ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bagan Bangla Insider

অরুন জেটলির জীবনের ১০ অধ্যায়

বিশ্বজুড়ে ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৪ আগস্ট ২০১৯ শনিবার, ০৩:৩৮ পিএম
অরুন জেটলির জীবনের ১০ অধ্যায়

ভারতের সাবেক অর্থমন্ত্রী ও প্রবীণ বিজেপি নেতা অরুণ জেটলির মৃত্যুতে দেশটির জাতীয় রাজনীতির এক বিশাল অধ্যায়ের সমাপ্তি ঘটলো। অরুন জেটলিকে বলা হতো, ভারতীয় রাজনীতির ‘ট্রাবলশুটার’ বা ‘ক্রাইসিস ম্যানেজার’। কিন্তু তিনি জিনে হাতেগোনা মাত্র কয়েকটি নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছিলেন। ২০১৪ সালে প্রবল মোদি ঝড়ের মধ্যেও তিনি অমৃতসর কেন্দ্র থেকে হেরে গিয়েছিলেন। তিনি ছিলেন ভারতীয় রাজনীতির সেই দলের প্রতিনিধি যারা পর্দার পেছনে থেকে নিজেদের মেধাকে দেশ পরিচালনায় কাজে লাগিয়েছেন। দেখে নেওয়া যাক তার জীবনের কয়েকটি অধ্যায়।

বাণিজ্য থেকে আইনে

অরুণ জেটলি অত্যন্ত মেধাবী ছাত্র ছিলেন। স্কুল, কলেজ জীবনে তার পরীক্ষার রেজাল্ট ছিল খুব ভালো। প্রথমে বাণিজ্য বিভাগে পড়া শুরু করেছিলেন তিনি। বাণিজ্যে স্নাতক হওয়ার পর দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে আইনে ভর্তি হয়ে যান। পরবর্তীতে তিনি প্রথিতযশা আইনজীবী হয়েছিলেন।

ছাত্রজীবনেই রাজনীতি

ছাত্র জীবনেই রাজনীতির প্রতি আগ্রহ বাড়ে অরুন জেটলির। যোগ দেন অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদে। দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের সভাপতি হয়েছিলেন তিনি।

ইন্দিরা গান্ধি বিরোধী আন্দোলন

১৯৭৫ সালে ইন্দিরা গান্ধি ভারতে যখন জরুরি অবস্থা জারি করেন, তখন আন্দোলন করে জেলও খেটেছিলেন তিনি। জেল থেকে বেরিয়ে তিনি দিল্লি বিদ্যার্থী পরিষদের সভাপতি হন। একই সঙ্গে হন সর্বভারতীয় সম্পাদক। 

২৮ বছর বয়সে বিজেপি সভাপতি

১৯৮০ সালে মাত্র ২৮ বছর বয়সে রাজধানী দিল্লিতে বিজেপি’র সভাপতি হন তিনি।

রাজনীতির মাঠ+সুপ্রিম কোর্ট

অরুন জেটলি একই সঙ্গে রাজনীতির মাথ এবং সুপ্রিম কোর্ট দুটোই দাপিয়ে বেড়িয়েছেন। বিজেপির অন্যতম কাণ্ডারি তো বটেই দেশের প্রথম সারির আইনজীবীও ছিলেন তিনি।

বাজপেয়ির মন্ত্রিসভায় আইনমন্ত্রী

অটলবিহারী বাজপেয়ীর অত্যন্ত আস্থাভাজন ছিলেন জেটলি। ২০০০ সালে বাজপেয়ির মন্ত্রিসভায় আইনমন্ত্রী হন তিনি।

রাজ্যসভায় বিজেপি নেতা

২০০৯ সালে রাজ্যসভায় বিজেপির নেতা হন জেটলি। প্রমোদ মহাজনের মৃত্যুর পরে তিনি হয়ে ওঠেন বিজেপির অন্যতম জাতীয় মুখ।

বিজেপির অন্যতম নীতি নির্ধারক

২০১৪ সালের নির্বাচনে জেটলি ছিলেন বিজেপির অন্যতম নীতি নির্ধারক। সে বারই তিনি জীবনে প্রথমবার লোকসভা নির্বাচনে অমৃতসর থেকে লড়াই করেন। কিন্তু হেরে যান কংগ্রেসের অমরিন্দর সিংয়ের কাছে।

বিসিসিআইয়ের সহ-সভাপতি

অন্য ভারতীয়দের মতো অরুন জেটলিও ছিলেন ক্রিকেটপ্রেমী। ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই) এর সহ সভাপতি ছিলেন তিনি।

শারীরিক অসুস্থতা

প্রতাপশালী রাজনীতিক অরুন জেটলি দীর্ঘদিন ধরেই অসুস্থ্ ছিলেন। তিনি কিডনি ও হার্টের জটিলতায় ভুগছিলেন। গতবছর তার কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয়েছিল। শারীরিক অসুস্থতার কারণে রাজনীতি থেকে নিজেকে গুটিয়ে নিয়েছিলেন জেটলি। সর্বশেষ লোকসভা নির্বাচনে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতাও করেননি।

বাংলা ইনসাইডার/এএইচসি