ঢাকা, বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

টিকা নিয়ে ইঁদুর দৌড়: কে এগিয়ে কে পিছিয়ে?

বিশ্বজুড়ে ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৬ জুলাই ২০২০ বৃহস্পতিবার, ০৪:০৩ পিএম
টিকা নিয়ে ইঁদুর দৌড়: কে এগিয়ে কে পিছিয়ে?

বিশ্বব্যাপী এখন সবচেয়ে আরাধ্য জিনিসটি হলো কোভিড-১৯ এর টিকা। যত তাড়াতাড়ি এটি আবিষ্কার করা সম্ভব হবে তত তাড়াতাড়ি বিশ্ব তার পুরনো চেহারা ফিরে পাবে। এই টিকা নিয়েই এখন চলছে এক অদৃশ্য প্রতিযোগিতা। বলাই বাহুল্য এই প্রতিযোগিতার সবচেয়ে শক্তিশালী দুটো পক্ষ হলো যুক্তরাষ্ট্র এবং চীন। রাশিয়া, যুক্তরাজ্য, ভারতসহ আরও বেশ কিছু দেশও টিকা আবিষ্কারে নিজেদের এগিয়ে থাকার দাবি করছে। করোনার টিকা আবিষ্কার এখন হয়ে উঠেছে শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই। যে আগে এই টিকা আবিষ্কারে সফল হবে, শ্রেষ্ঠত্ব যেন তারই। করোনার টিকার এই ইঁদুর দৌড়ে কে কোথায় দাঁড়িয়ে সেটাই একবার দেখে নেওয়া যাক। 

ট্রাম্পের ভরসা মর্ডানা

যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. অ্যান্থনি ফাউচি বলেছেন, চলতি বছরই করোনাভাইরাসের একটি টিকা আনতে সক্ষম হবেন তার দেশের বিজ্ঞানীরা। তবে যুক্তরাষ্ট্রের আগে চীন করোনার একটি টিকা আনবে বলে নিজের আগের মন্তব্যেই অনড় রয়েছেন তিনি।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ফাউচি বলেন, কবে নাগাদ একটি টিকা আসবে তার কোনও গ্যারান্টি নেই। তবে আমি প্রজেক্টের সময়সূচি নিয়ে আশাবাদী। মার্কিন বায়োটেক প্রতিষ্ঠান মডার্নার তৈরি করোনার টিকা প্রথম ট্রায়ালে আশা জাগানোর পর ফাউচি এমন মন্তব্য করলেন। মর্ডানার টিকার আশায় বসে আছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও। যেকোনোভাবে চীনের আগে এই টিকা বাজারে আনতে মরিয়া তিনি।

ডা. ফাউচি বলছেন, মডার্নার টিকার ফলাফল খুব আশা জাগিয়েছে। কারণ প্রাকৃতিক একটি সংক্রমণের ক্ষেত্রে শরীরে যে ধরনের সুরক্ষা ব্যবস্থা তৈরি হয়, এই টিকা তেমনই প্রতীয়মান হয়েছে। আগামী ২৭ জুলাই শেষ ধাপের ট্রায়াল শুরু হবে মডার্নার টিকার।

রাশিয়ার টিকা

১৮ জুন থেকে করোনা টিকার হিউম্যান ট্রায়াল শুরু করেন রাশিয়ার সেকেনভ ফার্স্ট মস্কো স্টেট মেডিকেল ইউনিভার্সিটির বিজ্ঞানীরা। ১২ জুলাই তারা জানিয়ে দেন, টিকাটির চূড়ান্ত পর্যায়ের হিউম্যান ট্রায়াল শেষ হয়েছে। এক মাসের মধ্যে এই টিকা চূড়ান্তভাবে ব্যবহার করা যাবে বলেও দাবি করেছে তারা। কিন্তু প্রতিষ্ঠানটির এমন দাবি নিয়ে ইতোমধ্যে নানা প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। বিজ্ঞানীদের প্রশ্ন, ভ্যাকসিন তৈরির যাবতীয় সুরক্ষা, কার্যকারিতা পরীক্ষার নিয়ম-কানুন কী মানা হয়েছে এই টিকার ক্ষেত্রে? কেননা, ইতোমধ্যে এ বিষয়ে বেশ কয়েকটি অসঙ্গতি সামনে এসেছে।

চীনের ক্যানসিনো

তৃতীয় ধাপের ট্রায়ালে যাচ্ছে চীনা প্রতিষ্ঠান ক্যানসিনো বায়োলজিকস-এর করোনাভাইরাসের টিকা। এ ব্যাপারে রাশিয়া, ব্রাজিল, চিলি ও সৌদি আরবের মতো দেশগুলোর সঙ্গে আলোচনা করছে প্রতিষ্ঠানটি। গত শনিবার ক্যানসিনো বায়োলজিকস-এর সহপ্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক কিউ দংজু বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

কিউ দংজু বলেন, আমরা তৃতীয় পর্যায়ের পরীক্ষার জন্য রাশিয়া, ব্রাজিল, চিলি ও সৌদি আরবের সঙ্গে যোগাযোগ করছি। এটি এখনও আলোচনার পর্যায়ে রয়েছে। যৌথভাবে এই টিকা উদ্ভাবন করেছে ক্যানসিনো বায়োলজিকস এবং অ্যাকাডেমি অব মিলিটারি মেডিক্যাল সায়েন্সে’র বেইজিং ইনস্টিটিউট অব বায়োটেকনোলজি। টিকাটির নাম দেওয়া হয়েছে অ্যাড৫-এনকভ। এটি উদ্ভাবনে নেতৃত্ব দিচ্ছেন অ্যাকাডেমি অব মিলিটারি মেডিক্যাল সায়েন্সেস-এর চেন ওয়েই। তার নেতৃত্বাধীন একটি টিম এ নিয়ে কাজ করছে।

অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন নিয়ে সুখবর আজই? 

এখন পর্যন্ত বিশ্বে করোনাভাইরাসের টিকা তৈরিতে সবচেয়ে আলোচিত ও অগ্রগামী হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ও অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকাকে। তাদের কাছ থেকেই প্রথম টিকা নিয়ে সুখবর পেতে পারে বিশ্ব। আজ বৃহস্পতিবারই তারা সে ‘সুখবর’ দিতে পারে। ব্রিটেনের একটি সংবাদ সংস্থার দাবি, তাদের প্রতিষেধক তৈরির সহযোগী ওষুধ কোম্পানি অ্যাস্ট্রাজেনেকাকে নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করতে পারে অক্সফোর্ড। তাদের এই গবেষণার নেতৃত্বে রয়েছেন ইবোলা প্রতিষেধক তৈরিতে দিশা দেখানো বিজ্ঞানী সারা গিলবার্ট। গবেষকদের একাংশ বলছে, সেপ্টেম্বরে ভ্যাকসিন আনার ব্যাপারে তারা শতভাগ নিশ্চিত। আজ তাদের কাছ থেকে প্রথম ধাপের ইতিবাচক পরীক্ষার ফল পাওয়া যেতে পারে।

দৌড়ে আছে ভারতও

করোনার টিকার দৌড়ে অনেকটাই এগিয়ে আছে বলে দাবি করেছে ভারত। দ্বিতীয় পর্যায়ে মানব দেহের উপর কোভিড-১৯ ভাইরাসের সম্ভাব্য প্রতিষেধকের পরীক্ষা শুরু করেছে দেশটি। ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা জাইডাস ক্যাডিলার তরফে মোট দু’টি ধাপে এই পরীক্ষা করা হবে। তাতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ১ হাজারের বেশি মানুষ অংশ নেবেন। তাঁদের উপর জাইকোভ-ডি টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগ করা হবে। দেখা হবে, এই টিকা আদৌ মানবদেহের জন্য নিরাপদ কিনা এবং নোভেল করোনার বিরুদ্ধে তা কতটা প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারে। আগামী ১৫ আগস্ট স্বাধীনতা দিবসে তারা টিকার ব্যাপারে চূড়ান্ত কোনো ঘোষণা দেবে বলে মনে করা হচ্ছে।

গর্ব করতে পারে বাংলাদেশও

করোনার টিকা আবিষ্কারের দৌড়ে আছে বাংলাদশও। কোভিড-১৯ রোগের টিকা আবিষ্কার করার দাবি করেছে বাংলাদেশের ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেক লিমিটেড। গ্লোব বায়োটেক লিমিটেডের রিসার্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ডিপার্টমেন্টের প্রধান ডা. আসিফ মাহমুদ গণমাধ্যমকে বলেন, `প্রাথমিকভাবে আমরা করোনার ভ্যাকসিনে সফল হয়েছি। এনিমেল পর্যায়ে এটা সফল হয়েছে। এখন আমরা আশা করছি, মানবদেহেও সফলভাবে কাজ করবে আমাদের ভ্যাকসিন।’