ঢাকা, শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৯ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

মানবাধিকার লঙ্ঘনকারী দেশগুলোর কাছে অস্ত্র বিক্রি না করতে বাইডেনের প্রতি আহ্বান

বিশ্বজুড়ে ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৪ জুলাই ২০২১ শনিবার, ০৯:২৯ পিএম
মানবাধিকার লঙ্ঘনকারী দেশগুলোর কাছে অস্ত্র বিক্রি না করতে বাইডেনের প্রতি আহ্বান

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ মিশর ও ইহুদিবাদী ইসরাইলসহ যেসব সরকার মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে তাদের কাছে অস্ত্র বিক্রি বন্ধের জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

ওয়াশিংটনে এই সংস্থার প্রতিনিধি অ্যালিসা ইস্পটেইন দৈনিক ওয়াশিংটন পোস্টে লেখা এ সংক্রান্ত এক নিবন্ধে বলেছেন, `মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন গত মাসে কংগ্রেসের কাছে একটি চিঠি পাঠিয়েছেন যেখানে ফিলিপাইনের কাছে ২৫০ কোটি ডলার মূল্যের অস্ত্র বিক্রির নির্দেশ রয়েছে। মার্কিন পররাষ্ট্র নীতিতে মানবাধিকার বিষয়টিকে অগ্রাধিকার দেয়া হবে বলে এর আগে প্রেসিডেন্ট বাইডেন ও তার পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্থনি ব্লিংকেন যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন ফিলিপাইনের  কাছে অস্ত্র বিক্রির উদ্যোগ ওই প্রতিশ্রুতির লঙ্ঘন।`  হিউম্যান রাইটস ওয়াচের প্রতিনিধি অ্যালিসা ইস্পটেইন তার নিবন্ধে আরো লিখেছেন, `মার্কিন সরকার ফিলিপাইন ছাড়াও মিশর ও দখলদার ইসরাইলের কাছেও অস্ত্র বিক্রির উদ্যোগ নিয়েছে।`

পর্যবেক্ষকরা বলছেন, ক্ষমতায় গিয়ে এতো অল্প সময়ের মধ্যে প্রেসিডেন্ট  বাইডেন বিতর্কিত কিছু দেশের কাছে অস্ত্র বিক্রি করায় বিভিন্ন মহল থেকে যে সমালোচনার সম্মুখীন হচ্ছেন তা এবারই প্রথম নয়। চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতেও মার্কিন সরকার মিশরের কাছে ১৯ কোটি ৭০ লাখ ডলার মূল্যের ক্ষেপণাস্ত্র বিক্রির প্রস্তাব অনুমোদন করেছে। এ ছাড়া সম্প্রতি গাজার বিরুদ্ধে আগ্রাসন চালানোর সময় দখলদার ইসরাইলের কাছেও ৭৩ কোটি ৫০ লাখ ডলার মূল্যের অস্ত্র বিক্রির অনুমতি দিয়েছে বাইডেন প্রশাসন।

অথচ ইসরাইল যুক্তরাষ্ট্রের সরবরাহকৃত এসব অস্ত্র দিয়ে ফিলিস্তিনিদের ঘরবাড়ি ধ্বংস করছে, তাদের গুরুত্বপূর্ণ অবকাঠামোগুলো ধ্বংস করছে, খেত খামার নষ্ট করছে, নিরীহ মানুষজন হত্যা করছে। ইসরাইলকে দেয়া অস্ত্রশস্ত্রের মধ্যে রয়েছে অত্যাধুনিক স্মার্ট বোমা যা সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম। যুক্তরাষ্ট্র এ ধরনের প্রচুর বোমা ইসরাইলকে সরবরাহ করেছে। সম্প্রতি গাজা যুদ্ধে তারা এসব অত্যাধুনিক অস্ত্র ব্যবহার করে ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়েছে।

মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদে ডেমোক্রেট দলের প্রতিনিধিরা তেলআবিবের কাছে এ ধরনের ব্যাপক ধ্বংসক্ষমতা সম্পন্ন অস্ত্র বিক্রির সমালোচনা করে বলেছে, এতে করে কেবল ফিলিস্তিনিদেরকে আরো হত্যার সুযোগ করে দেবে। ডেমোক্রেট দলের প্রতিনিধি ইলহান ওমর বলেছেন, `দখলদার ইসরাইলের কাছে কোটি কোটি ডলার মূল্যের অস্ত্র বিক্রির ঘটনা খুবই লজ্জাজনক। এ থেকে বোঝা যায় ফিলিস্তিনিদের ওপর হত্যা ও ধ্বংসযজ্ঞ চালানোর জন্য এটা যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে সবুজ সংকেত।`

যাইহোক, আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচের বিবৃতিতে মানবাধিকার লঙ্ঘনকারী কেবলমাত্র কয়েকটি দেশের নাম উঠে এসেছে যাদের কাছে যুক্তরাষ্ট্র অস্ত্র বিক্রি করছে। যুক্তরাষ্ট্র অপর মানবাধিকার লঙ্ঘনকারী দেশ সৌদি আরবের কাছেও কোটি কোটি ডলার মূল্যের অস্ত্র বিক্রি করছে যা দিয়ে ওই দেশটি গত প্রায় ছয় বছর ধরে ইয়েমেনে ভয়াবহ হত্যা ও ধ্বংসযজ্ঞ চালাচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রের সবুজ সংকেত পেয়েই সৌদি আরব ইয়েমেনে এখনো গণহত্যা চালিয়ে যাচ্ছে।

সৌদি আরবের কাছ থেকে আল কায়দা ও আইএস জঙ্গিদের কাছেও এসব অস্ত্র পৌঁছে যাচ্ছে। এ অবস্থায় আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ কয়েকটি দেশের কাছে অস্ত্র বিক্রি বন্ধের জন্য ওয়াশিংটনের প্রতি যে আহ্বান জানিয়েছে তা যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ। সূত্র: পার্সটুডে