ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯, ১ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bagan Bangla Insider

বিদ্যাসাগরেই ডুবছে বিজেপি?

বিশ্বজুড়ে ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৫ মে ২০১৯ বুধবার, ০২:৩৩ পিএম
বিদ্যাসাগরেই ডুবছে বিজেপি?

ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের ভাস্কর্য ভাঙাকে কেন্দ্র করে ভারতের উত্তপ্ত নির্বাচনী যুদ্ধে রীতিমতো দাবানল ছড়িয়ে পড়েছে। সুশীল সমাজ থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ সকলেই এই ইস্যুতে সরব হচ্ছেন। রাজনীতিতে বিভেদ থাকতেই পারে তাই বলে একজন মহামনীষীর ভাষ্কর্য কেন ভাঙা হলো সেই প্রশ্ন তুলছেন সবাই। ক্ষমতাসীন দল বিজেপি এর সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকায় তাদের অনেক সমর্থকও এতে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। 

বিজেপির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে যে, তাদের কোনো কর্মী বিদ্যাসাগরের ভাস্কর্য ভাঙেনি। বরং তৃণমূলই তাদের রোড শোয়ে হামলা চালিয়েছে। কিন্তু এই অজুহাত দিয়েও তারা নিজেদের দোষ ঢাকতে পারছে না কিছুতেই। কারণ এবারই যে প্রথম বিজেপির বিরুদ্ধে মনীষীদের ভাষ্কর্য ভাঙার অভিযোগ উঠেছে তা নয়। এর আগে, ত্রিপুরায় বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আসার পরে একাধিক জায়গায় বিজেপি কর্মীরা লেনিনের ভাস্কর্য ভেঙেছিল। দক্ষিণ ত্রিপুরায় লেনিনের একটি পাঁচ ফুট লম্বা ফাইবার গ্লাসের ভাস্কর্য ভেঙে ফেলা হয়।



কিছুদিন আগে ত্রিপুরার বিশালগড়ে কবি সুকান্ত ভট্টাচার্যের ভাস্কর্যও ভাঙা হয়। এই ঘটনাগুলোতেও বিজেপির বিরুদ্ধে প্রতিবাদমুখর হয়েছিলেন অনেকে। কিন্তু সেসব ক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় কোনো নেতা জড়িত না থাকায় তা নিয়ে বিজেপিকে খুব একটা বেগ পেতে হয়নি। কিন্তু এবার বিদ্যাসাগরের ভাস্কর্য ভাঙার সময় বিজেপির সভাপতি স্বয়ং অমিত শাহ উপস্থিত ছিলেন। ইতিমধ্যেই তার বিরুদ্ধে এফআইআরও করা হয়েছে।

মাত্র তিনদিন পরেই লোকসভার সবশেষ ধাপের নির্বাচন। এবার নির্বাচনের শুরু থেকেই নরেন্দ্র মোদির বিজেপি নড়বড়ে অবস্থায় রয়েছে বলে আভাস পাওয়া যাচ্ছে। সর্বশেষ ধাপের নির্বাচনের আগে বিদ্যাসাগরের ভাস্কর্য ভাঙার ঘটনা বিজেপিকে একেবারেই তলিয়ে দেবে কিনা সে আশঙ্কা থাকছেই। কারণ ধর্মীয় বিভেদ উস্কে দেওয়ার কারণে ভারতের সুশীল সমাজ এবং সাধারণ মধ্যবিত্তদের একটি বড় অংশ মোদি-অমিত জুটির ওপর ক্ষুব্ধ। এখন বিদ্যাসাগরের মতো একজন মনীষীর ভাস্কর্য ভাঙায় এই ক্ষোভের পারদ আরও বাড়বে বলেও মনে করা হচ্ছে।

বাংলা ইনসাইডার/এএইচসি