ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ২৮ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

হাঁস শিকারে তিন চিকিৎসক

জোকস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২ এপ্রিল ২০১৭ বুধবার, ১০:৫৮ এএম
হাঁস শিকারে তিন চিকিৎসক

হাঁস শিকারে তিন চিকিৎসক
হাঁস শিকারে গেছেন তিন চিকিৎসক। শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ বললেন, হুম্, দেখতে হাঁসের মতোই লাগছে, হাঁসের মতোই ডাকে, হাঁসের মতো ওড়ে। ওটা একটা হাঁসই হবে। এই বলে গুলি ছুড়লেন, ততক্ষণে পাখিটা চলে গেছে অনেক দূর।
মেডিসিন বিশেষজ্ঞ তাঁর বইটা বের করলেন, হাঁসের ছবি দেখলেন। হাঁসের বৈশিষ্ট্যগুলোতে চোখ বুলালেন। বললেন, হুম্। ওটা আসলেই একটা হাঁস। গুলি ছুড়লেন,কিন্তু এবারও পাখি নাগালের বাইরে চলে গেল।
এবার শল্যচিকিৎসক গুলি ছুড়লেন। ধপ করে নিচে পড়ল পাখিটা। চিকিৎসক বললেন, ‘কাছে গিয়ে দেখো তো, ওটা হাঁস কি না!’

আমি আগেই মারা গেছি
সেমিনারে ধুমপানের অপকারিতা সম্বন্ধে বক্তৃতা করছেন এক বক্তা।
বলছেন, একটা সিগারেট মানুষের আয়ু আট দিন কমিয়ে ফেলে।
এক শ্রোতা উঠে দাঁড়িয়ে বলল, আপনার হিসেব ঠিক আছে তো?
বক্তা : নিশ্চয়ই।
শ্রোতা : তা হলে তো আমি আড়াই শ’ বছর আগেই মারা গেছি।

হেয়ারিং এইড
জয়নাল সাহেব কানে কম শোনেন। হেয়ারিং এইড কিনতে তিনি গেলেন দোকানে।
জয়নাল: ভাই, হেয়ারিং এইডের দাম কত?
দোকানদার: পাঁচ টাকা দামের আছে, পাঁচ হাজার টাকা দামেরও আছে।
জয়নাল: আমাকে পাঁচ টাকারটাই দেখান।
দোকানদার জয়নালের কানে একটা প্লাস্টিকের খেলনা হেয়ারিং এইড গুঁজে দিলেন। জয়নাল আশ্চর্য হয়ে বললেন, এটার ভেতর তো কোনো যন্ত্রপাতিই নেই। এটা কাজ করে কীভাবে?
দোকানদার: সত্যি বলতে, এটা কোনো কাজ করে না। তবে আপনার কানে এই জিনিস দেখলে লোকজন এমনিতেই আপনার সঙ্গে প্রয়োজনের চেয়ে উঁচু গলায় কথা বলবে!

বাংলা ইনসাইডার/এমএ