ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

এসব দেশেও সমকামিতা বৈধ

বিশ্বজুড়ে ডেস্ক 
প্রকাশিত: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ বুধবার, ০৩:২২ পিএম
এসব দেশেও সমকামিতা বৈধ

সম্প্রতি ঐতিহাসিক এক রায় ঘোষণা করেছে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট। সমকামিতাকে শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসাবে বর্ণনা করা ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারা বাতিল করে দিয়েছে দেশটির সর্বোচ্চ আদালত। দেশটিতে প্রচলিত আগের আইনে `অপ্রাকৃতিক যৌনতা`র অপরাধে কোনো ব্যক্তির ১০ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারতো।

ভারতের মতো রক্ষণশীল একটি দেশে সমকামিতা বৈধতা পাওয়ায় অবাক হয়েছেন অনেকেই। পৃথিবীতে এমন বহু দেশ আছে যেখানে সমকামিতা বৈধ। যুক্তরাষ্ট্রের মতো পশ্চিমা দেশগুলোতে তো বটেই বেশ কয়েকটি রক্ষণশীল মুসলিম প্রধান দেশেও সমকামিতার বৈধতা রয়েছে।

বাহরাইন

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ বাহরাইনে সমকামিতা আইনগতভাবে বৈধ। ১৯৭৬ সালে সমকামিতাকে বৈধতা দিলেও পোশাকের ব্যাপারে অত্যন্ত রক্ষনশীল এই দেশটি। মুসলিমপ্রধান এই দেশে প্রকাশ্যে ছেলেরা মেয়েদের, কিংবা মেয়েরা ছেলেদের পোশাক পরতে পারে না।

জর্ডান

মুসলিমপ্রধান আরেক দেশ জর্ডানেও সমকামের বৈধতা রয়েছে। ১৯৫১ সালে সেখানে  সমকামিতাকে আইনগত বৈধতা দেওয়া হয়। দেশটিতে সমকামীদের ‘অনার কিলিং’ থেকে বাঁচানোর জন্যেও কঠোর আইন রয়েছে।

ইরাক

ইরাকে প্রচলিত আইনে সমকামিতা অবৈধ কোনো কাজ নয়। তবে সেখানে বিষয়টি ‘ট্যাবু’ হিসেবে দেখা হয়।

ফিলিস্তিন (পশ্চিম তীর)

ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরের জর্ডান অংশে সমকামিতা বৈধ। ১৯৫১ সালে জর্ডানের সঙ্গেই সমকাম বৈধতা পায় সেখানে। তবে গাজাতে আবার এটা অবৈধ। যে আইনের কারণে গাজায় সমকামিতা নিষিদ্ধ সেটা বলবৎ হয়েছে ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শাসনামলে৷

আলবেনিয়া

দক্ষিণ-পূর্ব ইউরোপের দেশ আলবেনিয়ায় সমকামিতা বৈধ। সেখানে সমকামীদের সঙ্গে বৈষম্যেমূলক আচরণের বিরুদ্ধেও আইন রয়েছে। 

ইন্দোনেশিয়া

জনসংখ্যার ভিত্তিতে বিশ্বের সবচেয়ে বড় মুসলিমপ্রধান ইন্দোনেশিয়া। দেশটিতে প্রচলিত আইনে সমকামিতা কোন অপরাধ নয়। ২০০৩ সালে একে অবৈধ হিসেবে ঘোষণার উদ্যোগ নেয়া হলেও তা ব্যর্থ হয়৷

তুরস্ক

অটোমান শাসনামলে ১৮৫৮ সালে সমকামিতাকে বৈধতা দেয় তুরস্ক। এরপর দেশটি স্বাধীন হলেও পূর্বের আইন বলবৎ রাখে। তবে দেশটিতে সমকামীরা নানা বৈষম্যের শিকার হয় বলে জানা যায়। ক্ষমতাসীন সরকার সমকামীদের অধিকার রক্ষায় উদাসীন বলেও অভিযোগ করেন অনেকে।

মালি

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ মালিতে সমকাম আইনত অবৈধ নয়। তবে দেশটির অধিকাংশ মানুষই সমকামিতাকে নিষিদ্ধ হিসেবেই দেখে। ফলে সেখানকার সমকামীরা প্রায়ই বৈষম্য ও নির্যাতনের শিকার হন।

মুসলিম প্রধান আরও বেশ কয়েকটি দেশে সমকামিতার বৈধতা রয়েছে। কাজাখস্তান, আজারবাইজান, লেবানন এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য। তবে বেশিরভাগ দেশেই সমকামিতা আইনত নিষিদ্ধ না হলেও বিভিন্ন ক্ষেত্রে হয়রানির শিকার হন। অনেকেই আবার অভিযোগ করে বলেন, শুধু কাগজে কলমেই এর বৈধতা দেওয়া হয়। বাস্তবে সমকামীদের অধিকার রক্ষায় অধিকাংশ সরকারই উদাসীনতারই পরিচয় দেয়।


বাংলা ইনসাইডার/এএইচসি/জেডএ