ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৫ আগস্ট ২০২১, ২১ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

পাকিস্তানের জন্য বাংলাদেশের শুধুই করুণা

অর্চি হক
প্রকাশিত: ২৬ মার্চ ২০১৯ মঙ্গলবার, ০৪:১৯ পিএম
পাকিস্তানের জন্য বাংলাদেশের শুধুই করুণা

বাংলাদেশ যখন স্বাধীন হয়, তখন এই দেশটিকে বলা হতো বটমলেস বাসকেট বা তলাবিহীন ঝুড়ি। সেই বাংলাদেশ এখন সবকিছুতেই পাকিস্তানকে ছাড়িয়ে গেছে। পাকিস্তান এখন একটা ব্যর্থ রাষ্ট্র হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। অন্যদিকে বাংলাদেশ বিশ্বের বুকে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে।

বর্তমানে বাংলাদেশের পার ক্যাপিটা জিডিপি ১ হাজার ৮২৭ ডলার আর পাকিস্তানের ১ হাজার ৬৪১ ডলার। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে বাংলাদেশের রপ্তানির পরিমান ৩৬ দশমিক ৬ বিলিয়ন ডলার। আর পাকিস্তানের মাত্র ২৩ বিলিয়ন। বাংলাদেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বর্তমানে পাকিস্তানের চেয়ে দ্বিগুনেরও বেশি। বর্তমানে ১ ডলারের জন্য গুনতে হয় ৮৪ টাকা। সেখানে ১ ডলারের বিপরীতে পাকিস্তানী মুদ্রায় দিতে হয় ১৪০ রুপিরও বেশি। অথচ যুদ্ধ পরবর্তী সময়ের চিত্রটা ছিল একেবারেই উল্টো।

১৯৭১-৭২ অর্থবছরে পাকিস্তানের পার ক্যাপিটা জিডিপি ছিল ১৮০ ডলার। সেসময় সদ্য স্বাধীনতা পাওয়া বাংলাদেশের পার ক্যাপিটা জিডিপি ছিল ১২০ ডলার। ওই সময়ে পাকিস্তানের রপ্তানির পরিমান ছিল বাংলাদেশের তুলনায় দ্বিগুণ প্রায়। পাকিস্তানের ৭৬০ মিলিয়ন ডলারের বিপরীতে বাংলাদেশের রপ্তানির পরিমাণ ছিল মাত্র ৩৭৭ মিলিয়ন ডলার। স্বাধীনতার ৪৮ বছরে এই অবস্থাগুলো পুরোপুরি বদলে গেছে। ৭২ এর সেই তলাবিহীন ঝুড়ি এখন অর্থনৈতিক অগ্রগতির এক বিস্ময়ে পরিণত হয়েছে। ভাবা হচ্ছে, জিডিপি বৃদ্ধির দিক থেকে ২০৩০ সাল নাগাদ বিশ্বের শীর্ষ দেশ হবে বাংলাদেশ।

শুধু অর্থনীতিই নয় মানব উন্নয়ন সূচকগুলোতেও পাকিস্তানের চেয়ে বর্তমানে বহু এগিয়ে বাংলাদেশ। জাতিসংঘের সর্বশেষ মানব উন্নয়ন সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান পাকিস্তানের চেয়ে ১৪ ধাপ ওপরে। গড় আয়ু, মাতৃমৃত্যু, শিশুমৃত্যু, স্কুলে পাঠগ্রহণ, নারীর ক্ষমতায়নসহ বেশ কয়েকটি খাতে বাংলাদেশ যেখানে একের পর এক সাফল্য দেখাচ্ছে, পাকিস্তান সেখানে রীতিমতো ধুঁকছে। স্বাধীনতার ৪৮ বছর পরে এসে বাংলাদেশ এখন আর পাকিস্তানকে প্রতিদ্বন্দ্বী মনে করে না। কারণ বাংলাদেশ পাকিস্তানের সমপর্যায়ে নেই। ব্যর্থ এই দেশটিকে বাংলাদেশ এখন শুধুই করুণা করে।

বাংলা ইনসাইডার/এএইচসি/এমআর