ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৫ আগস্ট ২০২১, ২১ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

‘চট্টগ্রামে জিয়ার ভাস্কর্য নিয়ে হেফাজত নিরব’

জুয়েল খান
প্রকাশিত: ০৬ ডিসেম্বর ২০২০ রবিবার, ০৪:০১ পিএম
‘চট্টগ্রামে জিয়ার ভাস্কর্য নিয়ে হেফাজত নিরব’

মজিবুর রহমান চৌধুরী বলেছেন, যারা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুর করেছে এবং ধর্মপ্রাণ মুসলমানদেরকে ভাষ্কর্য নিয়ে উষ্কে দিচ্ছে যুবলীগ তাদেরকে প্রতিহত করবে। বাংলার মাটিতে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাংচুর কোনোভাবেই সহ্য করা হবে না। যুবলীগ তাদেরকে প্রতিহত করতে মাঠে আছে, থাকবে।

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুর এবং চলমান ভাস্কর্য ইস্যু নিয়ে বাংলা ইনসাইডারের সাথে একান্ত আলাপচারিতায় এসব কথা বলেছেন আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন। পাঠকদের জন্য সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন বাংলা ইনসাইডারের নিজস্ব প্রতিবেদক জুয়েল খান।

মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন বলেন, বাংলাদেশে অনেক আগে থেকেই ভাস্কর্য আছে কিন্তু হঠাৎ করেই মৌলবাদীরা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের বিরোধীতা করছে। এর মধ্যে অনেক বড় ষড়যন্ত্র আছে। একটা সংঘবদ্ধ চক্র বাংলাদেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের উষ্কে দেয়ার চেষ্টা করছে কিন্তু সেটা সফল হতে দেয়া হবে না। বঙ্গবন্ধু বাঙালির চেতনার জায়গা সুতরাং আমরা আমাদের অবস্থান থেকে কঠোর প্রতিবাদ করছি এবং সারাদেশের নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষ আমাদের সাথে আছে।

কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুরের বিষয়ে তিনি বলেন, আওয়ামী যুবলীগসহ সকল সহযোগী সংগঠন এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে। সাধারণ মানুষ রাস্তায় নেমেছে ফলে মৌলবাদীদের নীল নকশা কোনোভাবেই বাস্তবায়ন হতে দেয়া হবে না। হেফাজতে ইসলাম এই বিষয়টা নিয়ে স্বোচ্চার হয়েছে কিন্তু তাদের সবচেয়ে বড় মাদ্রাসার এলাকা চট্টগ্রামে জিয়াউর রহমানের ভাস্কর্য রয়েছে কিন্তু সেই ভাস্কর্য নিয়ে তারা কিছু বলে না। এই বাস্তবতায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে কথা বলায় একটা বিষয় পরিষ্কার যে, একটা পক্ষ পানি ঘোলা করে মাছ শিকারের পায়তারা করছে কিন্তু সেই স্বপ্ন সফল হবে না। দেশের মানুষ আগেই বিএনপি-জামায়াতকে প্রত্যাখ্যান করেছে সুতরাং তাদের নীল নকশা সবাই প্রতিহত করবে।

অনেক মুসলিম দেশে ভাস্কর্য আছে এমন উদাহরণ টেনে এই সংসদ সদস্য বলেন, সেসব দেশের  ভাস্কর্য তাদের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য বহন করে। সেখানে কোনো ধর্মীয় গোষ্ঠি ভাস্কর্যের বিরোধীতা করে না। কিন্তু বাংলাদেশের মৌলবাদীরা দেশকে পিছিয়ে দেয়ার জন্য ভাস্কর্য নিয়ে অপরাজনীতি করার পায়তারা করছে। মৌলবাদীরা ভাস্কর্য ইস্যুকে ধর্মীয় মোড়ক দিতে চাইছে। কিন্তু ভাস্কর্য ইস্যু এখন শুধু আওয়ামী লীগের একার বিষয় নেই এটা সার্বজনীন বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। গতকাল থেকে ঢাকাসহ সারাদেশের সাধারণ মানুষ, ছাত্র-শিক্ষক রাস্তায় নেমেছে। কাজেই মৌলবাদীদের ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করতে দেয়া হবে না।

নিক্সন চৌধুরী বলেন, ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদের সারাদেশের মানুষ ফুঁসে উঠেছে এবং আওয়ামী লীগে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। মানুষের অনুভূতিতে আঘাত লেগেছে তাই স্বাধীনতার পক্ষের শক্তিগুলো মাঠে নেমেছে। এই অবস্থায় শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে এখন উত্তাল সারাদেশ। বঙ্গবন্ধু আমাদের অস্তিত্ব। সুতরাং যারা আমাদের অস্তিত্বে হাত দিয়েছে আমরা তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা চাই।