ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০১৯, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

গাদ্দাফির পথেই হাঁটছেন কিম?

বিশ্বজুড়ে ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ বৃহস্পতিবার, ০২:০০ পিএম
গাদ্দাফির পথেই হাঁটছেন কিম?

লিবিয়ার সাবেক নেতা মুয়াম্মার গাদ্দাফির শেষ পরিণতিটা মনে আছে তো? যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত বিদ্রোহীদের হামলায় নির্মম মৃত্যু হয়েছিল তার। লিবিয়ার পুরোপুরি উল্টো প্রান্তের দেশ উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং উনও কি সেই পরিণতির দিকেই পা বাড়াচ্ছেন?

লিবিয়ার নেতা মুয়াম্মার গাদ্দাফি পারমাণবিক অস্ত্রে সমৃদ্ধ হতে চেয়েছিলেন। তবে পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা আর নানা প্রলোভনে ভুলে শেষ পর্যন্ত তিনি পরমাণু কর্মসূচি থেকে সরে এসেছিলেন। উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং উনও কি সেই কাজটাই করবেন? এ মাসের ২৭-২৮ তারিখ ভিয়েতনামে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে দ্বিতীয় বৈঠক হতে যাচ্ছে তার। এই বৈঠকে ট্রাম্প কিমকে পরমাণু কর্মসূচি পুরোপুরি বন্ধের সুনির্দিষ্ট পথ নির্দেশনা দেবেন বলে জানানো হয়েছে। কিম কি এতে রাজি হবেন? নাকি নানা ফন্দি-ফিকির এঁটে গোপনে পরমাণু অস্ত্র সমৃদ্ধকরণ চালিয়ে যাবেন?

বিশ্লেষকরা বলেন, গাদ্দাফি পরমাণু কর্মসূচি বন্ধ করে নখদন্তহীন বাঘে পরিণত হয়েছিলেন। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দরকষাকষি করার সবচেয়ে বড় অবলম্বন হারিয়েছিলেন তিনি। এরপর ২০১১ তে যখন মার্কিন মদদপুষ্ট বিদ্রোহীরা তাকে হত্যা করে তখন এক নিঃস্ব এক নায়ককেই দেখেছে বিশ্ব। কিম জং উনের ভাগ্যেও কি এমন পরিণতিই অপেক্ষা করছে?

মার্কিন শীর্ষ গোয়েন্দারা অবশ্য অন্য আভাস দিচ্ছেন। তারা বলছেন, কিম জং উন মুখে যা-ই বলুন না কেন, উত্তর কোরিয়া কখনোই পরমাণু কর্মসূচি পুরোপুরি বন্ধ করবে না। কয়েকটি পরমাণু স্থাপনা ধ্বংস করে যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে কিছু সাহায্য-সহযোগিতা আদায় করবে তারা। যা দেশটির ভঙ্গুর অর্থনীতিকে সচল করবে। কিন্তু গোপন সব পরমাণু কেন্দ্রের কাজ অব্যাহত থাকবে।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প অবশ্য শুরু থেকেই গর্জন করছেন যে, উত্তর কোরিয়াকে তিনি পরমাণু অস্ত্রমুক্ত করেই ছাড়বেন। শেষ পর্যন্ত কী ঘটে সেটাই এখন দেখার অপেক্ষা। ভিয়েতনামে ট্রাম্প-কিম দ্বিতীয় বৈঠকের দিকে এখন চোখ সবার। কিম কি এবার সুবোধ বালকের মতো ট্রাম্পের সব নির্দেশনা মেনে নিয়ে গাদ্দাফির পথে হাঁটবেন? নাকি অন্য কৌশল নিয়ে ভিন্ন পথ ধরবেন তিনি?

বাংলা ইনসাইডার/এএইচসি/এমআর