সংযোজন প্যানডোরা। জেমস ক্যামেরনের অ্যাভাটার চলচ্চিত্র থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে তৈরি করা হয় এই কৃত্রিম পার্ক। প্রায় ১২ একর আয়তনের এই থিম পার্কটিতে রয়েছে ভাসমান পর্বত, ভিনগ্রহের কৃত্রিম প্রাণী, আলোকোজ্জ্বল গাছপালা ইত্যাদি। ভার্চুয়াল রিয়ালিটির মাধ্যমে এলিয়েন গ্রহের উপর দিয়ে উড়ে বেড়ানোর সুযোগ এই পার্কটির অন্যতম আকর্ষণ।

এবফিলহারমনি

হামবুর্গ, জার্মানি


জার্মানির হামবুর্গে গ্রাসব্রুক দ্বীপের উপর অবস্থিত এই কনসার্ট হলটির নাম এলফি। এটি ২০১৭ সালে চালু হয়। ইটের তৈরি পুরনো একটি ওয়্যারহাউজের উপরে অবস্থিত কনসার্ট হলটি কাঁচের তৈরি। দেখতে অনেকটা পাল তোলা নৌকার মতো হলটি শুধুমাত্র এর নান্দনিকতাই না, একই সাথে অত্যাধুনিক সাউন্ড সিস্টেমের জন্যও বিশ্ব বিখ্যাত। জার্মানির বিশাল এই হলঘরটিতে একসঙ্গে ২১৫০ জন দর্শকের বসার ব্যবস্থা রয়েছে।

মিউজিয়াম মাকান

জাকার্তা, ইন্দোনেশিয়া


ইন্দোনেশিয়ায় অবস্থিত এই জাদুঘরটির পুরো নাম দ্ ’মিউজিয়াম অব মডার্ন অ্যান্ড কন্টেম্পোরারি আর্ট নসান্ত্রা’। রাজধানী জাকার্তার নসান্ত্রায় প্রায় ৪ হাজার বর্গমিটার ভূমির উপর নির্মিত এই জাদুঘরটি। চোখ ধাঁধানো সব চিত্র ও শিল্পকর্মের অপূর্ব সংগ্রহশালা। সব বয়সী দর্শকদের জন্য উপযোগী এ জাদুঘরটি দর্শকদের জন্য উন্মুক্ত করা হয় ২০১৭ সালের নভেম্বর মাসে। ইতোমধ্যেই এই জাদুঘরটি পর্যটকদের নজড় কেড়েছে।

সিউলো ৭০১৭ স্কাইগার্ডেন

সিউল, দক্ষিণ কোরিয়া


বন্ধ হয়ে যাওয়া হাইওয়ে ওভারপাসের উপর নির্মিত হয়েছে সিউলো স্কাইগার্ডেন নামের এই এলিভেটেড পার্কটি। দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলে অবস্থিত এটি। প্রায় ১ কিলোমিটার দীর্ঘ পায়ে চলার উপযোগী পথটিতে বিভিন্ন ক্যাফে, ফুটবাথ ছাড়াও আছে প্রায় ২৪ হাজার গাছপালার এক বিশাল বাগান। ২০১৭ সালের মে মাসে চালু হয় এই পার্কটি। এই স্কাই গার্ডেনটির রাতের দৃশ্য পথচারীদেরকে দারুণভাবে আকৃষ্ট করে।

সেন্ট্রাল আইডাহো ডার্ক স্কাই রিজার্ভ

আইডাহো, যুক্তরাষ্ট্র


যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম এবং একমাত্র ডার্ক স্কাই রিজার্ভ হলো সেন্ট্রাল আইডাহো ডার্ক স্কাই রিজার্ভ। সারা বিশ্বে মাত্র এমন ১২টি স্থান আছে, যেগুলোকে ইন্টারন্যাশনাল ডার্ক স্কাই অ্যাসোসিয়েশন কর্তৃপক্ষ ডার্ক স্কাই রিজার্ভ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। এই স্থানগুলোর বায়ুমণ্ডল এতই পরিষ্কার যে, এখান থেকে খালি চোখে রাতের আকাশে সবচেয়ে বেশি তারা দেখা সম্ভব। গত বছর এই তালিকায় সর্বশেষ যুক্ত হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সেন্ট্রাল আইডাহোর ২ হাজার ২৫০ বর্গকিলোমিটারের একটি এলাকা।


বাংলা ইনসাইডার/জেডআই