ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১, ১০ আষাঢ় ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

মার্কিন মধ্যবর্তী নির্বাচন: জঘন্যতম প্রচারণার নতুন রেকর্ড

বিশ্বজুড়ে ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬ নভেম্বর ২০১৮ মঙ্গলবার, ১০:০৪ এএম
মার্কিন মধ্যবর্তী নির্বাচন: জঘন্যতম প্রচারণার নতুন রেকর্ড

যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচনের প্রার্থীরা তাদের প্রচারণায় একে অপরের বিরুদ্ধে রীতিমতো কাদা ছোড়াছুঁড়ি করেছেন। এমনকি দেশের সাধারণ জনগণ ও অভিবাসীদেরও নির্বাচনি প্রচারণায় কটাক্ষ করা হয়েছে। একারণে এবারের নির্বাচনের প্রচারণাকে সাম্প্রতিককালের জঘন্যতম প্রচারণা হিসেবে অভিহিত করা হচ্ছে। অবৈধ অভিবাসীদের আঘাত করার কারণে ইউএস নেটওয়ার্কস প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের শিবিরের একটি বিজ্ঞাপন সরিয়ে নিয়েছে। বিবিসি এ তথ্য জানিয়েছে।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মঙ্গলবারের নির্বাচনকে সামনে রেখে দু’পক্ষই একে অপরকে তীক্ষ্ণভাষায় আক্রমণ করেছেন। কারো কারো বিরুদ্ধে বর্ণবাদী আচরণেরও অভিযোগ উঠেছে।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার মার্কিনীরা যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের দুইটি স্তরের সদস্যদের নির্বাচিত করতে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। এই নির্বাচনে হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভস বা প্রতিনিধি পরিষদের ৪৩৫টি আসনের সবগুলোতেই ভোট অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। আর সিনেটে ১০০টি আসনের মধ্যে ভোট অনুষ্ঠিত হচ্ছে ৩৫ টি আসনে। এছাড়া দেশটির ৫০টি রাজ্যের মধ্যে ৩৬ রাজ্যের গভর্নরদেরও মঙ্গলবারের ভোটের মাধ্যমে নির্বাচন করা হবে। এই নির্বাচনকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের জন্য বড় পরীক্ষা হিসেবে দেখা হচ্ছে।

বর্তমানে কংগ্রেসে রিপাবলিকান পার্টির নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা রয়েছে, যা ট্রাম্পকে ক্ষমতায় টিকে থাকতে সাহায্য করছে। ডেমোক্রেটরা মনে করছে, এবারের নির্বাচনে তারা প্রতিনিধি পরিষদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে। যার ফলে ট্রাম্পের বিভিন্ন সিদ্ধান্ত তারা আটকে দিতে কিংবা বিলম্বিত করাতে পারবেন।

যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসের সর্বোচ্চ সংখ্যক নারী প্রার্থী অংশ নিচ্ছেন এবারের নির্বাচনে। এটি এবারের নির্বাচনের একটি লক্ষনীয় দিক। নারী প্রার্থী বৃদ্ধির বহু কারণ রয়েছে। বেশ কয়েকজন প্রার্থী জানিয়েছেন, ২০১৬ সালের নির্বাচনে হিলারি ক্লিন্টনের হেরে যাওয়ার অপূর্ণতা পূরণ করাই তাদের নির্বাচনে অংশ নেওয়ার বড় কারণ। তবে ট্রাম্পের বিভিন্ন সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে বাড়তে থাকা ক্ষোভকেই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার অন্যতম কারণ বলে জানিয়েছেন অধিকাংশ প্রার্থী।

প্রতিনিধি পরিষদে নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করতে অন্তত ২১৮টি আসনে জয় পেতে হয়। জরিপে দেখা গেছে, ডেমোক্রেটরা ১৮২টি নিশ্চিতভাবে জয় পেতে যাচ্ছে। আরও ১০টি আসনে তাদের জয়ের ভালো সম্ভাবনা রয়েছে। অন্যদিকে রিপাবলিকানরা ১৪৭টি আসনে নিশ্চিতভাবে জয়লাভ করতে যাচ্ছে বলে জরিপে উঠে এসেছে। আরও ৫১ টি আসনে তাদের জয়ের ভালো সম্ভাবনা রয়েছে। ৪২ টি আসন তাঁরা হারাতে যাচ্ছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। বাকী আসনগুলোতে দুই দলের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি প্রতিদন্দ্বীতা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

উল্লেখযোগ্য সংখ্যক রিপাবলিকান সদস্য এবার প্রতিনিধি পরিষদে জায়গা হারাবেন বলেই মনে করছেন বিশ্লেষকরা। ডেমোক্রেটরা সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে যাচ্ছে বলেই পূর্বাভাস দিয়েছেন তাঁরা।

বাংলা ইনসাইডার/এএইচসি