ঢাকা, শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

ভয়ে চুল খাড়া

জোকস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪ মে ২০১৭ বৃহস্পতিবার, ০১:১৬ পিএম
ভয়ে চুল খাড়া

ভয়ে চুল খাড়া
সেলুনে চুল কাটাতে গেছেন এক নেতা। নাপিত কাঁচি চালাতে চালাতে বলছেন, ‘স্যার, শুনলাম জনগণ নাকি আপনার ওপর খুব খ্যাপা। আপনি বলে ঘুষের টাকার পাহাড় বানাইছেন…।’
নেতা এক ধমকে, ‘এই ব্যাটা, চুপ থাক।’

পরদিন নাপিতের কাছে চুল কাটাতে এলেন এক সরকারি কর্মকর্তা। নাপিত বললেন, ‘স্যার, দুদক নাকি আপনারে খুঁজতেছে! যেকোনো দিন ক্যাক কইরা ধইরা জেলে ঢুকায় দিব!
কর্মকর্তা এক ধমকে, “এক্কেবারে চুপ”।

কয়দিন বাদেই নাপিতের দোকান ঘেরাও করল পুলিশ। জিজ্ঞেস করা হল, ‘এই ব্যাটা, তুই নাকি কাস্টমারদের আজেবাজে কথা বলিস?
নাপিতের উত্তর, ‘স্যার! এসব কথা বললে ভয়ে ওনাদের চুল খাড়া হয়ে যায়। আমার চুল কাটতে সুবিধা হয়। তাই বলি!’

ইহাকে বলে পলিটিক্স
হোসেন আলী আর মজনু মিঞা, দুজন দুই দলের সমর্থক। একবার দুজন এক হোটেলে বসে খাচ্ছিলেন।
হোসেন আলী বললেন, আমরা কেন তোমাদের চেয়ে এগিয়ে থাকি জানো? খেয়াল করে দেখো, খাওয়া শেষে আমি পুরো ৫০ টাকা বকশিশ দেব এবং বলব, ‘ভোটটা কিন্তু লেবু মার্কায়ই দিয়ো।’

মজনু মিঞা বললেন, আমিও কিন্তু তোমাদের লেবু মার্কায়ই ভোট চাইব। তবে বখশিশ হিসেবে দেব একটা অচল দুই টাকার নোট!

বুদ্ধিমান প্রাণী
বিরাট এক আবিষ্কার করে বসেছেন এক পশ্চিমা দেশের বিজ্ঞানীর দল। নেচে-গেয়ে তাঁরা নিজেদের সাফল্য উদ্যাপন করছিলেন। এমন সময় প্রধানমন্ত্রী ফোন।

ফোন রেখে গোমড়া মুখে বিজ্ঞানী বললেন, ‘সহকর্মীরা, প্রায় অসম্ভব একটা কাজের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে আমাদের। প্রধানমন্ত্রী বললেন, এবার সরকারি দলে বুদ্ধিমান প্রাণী খুঁজে বের করতে হবে!’


বাংলা ইনসাইডার/এমএ