ঢাকা, বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৪ আশ্বিন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

নতুন করে ভারত-চীন উত্তেজনা, আবারও কানাডা–যুক্তরাষ্ট্র যুদ্ধ

বিশ্বজুড়ে ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮ আগস্ট ২০২০ শনিবার, ১০:১৯ এএম
নতুন করে ভারত-চীন উত্তেজনা, আবারও কানাডা–যুক্তরাষ্ট্র যুদ্ধ

লাদাখে নতুন করে ভারত এবং চীনের মধ্যে উত্তেজনা শুরু হয়েছে। পূর্ব লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর নতুন করে সেনা অবস্থান চাইছে বেইজিং। তাদের দাবি, এই নতুন সেনা অবস্থানই হবে নিউ নর্মাল বা চূড়ান্ত পদক্ষেপ। এর ফলেই লাদাখে শান্তি ফিরবে বলে নিশ্চয়তা দিচ্ছে তারা। তবে এই প্রস্তাবে স্বাভাবিকভাবেই রাজি নয় নয়াদিল্লি। ভারত বলছে এটা চীনের নতুন পদক্ষেপ। হিন্দুস্তান টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাঁচটি সেনা স্তরের বৈঠকে সুবিধা করতে না পেরে নতুন করে জটিলতা বাড়াতে চাইছে চীন। নয়াদিল্লি পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দিয়েছে যে, কোনভাবেই ভারতীয় সেনারা পিছু হটবে না। কারণ পঞ্চম দফা বৈঠকের পরেও বিতর্কিত এলাকা থেকে সেনা সরায়নি চীন। নতুন করে ৩৫ হাজার সেনা মোতায়েন করার পরিকল্পনা নেওয়া হচ্ছে বলেও খবর পাওয়া গেছে। ভারতীয় সেনাবাহিনী জানিয়েছে, ভারতীয় সেনারা সরে গেলে চীনা সেনারাও সরে যাবে বলে দাবি করেছে। কিন্তু তাদের এই দাবি মানতে নারাজ নয়াদিল্লি।

আবারও কানাডা–যুক্তরাষ্ট্র বাণিজ্যযুদ্ধ

২০১৮ সালের পর আবারও শুরু হলো কানাডা–যুক্তরাষ্ট্র বাণিজ্যযুদ্ধ। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কানাডার অ্যালুমিনিয়ামে ১০ শতাংশ শুল্কারোপের একদিন পরেই মার্কিন অ্যালুমিনিয়াম পণ্য থেকে ৩৬০ কোটি কানাডীয় ডলার শুল্ক আদায়ের ঘোষণা দিয়েছে কানাডা সরকার। শুক্রবার দেশটির উপ-প্রধানমন্ত্রী ক্রিস্টিয়া ফ্রিল্যান্ড এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন। কানাডার উপ-প্রধানমন্ত্রী জানান, কানাডীয় সরকার সুনির্দিষ্টভাবে কোন কোন মার্কিন পণ্য টার্গেট করবে সে বিষয়ে পরামর্শ করার ৩০ দিনের মধ্যে এই পাল্টা শুল্ক কার্যকর হবে। ট্রাম্পের শুল্কারোপের ঘোষণা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘কানাডা দ্রুত এবং জোরালোভাবে এর প্রতিক্রিয়া জানাবে।’

মহামারির মধ্যেই বিদ্যালয় খুলে দিল যুক্তরাষ্ট্র

করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু অব্যাহত থাকার পরেও যুক্তরাষ্ট্রে বিদ্যালয়গুলো খুলে দেওয়া হলো। আজ শনিবার থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বেশ কিছু রাজ্যের বিদ্যালয়গুলো খুলে যাচ্ছে। তবে সে ক্ষেত্রে কেউ আক্রান্ত হলে তাকে কোয়ারেন্টিনে পাঠানোর কথা বলা হয়েছে। বিদ্যালয় খুলে দেওয়ার ব্যাপারে সবুজ সঙ্কেত দিয়েছে নিউইয়র্ক।

বুরকিনা ফাসোতে বন্দুকধারীদের হামলায় নিহত ২০

বুরকিনা ফাসোতে বন্দুকধারীদের হামলার ঘটনায় প্রায় ২০ জন নিহত হয়েছে। সরকারি এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে যে, দেশের পূর্বাঞ্চলে একটি গবাদি পশুর বাজারে হামলা চালিয়েছে অজ্ঞাত বন্দুকধারীরা। ফাদা এন`গৌরমা গ্রামে ওই হামলার ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কোনো গোষ্ঠী দায় স্বীকার করেনি। অপরাধীদের খুঁজে বের করতে ওই এলাকায় তল্লাশি অভিযান চালাচ্ছে সেনাবাহিনী।

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেবে টিকটক

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে দেশটির প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে টিকটকের তিক্ততা চরমে উঠেছে। গত বৃহস্পতিবার (৮ আগস্ট) সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম টিকটকের মূল কোম্পানির সঙ্গে লেনদেন বন্ধের নির্দেশিকায় স্বাক্ষর করেছে মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প। এরপরেই আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিল টিকটক। তারা যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আইনি পথে হাঁটবে তা জানিয়ে টিকটক গতকাল শুক্রবার (৭ আগস্ট) একটি বিবৃতিও প্রকাশ করেছে। অর্থাৎ ট্রাম্প সরকারের বিরুদ্ধে আইনি যুদ্ধে হাঁটবে টিকটক।

হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী ক্যারি লামের বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা

চীনা বিশেষ প্রশাসনিক অঞ্চল হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ক্যারি লামের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এই অঞ্চলের রাজনৈতিক স্বাধীনতা খর্ব করতে ভূমিকা রাখার দায়ে ক্যারি ছাড়াও শুক্রবার হংকংয়ের সাবেক ও বর্তমান পুলিশ প্রধান-সহ আরও ১০ জনের বিরুদ্ধে এই নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। হংকংয়ের ভিন্ন মতাবলম্বীদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপের কারণে চীনকে শাস্তি দিতে গত মাসে এক নির্বাহী আদেশে সাক্ষর করেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেই আদেশের আওতায় শুক্রবার হংকংয়ের প্রধান নির্বাহীসহ অন্যদের ওপর এই নিষেধাজ্ঞা আনল ওয়াশিংটন। নভেম্বরে পুনঃনির্বাচনের দৌড়ে ট্রাম্পের অংশ নেয়ার আগে বেইজিংয়ের বিরুদ্ধে এই পদক্ষেপ নিলো মার্কিন প্রশাসন।

চীনের নজরে তাজাকিস্তান

ভারত, ভুটানের পর বেইজিংয়ের নজর পড়েছে পৃথিবীর ছাদ অর্থাৎ পামির মালভূমির দিকে। চীনের ইতিহাসবিদ ইয়ো ইয়াও লু সম্প্রতি একটি প্রতিবেদনে লিখেছেন, একটা সময় পুরো পামির এলাকা চীনের ছিল। তাই এবার পামিরের পার্বত্য ভূমি চীনের ফেরত পাওয়া উচিত। এমন প্রতিবেদনের পর থেকেই চীনের সংবাদমাধ্যম এই নিয়ে লেগেছে। তারাও অতীত খুঁজে দেখতে নেমেছে। সেইসঙ্গে তাজাকিস্তানের থেকে পামির মালভূমি ছিনিয়ে নেওয়ার প্রচেষ্টায় চীন সরকারকে যথাসাধ্য সাহায্য করে চলেছে। আর চীনের এই সাম্রাজ্যবাদী আস্ফালনে ভয়ে কাঁপছে তাজাকিস্তান।