ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৩ আগস্ট ২০২১, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

গ্রেট ব্যারিয়ার রিফ ‘বিপদাপন্ন’, ইউনেস্কোর সতর্কতা মানতে নারাজ অস্ট্রেলিয়া

বিশ্বজুড়ে ডেস্ক
প্রকাশিত: ২২ জুন ২০২১ মঙ্গলবার, ০৯:০৮ পিএম
গ্রেট ব্যারিয়ার রিফ ‘বিপদাপন্ন’, ইউনেস্কোর সতর্কতা মানতে নারাজ অস্ট্রেলিয়া

অস্ট্রেলিয়ায় বিশ্বের দীর্ঘতম সুন্দর গ্রেট ব্যারিয়ার রিফ। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় বিশ্বের বৃহত্তম প্রবালপ্রাচীর গ্রেট ব্যারিয়ার রিফকে ‘বিপদাপন্ন’ বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকাভুক্ত করার সুপারিশ করেছে ইউনেসকো।

সংস্থাটির মতে, বছরের পর বছর আবহাওয়া পরিবর্তনে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে এই প্রবাল দ্বীপে। এজন্য `বিপদাপন্ন` তালিকায় রাখার কথা ভাবছে ইউনেস্কো।

আজ মঙ্গলবার (২২ জুন) বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আগামী মাসে ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ কমিটির বৈঠকের জন্য এই সুপারিশ করা হয়েছে।

প্রতিবছরই জলবায়ুর পরিবর্তন ঘটছে। এর প্রভাবে হারিয়ে যাচ্ছে পৃথিবীর স্বাভাবিক আবহাওয়া। দেখা দিচ্ছে জলোচ্ছ্বাস, খড়াসহ নানা প্রাকৃতিক দুর্যোগ। একই কারণে অস্ট্রেলিয়ার প্রাকৃতিক সুন্দর গ্রেট ব্যারিয়ার রিফ নিয়ে উদ্বেগের কথা জানিয়েছে জাতিসংঘের সহযোগী সংস্থা ইউনেস্কো।

ইউনেসকো বলেছে, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব থেকে গ্রেট ব্যারিয়ার রিফকে রক্ষায় অস্ট্রেলিয়া যথেষ্ট পদক্ষেপ নেয়নি। রিফের পানির মান উন্নয়নে প্রধান লক্ষ্যসমূহ পূরণ করা হয়নি।

বৈশ্বিক উষ্ণায়নের বড় কারণ কার্বন নিঃসরণ কমাতে ‘দ্রুত পদক্ষেপ’ নেওয়ার জন্য অস্ট্রেলিয়ার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘের এই সংস্থা।

সংস্থাটির কর্মকর্তারা বলছেন, আগামী মাসের বৈঠকে বিশ্বের দীর্ঘতম প্রবাল রিফটিকে হেরিটেজের তালিকা থেকে অবশ্যই বাদ দেওয়া উচিত। একই সঙ্গে ‘ইন ডেঞ্জার’ বা `বিপদাপন্ন` তালিকায় রাখার দাবিও তুলেছেন তারা।

২০১৭ সালেও ইউনেস্কোর এক বৈঠকে প্রবাল দ্বীপটিকে `বিপদাপন্ন` তালিকায় রাখার কথা উঠে। কিন্তু সেবার ক্যানবেরা কমিটি রিফের উন্নয়নে দুই দশমিক দুই বিলিয়ন অর্থ বরাদ্দ রাখে। যদিও পাঁচ বছরেও এর তেমন উন্নতি দেখছে না ইউনেস্কো। বিজ্ঞানীরা বলছেন, বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধির কারণে সমুদ্রের উষ্ণতা বেড়ে যাওয়ায় এ প্রবাল প্রাচীর মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

এদিকে অস্ট্রেলিয়া সরকার ইউনেসকোর এই সুপারিশের কঠোর সমালোচনা করেছে। বিশ্বের সবচেয়ে বড় প্রবালপ্রাচীর গ্রেট ব্যারিয়ার রিফ অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ডের উপকূল ঘেঁষে কোরাল সাগরে অবস্থিত। বৈজ্ঞানিক ও প্রাকৃতিক গুরুত্বের কারণে ১৯৮১ সালে স্থানটিকে বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ ঘোষণা করে ইউনেসকো।