ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ২৮ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

৫ হাজার ফুট উঁচুতে লুকনো গুপ্তধন!

বিশ্বজুড়ে ডেস্ক 
প্রকাশিত: ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ শুক্রবার, ০৪:১৮ পিএম
৫ হাজার ফুট উঁচুতে লুকনো গুপ্তধন!

পাহাড়ে রাশি রাশি ধন সম্পদ লুকিয়ে সঙ্কেত জানালেন এক বৃদ্ধ। উত্তর আমেরিকার রকি পর্বতমালায় নাকি লুকিয়ে রাখা আছে সত্যিকারের গুপ্তধন। বিষয়টি জানিয়েছেন যিনি লুকিয়েছেন তিনি নিজেই। এতে তাঁর লাভ? কিছুই না, শুধু মনে একটুখানি শান্তি! এমনটাই বলেছেন সম্প্রতি নিউ ইয়র্ক টাইমসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ৮৭ বছর বয়সী এই বৃদ্ধ ।

ফরেস্ট ফেন নামের এক ব্যক্তি খেয়ালের বশে পুঁতে রেখেছেন স্বর্ণমুদ্রা ও মূল্যবান জিনিস ভর্তি সিন্দুক। নিউ মেক্সিকোর শিল্পকলা ও স্বর্ণমুদ্রা সংগ্রাহক ফেন সব কিছুতেই যেন রহস্য ভালবাসেন। তাই নিজের ধন সম্পদ লুকিয়ে রেখে আনন্দ পেতে চেয়েছেন। তাঁর লুকনো গুপ্তধন খুঁজছে সকলেই। গুপ্তধনের খোঁজে আপনিও কি ঘাম ঝরাবেন নাকি?

ইতোমধ্যেই সোশাল মিডিয়ায় বেশ বিখ্যাত হয়ে উঠেছেন এই ফেন দম্পতি। ইনস্টাগ্রামে ফেনের ফলোয়ার কয়েক লাখ ছাড়িয়ে গেছে। নিজের ইনস্টাগ্রামে দিব্যি শেয়ার করেছেন গুপ্তধনের কাছে পৌছানোর নানা ক্লু।

ফেনের একটি বইও রয়েছে গুপ্তধনের ‘ক্লু’ নিয়ে। গুপ্তধন খোঁজার ঘোষণা করার সঙ্গে সঙ্গে তাঁর বইয়ে ছাপানো কবিতার মধ্যে ৯টি ক্লু-র অর্থ খুঁজে বের করতে সবাই হুমড়ি খেয়ে পড়েছে সেই ২০১৫ সাল থেকে। গুপ্তধন পেতে হলে সবাইকে তাঁর দেওয়া `ক্লু` অনুসরণ করেই এগোতে হবে। তা না হলে গুপ্তধন পাওয়ার আশা নেই।

সিন্দুকে তিনি কী কী লুকিয়ে রেখেছেন তাও জানিয়ে দিয়েছেন ইন্স্টাগ্রামের মাধ্যমে। সিন্দুকে রয়েছে সোনার বল, ৩০০ বছরের পুরনো সোনা ও রুপোর বাক্স। এছাড়াও রয়েছে প্রাচীন আমলের সোনার আয়না, যা পাঁচ ইঞ্চি পুরু তো হবেই। এছাড়াও নাকি রয়েছে দামি দামি গয়না, অ্যান্টিক গোল্ডের তৈরি ড্রাগন ব্রেসলেট, হিরে, পান্না, চুনী, স্যাফায়ার স্টোন, ছ’টা এমারেল্ড।

তাঁর এই গুপ্তধন খোঁজার জন্য চাকরি ছেড়েছেন অনেকেই। বিভিন্ন পেশার হাজার হাজার মানুষ ফেনের গুপ্তধনের সন্ধানে নিউ মেক্সিকো, কলোরাডো, উয়োমিং এবং মন্টানায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন বছরের পর বছর।

৪ জন মারা গিয়েছেন গু্প্তধনের সন্ধান করতে গিয়ে, বলছে সংবাদ সংস্থা। বিষয়টি নজরে এসেছে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থারও। মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই তাঁর বাড়িতেও সন্ধান চালিয়েছে। তবে কোন অভিযোগ দায়ের হয়নি এই প্রত্নতত্ত্ব বিশারদের নামে। উল্টো নিজের ঘুরে বেরানোর ছবি পোস্ট করে সোশ্যাল মিডিয়ায় চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছেন তিনি।

ফেন জানিয়েছেন, তাঁর এই গুপ্তধনের মূল্য আনুমানিক কয়েক’শ কোটি টাকা। ৪০ পাউন্ডের একটা বাক্স ভর্তি করে রেখেছেন এই গুপ্তধন। ১৯৮৮ সালে যখন তাঁর ক্যানসার ধরা পড়ল, তখন তিনি ভেবেছিলেন বাক্স ভর্তি গুপ্তধনের মাঝেই তাঁকে সমাধিস্থ করা হবে। তবে ক্যানসারের মতো মরণব্যধি জয় করে আবারও রহস্য গড়ে তোলার উৎসাহ ফিরে পান।

৩০০’শ বছরের পুরনো রকি পর্বত মালার পাশে ২ হাজারেরও বেশি বাড়িঘর পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়েছিল এক সময় । সেখানেই কি তবে পুঁতে রাখা হয়েছে গুপ্তধন?

বাংলা ইনসাইডার/জেডআই