ঢাকা, সোমবার, ২০ আগস্ট ২০১৮ , ৫ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

ভালোবাসার এই দিবসে

লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ বুধবার, ০৭:৫১ এএম
ভালোবাসার এই দিবসে

দিবসের মধ্যে বেঁধে রাখা যায়না ভালোবাসাকে। ভালোবাসা আজীবনের, সব সময়ের। প্রতিটা সম্পর্কই ভালোবাসার। ভালোবাসাকে উদযাপনের জন্য কোনো দিবসের প্রয়োজন হয় না। কিন্তু আজ থেকে প্রায় সাড়ে ১৭০০ বছর আগে রোমান ধর্মযাজক সেইন্ট ভ্যালেন্টাইন এর হাত ধরে ১৪ ফেব্রুয়ারি ভ্যালেন্টাইনস ডে বা বিশ্ব ভালোবাসা দিবসের পথচলা শুরু।

এই দিনে হয়তো শুধু অন্যভাবে বলা ‘ভালোবাসি’। কিংবা খুব আলাদা কিছু উপহার দিয়ে মনের ভালোবাসার ভাষা আর গভীরতা বুঝিয়ে দেওয়া। ভালোবাসার জন্য আলাদা কোনো বয়স বা বিশেষ কোনো সম্পর্কের প্রয়োজন পড়েনা। একটু আদরে আর নির্ভরতায় বলে দেওয়া যায় কতোটা ভালোবাসি।

ভালোবাসা কি শুধুই তরুণ প্রেমিক প্রেমিকার জন্যে? না, তা নয়। সব সম্পর্কের মধ্যেই আলাদা আলাদা ভালোবাসা রয়েছে। যাদের সঙ্গী নেই তারা তাদের জীবনের অন্য সম্পর্কের ভালোবাসা দিয়ে পালন করবে দিনটি।

যে দম্পতি আজ থেকে ৩৫ বছর আগে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছে, তাদের ভালোবাসা খুব কাছ থেকে দেখলে একটুও ম্লান মনে হয়নি। আজও নিয়ম করে কোথাও ঘুরতে যাওয়া, অফিস থেকে স্বামী ফেরার অপেক্ষায় বসে থাকা, একজন অসুস্থ হলে আরেকজন লুকিয়ে কাঁদা বা মাথার কাছে সারারাত বসে থাকা, খুব ছোট ছোট অভিমান-অভিযোগ- এইগুলোই ভালোবাসা। যা ব্যাখ্যা করা যায়না। উপলব্ধি করতে হয় শুধু।

একটি ছোট্ট মেয়ে, যার মা বেচে নেই। তার একমাত্র আশ্রয় তার দিনমজুর বাবা। প্রতিদিন বাবা হাড় ভাঙা খাটুনি শেষে বাসায় ফেরে। তার ওই ছোট্ট মেয়ে তার জন্যে অপেক্ষা করে। বাবার প্রতিটা প্রয়োজন সে বোঝে, একদম মায়ের মতো করে বাবাকে দেখাশোনা করে সে। দিনশেষে হাজার গল্পের শেষে বাবার বুকে শান্তির ঘুম ঘুমানো- এই যে ভালোবাসা, এর কোনো আলাদা প্রকাশ হয়তো লাগেনা।

এই ভালোবাসাগুলো হয়তো খুব আবেগের। এই আবেগ আসে ভালোবাসা থেকেই। এই ভালেবাসার জন্যে যে দিবস তাকে আমরা নানা আয়োজনে বরণ করে নিই। নিজেকে নতুন ভাবে সাজাই। সঙ্গী বা ভালোবাসার মানুষকে বোঝাতে চাই ভালোবাসার অভিব্যক্তি। হয়তো কর্মব্যস্ত জীবনে আমরা ভালোবাসার মানুষকে সময় দিতে পারিনা বা তার জন্য বিশেষ করে কিছু করতে পারিনা। কিন্তু এই দিনটিতে আমারা তাকে আলাদা করে সময় দিতে চেষ্টা করি।

এই যেমন সকালে তার হাতে তুলে দিলাম ফাল্গুনের সদ্য তাজা ফুল, বা বিশেষ কোনো উপহার। তাকে নিয়ে ঘুরে এলাম পছন্দের কোনো জায়গায়। এই যেমন বইমেলা কিংবা বিশেষ কোনো আয়োজনে। উদ্দেশ্যহীন গন্তব্যে ঘুরে এলাম শহরের অলিগলিতে। ভরসার হাত ধরে প্রতিশ্রুতি দিলাম সারাজীবন পাশে থাকার। এই তো ভালোবাসা, এর চেয়ে আর বেশি কিইবা লাগে? পথ প্রদর্শক সেন্ট ভ্যালেনটাইনের সেই ভালোবাসার গল্পকে হার না মানাই, ভালোবাসা থাক সবার ওপরে, সবার জন্যে। বিশ্ব এক হোক, কোনো ভেদাভেদ যেন না থাকুক। সবাই ভালোবাসা নিয়ে পৌঁছে যাক নিজের লক্ষ্যে।

ভালোবাসার এই দিনে বাংলা ইনসাইডারের পক্ষ থেকে সবাইকে শুভেচ্ছা।

বাংলা ইনসাইডার/এসএইচ/জেডএ