ঢাকা, রোববার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ২ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

জাপানের ‘ব্ল্যাক উইডো’ চিসাকো কাহেকির মৃত্যুদণ্ড বহাল

বিশ্বজুড়ে ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ সোমবার, ০২:১৭ পিএম
জাপানের ‘ব্ল্যাক উইডো’ চিসাকো কাহেকির মৃত্যুদণ্ড বহাল

জাপানের সুপ্রিম কোর্ট `ব্ল্যাক বিধবা` বা `ব্ল্যাক উইডো` চিসাকো কাকেহি নামে পরিচিত ৭৪ বছর বয়সী একজন সিরিয়াল কিলারের মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখেছে। কাকেহি খাবারে বিষাক্ত রাসায়নিক সায়ানাইড ট্যাবলেট দিয়ে তার স্বামীসহ তিনজনকে হত্যা এবং চতুর্থ ব্যক্তিকে হত্যার চেষ্টার করে।

পাবলিক ব্রডকাস্টার এনএইচকে অনুসারে, কেকেহিকে তার শিকারকে সায়ানাইড দিয়ে বিষ খাওয়ার পরে বড় আকারের বীমা প্রদান করেছিলেন। কিওটো, ওসাকা এবং হায়োগোতে ২০০৭  থেকে ২০১৩ এর মধ্যে ঘটে যাওয়া হত্যাকাণ্ডের জন্য ২০১৭ সালে তাকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছিল।

চিসাকোর প্রথম স্বামী মারা যাওয়ার পর প্রেমের ফাঁদ পেতে আকৃষ্ট করেছেন পুরুষদের। তাদের কাউকে কাউকে বিয়ে করে খুন করেছেন। এক্ষেত্রে খাবারের সঙ্গে মিশিয়ে দিয়েছেন বিষাক্ত রাসায়নিক সায়ানাইড। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ধরা পড়তে হয়েছে চিসাকো কাকেহিকে। আদালতে দীর্ঘ বিচারে তার বিরুদ্ধে দেয়া হয়েছে মৃত্যুদণ্ডের রায়। তা কার্যকরের অপেক্ষায় এখন। 

ইসাও কাকেহি’র বয়স ৭৫ বছর। ২০১৩ সালে তিনি ৬৭ বছর বয়সী এক বিধবা চিসাকো কাকেহির সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। জাপানে ম্যাচমেকিং বিষয়ক একটি এজেন্সির মাধ্যমে তিনি চিসাকোর সাক্ষাত পেয়েছিলেন। এর দুই মাসের মধ্যে তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন এবং এক সঙ্গে বসবাস করতে শুরু করেন। কিয়োটোর মুকো সিটিতে তারা চমৎকার এক দাম্পত্য সম্পর্ক শুরু করেছিলেন। কিন্তু ২৮ ডিসেম্বর ‘ব্লাক উইডো’ কাকেহির খুনের চতুর্থ ও চূড়ান্ত শিকারে পরিণত হন তিনি।

চিসাকো কাকেহি এই হত্যাকাণ্ড শুরু করেন ২০০৭ সালে। এসময় তার বয়স ছিল ৬১ বছর। ওই সময় থেকে তিনি প্রেমের সম্পর্ক গড়ে হত্যাকাণ্ড শুরু করলেও পুলিশের চোখ ফাঁকি দিতে পেরেছেন। কিন্তু ২০১৪ সালে চতুর্থ পার্টনার ইসাও কাকেহিকে হত্যার ঘটনায় তিনি আর পালাতে পারেননি। পুলিশের তদন্তে তার নাম উঠে আসে। গ্রেপ্তার করা হয় তাকে।

জাপানে যত দীর্ঘমেয়াদি বিচার হয়েছে তার মধ্যে এই মামলা অন্যতম। এই মামলায় ২০১৭ সালে আদালত চিসাকো কাকেহিকে মৃত্যুদণ্ডের রায় দেয়। এর বিরুদ্ধে তিনি আপিল করেন। কিন্তু জুনে তা প্রত্যাখ্যাত হয়।