ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ৭ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

দেশের জয়ে চুপ কেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী?

অর্চি হক
প্রকাশিত: ১১ জুলাই ২০১৯ বৃহস্পতিবার, ০৬:১০ পিএম
দেশের জয়ে চুপ কেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী?

বিশ্বকাপ ক্রিকেটের টানটান উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচে ভারতকে হারিয়ে ফাইনালে উঠে গেছে নিউজিল্যান্ড। সামাজিক মাধ্যমে এ নিয়ে ঝড় তুলছেন ক্রিকেটভক্তরা। ভারতের আমলা-মন্ত্রী, রাজনৈতিক নেতা থেকে শুরু করে প্রধানমন্ত্রী পর্যন্ত এই ঝড়ে শামিল হচ্ছেন। কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় হলো, নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আর্ডার্ন এখন একেবারেই চুপ। 

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের এই যুগে রাষ্ট্রনেতারা যেকোনো ঘটনাতেই টুইটার, ফেসবুক বা অন্য কোনো মাধ্যমে বার্তা দেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যেমন কিছু ঘটুক আর না ঘটুক দিনে পাঁচ-সাতটা টুইট করা তার চাই-ই চাই। আর নিজের দেশের জয় হলে তো কথাই নেই। শুধু ট্রাম্প কেন, সব রাষ্ট্রনায়করাই এতে উচ্ছ্বসিত হয়ে খেলোয়াড়দের ফোন করেন কিংবা সামাজিক মাধ্যমে সেই জয় নিয়ে স্ট্যাটাস দেন। কিন্তু নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আর্ডার্ন নিজের দেশের এতো বিশাল জয়েও কিছুই বলছেন না। খেলোয়াড়দের ফোন দেওয়া তো দূরের কথা তিনি সামাজিক মাধ্যমে জয় নিয়ে দু`একটা লাইনও লিখছেন না। এমন নয় যে, তিনি সামাজিক মাধ্যম ব্যবহার করেন না। তার নিজের তো বটেই, পোষা বিড়ালেরও টুইটার অ্যাকাউন্ট আছে। টুইটারে বেশ সক্রিয় জাসিন্ডা। কিন্তু তবুও দেশের জয়ে তিনি কেন চুপ?  নিউজিল্যান্ড সম্পর্কে যারা মোটামুটি খোঁজ খবর রাখেন, এর কারণটা তারা হয়তো আঁচ করতে পারছেন।

নিউজিল্যান্ডে ক্রিকেট খেলাটা একেবারেই জনপ্রিয় নয়। রাগবি, বাস্কেট বলের মতো খেলাগুলো নিয়েই মেতে থাকে তারা। নিউজিল্যান্ড যে ক্রিকেট বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠে গেছে এটাও জানে না সে দেশের বেশিরভাগ মানুষ। নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীও ক্রিকেটের খোঁজ খবর খুব একটা রাখেন না। আর এ খেলা নিয়ে তার মাতামাতি তো একেবারেই নেই। সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের জয় তাই একেবারেই উচ্ছ্বাসে ভাসাচ্ছে না জাসিন্ডাকে। শেষ পর্যন্ত ফাইনাল ম্যাচ জিতে যদি শিরোপাটা দখল করতে পারে কিউই ক্রিকেটাররা, তাহলে হয়তো দেশের প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে সাদামাটা একটা অভিনন্দন জুটবে তার কপালে।

বাংলা ইনসাইডার/এএইচসি