ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ৩ আষাঢ় ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

মমতার সামনে নতুন যুদ্ধ

জুয়েল খান
প্রকাশিত: ০৯ মে ২০২১ রবিবার, ১০:২২ এএম
মমতার সামনে নতুন যুদ্ধ

এবারের পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচন ছিলো সাম্প্রদায়িকতা বনাম অসাম্প্রদায়িকতার লড়াই। আর সেই লড়াইয়ে শেষ পর্যন্ত অসাম্প্রদায়িকতার জয় হয়েছে, পরাজীত হয়েছে ধর্মভিত্তিক দ্বিজাতিতত্ত্বের রাজনীতির ভেদাভেদ। মমতা শুরু থেকে নির্বাচনের মাঠে অনেক চাপে ছিলেন। বিশেষ করে কেন্দ্রে বিজেপি সরকার ক্ষমতায়, বিজেপির আর্থিক পৃষ্ঠপোষকতা এবং সর্বশেষ মতুয়া সম্প্রদায়ের ভোটারদের পাশে পেতে নরেন্দ্র মোদি বাংলাদেশ সফর করে চষে বেড়িয়েছেন সাতক্ষীরা, গোপালগঞ্জ, ওড়াকান্দি। তবে এতোকিছুর পরেও পশ্চিমবঙ্গের মানুষ যে অসাম্প্রদায়িকতায় বিশ্বাসী এবং তারা সারা ভারতের রাজনীতির মোড় পাল্টে দিয়েছেন তাতে কোনো সন্দেহ নেই।

আন্তর্জাতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, মমতা এখন জয়ী হলেও তার সামনে আরেকটা যুদ্ধক্ষেত্র প্রস্তুত হয়েছে, আর সেটি হলো করোনা মহামারী। মমতার রাজ্য এই মূহুর্তের করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যায় টালমাটাল অবস্থা। এখন মমতা কীভাবে এই যুদ্ধে জয়ী হবেন, না কোনো পরিকল্পনা হাতে নিয়ে রাজ্যের মানুষকে রক্ষা করবেন সেটাই দেখার বিষয়। বিশেষ করে এখন যেভাবে আক্রান্ত হচ্ছে সেই তুলনায় যদি মৃতের সংখ্যা বাড়তে থাকে তাহলে পরিস্থিতি হবে ভয়াবহ যা সামাল দিতে মমতাকে অনেক বেগ পোহাতে হবে।

জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা আগেই বলে দিয়েছেন, নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা যেভাবে স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘন করা হয়েছে তাতে করে করোনা ভয়াবহ রূপ ধারন করবে আর সেই কথা সত্যি হয়েছে। এখন সদ্য বিজয়ী মমতার সামনে অনেকগুলো চ্যালেঞ্জ এসে দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে দলের অবস্থান ধরে রাখা, কোন পদে কাকে বসানো হবে, সরকার গঠন, প্রশাসনিক কাঠামোর সঙ্গে সমন্বয়, করোনা মোকাবেলায় পকিল্পনার সঙ্গে সমন্বয় করা (যেহেতু নির্বাচনের সময় এসব থেকে কিছুটা দূরে ছিলেন)। এর পাশাপাশি ভ্যাকসিন পাওয়া এবং ভ্যাকসিন দেয়ার বিষয়টিও একটি চ্যালেঞ্জ বটে।

অন্যদিকে ভারতীয় ভেরিয়েন্ট এতোটাই দ্রুত ছড়ায় যে মূহুর্তের মধ্যে অগনিত মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন। আর এর বাস্তব চিত্রগুলো দেখা যায় শ্মশানঘাটে।  এসব পরিস্থিতির মধ্যে আবার ভ্যাকসিন বা অনেক সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে কেন্দ্রের সঙ্গে সমন্বয় করতে হবে যেখানে বসে আছে সদ্য পরাজীত দলের নেতারা। সবমিলিয়ে মমতার যেন এখন এক মহাসংকটকাল চলছে। এর পাশাপাশি মমতার সামনে নতুন চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখা দেবে প্রতিবেশি রাজ্য বিশেষ করে বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্কের বিষয়টি। যদিও এই  মূহুর্তে করোনা মোকাবেলা করা এবং সরকার গঠন করে প্রশাসনিক, দলীয় ও রাষ্ট্রীয় কাঠামো ঠিক করে ঘুড়ে দাঁড়ানোই মমতার জন্য এক মহা যুদ্ধ। তবে নেত্রী হিসেবে মমতা আগাগোড়াই সাহসী তাই তার ওপরে পশ্চিমবঙ্গের মানুষের আস্থা রয়েছে তাদের দিদি এই সংকট কাটিয়ে উঠবে।